বুধবার, ২১ অক্টোবর ২০২০, ০১:৫৮ অপরাহ্ন

আতঙ্কিত হবেন না
করোনা সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন

পাবনায় তোপের মুখে জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক

image_pdfimage_print

বার্তাসংস্থা পিপ, পাবনা :  চালের দাম অস্বাভাবিক বৃদ্ধি পাওয়ায় এবং ধান-চাল সংগ্রহ অভিযান ব্যর্থ হওয়ায় তোপের মুখে পড়েছেন পাবনার জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক মো. আব্দুল কাদের।

গতকাল রোববার (১৫ অক্টোবর) দুপুরে জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে বাজার দর, নিরাপদ খাদ্য এবং ভোক্তা অধিকার বিষয়ে তিনটি সভা অনুষ্ঠিত হয়।

সভায় নিরাপদ খাদ্য বিষয়ক কমিটির সদস্যরা চাল, চিনি, ডাল ও সয়াবিন তেলের বাজারদর হঠাৎ বেড়ে যাওয়ায় এবং সরকারি খাদ্য গুদামে ধান চাল সংগ্রহে ব্যর্থতার জন্য খাদ্য বিভাগের কর্মকর্তাদের দায়ী করেন।

পাবনা জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি এবং নিরাপদ খাদ্য কমিটির সদস্য চন্দন চক্রবর্তী বলেন, খাদ্য বিভাগের কর্মকর্তাদের দুর্নীতির কারণে প্রকৃত কৃষকরা সরকারি খাদ্য গুদামে কোনো ধান-চাল বিক্রি করতে পারছেন না। সিন্ডিকেটের মাধ্যমে এসব চাল কেনা হচ্ছে। ফলে দেশে খাদ্য মজুদ কমে গেছে।

পাবনা প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি ও খাদ্য কমিটির সদস্য রবিউল ইসলাম রবি বলেন, কৃত্রিম সংকট সৃষ্টি করে খাদ্য বিভাগের কিছু কর্মকর্তা এবং মিল মালিকরা চালের দাম বাড়িয়েছেন। অথচ তাঁদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে না বলেও অভিযোগ করেন তিনি।

সভায় নিজের বক্তব্যে কনজ্যুমার অ্যাসোসিয়েশনের (ক্যাব) সভাপতি ও পাবনা চেম্বারের পরিচালক এ বি এম ফজলুর রহমান বলেন, এক মাসের মধ্যে প্রতি কেজি চালের দাম ৮ থেকে ১০ টাকা বাড়ানো হয়েছে। অথচ সরকার যখন সেই চালের শুল্ক ২৮ শতাংশ থেকে কমিয়ে মাত্র ২ শতাংশ করেছে তখনো খুচরা বাজারে চালের দাম কমেছে মাত্র এক থেকে দেড় টাকা। তিনি অভিযোগ করে বলেন, যারা এই চালের দাম বৃদ্ধির সঙ্গে জড়িত তাদের সঙ্গে শুধু ধান চাল সংগ্রহের চুক্তি বাতিল নয় তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থাও নেওয়া উচিত।

পাবনা চেম্বারের পরিচালক ও জেলা হোটেল রেস্তরাঁ মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক সাজ্জাদ হোসেন বাচ্চুও অভিযোগ করে বলেন, বাজার নিয়ন্ত্রণহীন, মনে হয় যেন দেখার কেউ নেই।

এ সব অভিযোগের জবাবে পাবনা জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক মো. আব্দুল কাদের বলেন, উপজেলা প্রশাসন কৃষকদের তালিকা তৈরি করে। সেই অনুযায়ী তাদের কাছ থেকে ধান চাল সংগ্রহ করা হয়ে থাকে। এ ছাড়া স্থানীয় সংসদ সদস্যের পরামর্শেও এ সব তালিকা হয়ে থাকে। এখানে খাদ্য বিভাগের করার কিছুই নেই।

পাবনার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মো. শাফিউল ইসলামের সভাপতিত্বে সভায় আরো বক্তব্য দেন, পাবনা চেম্বারের সভাপতি মো. সাইফুল আলম স্বপন চৌধুরী, সিনিয়র সহসভাপতি আলী মর্তুজা বিশ্বাস সনি, জেলা চালকল মালিক সমিতির সভাপতি অধ্যক্ষ ইদ্রিস আলী বিশ্বাস, জেলা মৎস কর্মকর্তা আব্দুল গাফফার, বাজার কর্মকর্তা শামসুর রহমান, বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ প্রফেসর মির্জা একে শহিদুল ইসলাম, জেলা স্যানিটারি ইন্সপেক্টর মাহমুদ আলী প্রমুখ।

 

Best WordPress themes


© All rights reserved 2020 ® newspabna.com

 
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
error: Content is protected !!