বৃহস্পতিবার, ২২ অক্টোবর ২০২০, ১১:১৬ অপরাহ্ন

আতঙ্কিত হবেন না
করোনা সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন

পাবনায় জেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে ত্রিমুখী লড়াই!

চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন আওয়ামী লীগ-সমর্থিত প্রার্থী রেজাউল রহিম লাল (বায়ে), জেলা আওয়ামী লীগের মহিলাবিষয়ক সম্পাদক মাহজেবিন শিরিন পিয়া (মাঝে) এবং পাবনা জেলা আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক কামিল হোসেন।

image_pdfimage_print
চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন আওয়ামী লীগ-সমর্থিত প্রার্থী রেজাউল রহিম লাল (বায়ে), জেলা আওয়ামী লীগের মহিলাবিষয়ক সম্পাদক মাহজেবিন শিরিন পিয়া (মাঝে) এবং পাবনা জেলা আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক কামিল হোসেন।

চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন আওয়ামী লীগ-সমর্থিত প্রার্থী রেজাউল রহিম লাল (বায়ে), জেলা আওয়ামী লীগের মহিলাবিষয়ক সম্পাদক মাহজেবিন শিরিন পিয়া (মাঝে) এবং পাবনা জেলা আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক কামিল হোসেন।

বার্তাসংস্থা পিপ : পাবনা জেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগের তিন নেতার মধ্যে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হবে বলে ধারণা করা হচ্ছে। এ দিকে রোববার রাতে পাবনা জেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী ও সদ্য বিদায়ী প্রশাসক, আওয়ামী লীগের প্রবীণ নেতা এম. সাইদুল হক চুন্নু নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়িয়েছেন।

সংবাদপত্রে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে চুন্নু তাঁর প্রার্থীতা থেকে সরে দাঁড়ানোর কথা জানান। তবে তিন প্রার্থীর টার্গেট বিএনপি জামায়াতের ৩০০ ভোট।

চেয়ারম্যান পদে যারা প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন তারা হলেন পাবনা জেলা আওয়ামী লীগের জ্যেষ্ঠ সহসভাপতি ও আওয়ামী লীগ-সমর্থিত প্রার্থী রেজাউল রহিম লাল, পাবনা জেলা আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক কামিল হোসেন, জেলা আওয়ামী লীগের মহিলাবিষয়ক সম্পাদক ও ভূমিমন্ত্রীর মেয়ে মাহজেবিন শিরিন পিয়া।

জেলা নির্বাচন কার্যালয় সূত্র জানায়, পাবনা জেলা পরিষদে এক হাজার ১০৫ জন জনপ্রতিনিধি তাদের ভোট প্রয়োগ করবেন। এদের মধ্যে চাটমোহর, ভাঙ্গুড়া, আটঘরিয়া, সাঁথিয়া উপজেলা চেয়ারম্যানসহ প্রায় ৩০০ ভোটার রয়েছে বিএনপি-জামায়াত সমর্থিত। তাদের ভোট একটা ফ্যাক্টর হয়ে দাঁড়াবে মনে করছেন প্রার্থীরা।

আওয়ামী লীগ-সমর্থিত প্রার্থী রেজাউল রহিম লাল বলেন, দলের জন্য আমি সারাজীবন কাজ করেছি। সংকটের সময় জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক ছিলাম। দল আমাকে সমর্থন দিয়েছে। তাই, আমি বিজয়ের ব্যাপারে আশাবাদী।

জেলা আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক কামিল হোসেন মনে করেন, তিনি দলের জন্য নিবেদিত। প্রতিটি মেম্বর-চেয়ারম্যানকে তিনি চেনেন। ফলে তারা তাঁকেই বেছে নেবেন।

জেলা আওয়ামী লীগের মহিলাবিষয়ক সম্পাদক মাহজেবিন শিরিন পিয়া বলেন, একমাত্র নারী প্রার্থী তিনি। তা ছাড়া দলের জন্য তাঁর অবদান রয়েছে। সবার ভোট পাবেন বলে তিনি মনে করেন।

জেলার জ্যেষ্ঠ নির্বাচন কর্মকর্তা মো. সাইফুল ইসলাম বলেন, জেলা পরিষদ নির্বাচনের সব প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। প্রতিটি ওয়ার্ডে একটি করে ভোটকেন্দ্র স্থাপন করা হয়েছে।

Best WordPress themes


© All rights reserved 2020 ® newspabna.com

 
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
error: Content is protected !!