মঙ্গলবার, ২৬ জানুয়ারী ২০২১, ০৯:৪১ অপরাহ্ন

আতঙ্কিত হবেন না
করোনা সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন

পাবনায় প্রতিমাসে ২৪ লাখ টাকা অবৈধ চাঁদা আদায়ের অভিযোগ!

পাবনায় প্রতিমাসে ২৪ লাখ টাকা অবৈধভাবে চাঁদা আদায়ের অভিযোগ!

image_pdfimage_print

পাবনা প্রতিনিধি : পাবনা থেকে প্রায় ৩০টি রুটে যাতায়াতকারী চার শতাধিক যাত্রী পরিবহণ থেকে প্রতিমাসে মোটর মালিক গ্রুপের নামে অবৈধভাবে বিনা রশিদে ২৪ লাখ টাকা চাঁদা তোলা হচ্ছে।

আর এই টাকা কোথায় যাচ্ছে, আর কে নিচ্ছেন এর কোন হদিস নেই বলে দাবী করেছেন পাবনা জেলা মোটর মালিক গ্রুপের নেতৃবৃন্দ।

রোববার (০৮ জানুয়ারি) দুপুর ১২ টায় পাবনা প্রেসক্লাবের ভিআইপি অডিটোরিয়ামে এক সংবাদ সম্মেলনের এই অভিযোগ করেন সরকার পরিবহণের স্বত্বাধিকারী এম এ কাফী সরকারসহ প্রায় অর্ধশত পরিবহন মালিক।

পরিবহণ মালিকদের এই মোটর মালিক গ্রুপের নির্বাচিত কমিটির মেয়াদ উত্তীর্ণ হওয়ায় প্রায় চার বছর ধরে অভিভাবকহীন হয়ে পড়েছে পরিবহণের এই সংগঠনটি।

চার মাসের জন্য এডিসি জেনারেলকে ‘প্রশাসক’ হিসেবে নিয়োগ করা হলেও অদ্যবধি এই প্রশাসকও কোন কূলকিনারা করতে পারেননি। দিতে পারেননি সংগঠনের নতুন নির্বাচন, নতুন কমিটি উপহার।

সংবাদ সম্মেলনে মোটর মালিকরা অভিযোগ করেন নিয়োগকৃত প্রশাসকের নির্দেশেই প্রতিমাসে পাবনার অভ্যন্তরীন ও আন্তজেলা রুটে যাতায়াতকারী যাত্রী পরিবহণ থেকে অবৈধ ভাবে এই বিপুল পরিমান টাকার চাঁদা তোলা হচ্ছে।

অবশ্য পাবনায় দু’গ্রুপে বিভক্ত মোটর মালিকদের নিয়ে গেল বছরের সেপ্টেম্বর মাসে জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে এক বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। ওই বৈঠকে প্রশাসকের নাম ভাঙ্গিয়ে মোটা অংকের টাকা তোলা হয় এমন নির্ভরযোগ্য তথ্য চেয়েছেন বিভক্ত মালিক সমিতির কাছে জেলা প্রশাসক রেখা রানী বালো। যা এখনও দিতে পারেননি সংশ্লিষ্টরা।
সংবাদ সম্মেলনে উত্থাপিত দুদকের বরাবর লিখিত এক দরখাস্তের উদ্ধৃতি দিয়ে মালিক গ্রুপের নেতৃবৃন্দ জানান, পাবনার মূলাডুলি পয়েন্ট থেকে খুলনা, বরিশাল, সাতক্ষীরা, যশোর, বেনাপোল, কোয়াকাটা, পটুয়াখালি, চুয়াডাঙ্গা, ফরিদপুর, পঞ্চগড়, সৈয়দপুর, রংপুর, বগুড়া, দিনাজপুর, গাইবান্ধা, নওগাঁ, চাপাইনবাবগঞ্জ, রাজশাহী, সিরাজগঞ্জ, ময়মনসিংহ, জামালপুর, শেরপুর, ভালুকা, সিলেট, চট্টগ্রাম রুটের যাত্রীবাহি পরিবহণ থেকে ওয়াজেদ নামের এক ব্যক্তির নেতৃত্বে রশিদ ছাড়াই প্রতিদিন ভোর থেকে বিকেল ৫ টা পর্যন্ত ১৩ হাজার টাকা, দাশুড়িয়া পয়েন্ট থেকে ৮ হাজার টাকা, পাকশী রূপপুর পয়েন্ট থেকে ৭ হাজার টাকা, বেড়া পয়েন্ট থেকে সকাল হতে রাত পর্যন্ত ৩ হাজার টাকা, আতাইকুলা পয়েন্টে ১ হাজার টাকা আদায় করা হয়।

অন্যদিকে জেলার বাইরের গাড়ীসহ পাবনা থেকে যেসকল গাড়ী চলাচল করে তন্মধ্যে পাবনা-ঢাকা, পাবনা-সিরাজগঞ্জ, পাবনা-কাজীরহাট, পাবনা-সাঁথিয়া, পাবনা-বেড়া, পাবনা-শহাজাদপুর, পাবনা-উল্লাপাড়া, পাবনা-ডেমড়া, পাবনা-ফরিদপুর, পাবনা-চাটমোহর, পাবনা-ঈশ্বরদী রুটের গাড়ী হতে টার্মিনাল বাইপাস মোড় পয়েন্ট থেকে ১৫ হাজার টাকা, ঢাকা কোচ পয়েন্ট থেকে ৯ হাজার টাকা, কবি বন্দে আলী মিয়া টার্মিনাল থেকে ৮ হাজার টাকা, শহরের আব্দুল হামিদ রোড পয়েন্ট থেকে ১৩ হাজার টাকা বিনারশিদে অবৈধ ভাবে চাঁদা আদায় করা হয়।

সাংবাদিক সম্মেলনে জানানো হয়, পাবনা এক্সপ্রেস কোচের স্বত্তাধিকারী আহসান খান রেয়ন ও রাজদূত গাড়ীর মালিক আব্দুল মোমেনের নির্দেশে পাবনা মোটর মালিক গ্রুপের নামে এই চাঁদাবাজি করা হয়।
সাংবাদিক সম্মেলনে এম এ কাফী সরকার, মোশারোফ হোসেন খোকন, মাসুদ সরকার, খায়রুল আলম, মো: শের আলী খান, আব্দুল লতিফ, মহসিন উদ্দিন, সমির আহমেদ, রফাজ্জল হোসেন, নন্দ কর্মকার, প্রদীপ কুমার ভদ্র, কাব্য, সোলায়মান হোসেন, আশিফসহ অর্ধশত মোটর মালিক উপস্থিত ছিলেন।

নেতৃবৃন্দ অবিলম্বে অভিভাবকহীন হয়ে পড়া মোটর মালিক গ্রুপের দ্রুত নির্বাচন এবং অবৈধ চাঁদা আদায় বন্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে সরকারের সংশ্লিষ্ট মহলের কাছে জোড় দাবী জানান।

0
1
fb-share-icon1

Best WordPress themes


© All rights reserved 2020 ® newspabna.com

 
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
error: Content is protected !!