বুধবার, ০৮ এপ্রিল ২০২০, ১১:০৫ পূর্বাহ্ন

আতঙ্কিত হবেন না
করোনা সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন

পাবনায় মানসিক রোগী ফেলে পালিয়েছে পরিবার!

সিনিয়র স্টাফ রিপোর্টার, পাবনা : দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে মানসিক রোগী নিয়ে পাবনার বিশেষায়িত হাসপাতালে আসেন অনেকেই।

দূরদূরান্ত থেকে আসা অনেক রোগী সময়মত এসে পৌঁছাতে না পারলে আশে পাশের আবাসিক হোটেল অথবা নিকটস্থ শ্রী শ্রী ঠাকুর অনুকুলচন্দ্রর আশ্রমে আশ্রয় গ্রহণ করে।

আর এই আশ্রয় গ্রহনের সুযোগ নিয়ে সম্প্রতি এক পরিবার তার যুবতী মানসিক মেয়ে রোগীকে রেখে পালিয়েছে। আর এই রোগীকে নিয়ে বিপাকে পরেছে আশ্রম কর্তৃপক্ষ।

এই ঘটনায় পাবনা সদর থানাতে একটি সাধারন ডাইরী করা হয়েছে। বিশেষায়িত এই হাসপাতালে সেবার মান নিশ্চিত করতে প্রাথমিক আবাসনের ব্যবস্থার দাবি স্থানিয়দের।

জানাগেছে, সারাদেশ থেকে প্রতিদিন অসংখ্য মানসিক রোগী চিকিৎসার জন্য পাবনার হেমায়েতপুরে শ্রীশ্রী ঠাকুর অনুকূল চন্দ্র আশ্রম সংলগ্ন দেশের একমাত্র বিশেষায়িত মানসিক হাসপাতালে আসেন চিকিৎসা নিতে।

হাসপাতালে স্থান সংকুলান সাপেক্ষে নতুন রোগী ভর্তি করে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। যারা ভর্তি হতে পারেনা কিংবা অসময়ে আসেন মানসিক হাসপাতালে তাদের জন্য কোন থাকা খাওয়ার ব্যবস্থা না থাকায় শ্রীশ্রী ঠাকুর অনুকূলচন্দ্র সৎসঙ্গ আশ্রম কর্তৃপক্ষ বিনামূল্যে তাদের থাকা খাওয়ার ব্যবস্থা করে থাকে।

গত ১২ জুন এক যুবতি মানসিক রোগীকে নিয়ে আশ্রমে আশ্রয় নেন এমন একটি রোগী ও তার মা। এক পর্যায় সুযোগ বুঝে ওই যুবতি মানসিক রোগীকে ফেলে রেখে পালিয়ে যাই তার মা।

এর পর থেকে ওই যুবতী মানসিক রোগীকে নিয়ে বিপাকে পরেছে আশ্রম কর্তৃপক্ষ। এ ঘটনারপর আশ্রম কর্তৃপক্ষ পাবনা সদর থানায় একটি সাধারন ডাইরী করেছে।

স্থানিয় বাসিন্দা আনোয়ার হোসেন বলেন, রোগী রেখে চলে যাওয়ার ঘটনা এটাই প্রথম না। আমরা দীর্ঘদিন ধরে দেখে আসছি অনেক অভিভাবক তাদের সন্তানদের কষ্ট করে এই বিশেষায়িত হাসপাতালে নিয়ে আসেন চিকিৎসার জন্য।

দিনের নিদৃষ্ট সময় পর্যন্ত দেয়া হয় বহির্বিভাগ চিকিৎসা সেবা।
হাসপাতালটি এমন একটি জায়গায় অবস্থিত যার আশেপাশে থাকার জন্য নেই কোন সুব্যবস্থা। বাধ্য হয়ে সাধারন মানুষ অশ্রমে আশ্রয় গ্রহণ করেন থাকার জন্য।

দেশের একমাত্র এই বিশেষায়িত এই হাসপাতালে প্রাথমিক আসা রোগীর চিকিৎসার জন্য একটি আবাসন ব্যবস্থা করা দরকার বলে মনে করেন আনোয়ার হোসেন।

তিনি বলেন ধণী মানুষজন তাদের সন্তানদের অর্থদিয়ে ভালো জায়গাতে রাখতে পারে বা তাদের বেশিরভাগ প্রাইভেট চিকিৎসা সেবা গ্রহণ করে চলে যান।

দেশের বেশিরভাগ অসহায় মানুষ এই হাসপাতালের আঙ্গিনায় সরারাত রোগী নিয়ে বসে থাকে চিকিৎসা সেবা নেয়ার জন্য। তাই সরকারের একটি আবাসনের ব্যবস্থা করা দরকার বলেও মনে করেন তিনি।

এ ব্যাপারে শ্রীশ্রী ঠাকুর অনুকূলচন্দ্র সৎসঙ্গ আশ্রমের ভারপ্রাপ্ত সাধারন সম্পাদক তাপস কুমার রায় বলেন, ‘আশ্রমে যারা আশ্রয় নেন রেজিষ্টারের মাধ্যমে তাদের বিস্তারিত তথ্য সংগ্রহ করা হয়।

কিন্তিু এই রোগী আশ্রয় গ্রহনের পর পরই অন্য রোগীর স্বজদের কাছে ওই যুবতী মানসিক রোগীকে কিছু সময়ের জন্য দেখতে বলে কিছু কাগজ আনার কথা বলে পালিয়ে যায়। যে করনে তার তথ্য সংগ্রহ করা সম্ভব হয়নি।ৎ

তিনি বলেন, ‘বিভিন্নভাবে চেষ্টা করেও তার নাম ঠিকানা সংগ্রহ করা সম্ভব হয়নি। সেবাশ্রমে আমরা কাউকে আঘাত করতে পারি না। সেবার জন্যই আমাদের ধর্ম আমাদের আশ্রম। আমাদের সাধ্যমতে আমরা অসহায় মানুষদের সহযোগিতা করে থাকি।

অসহায় পরিবার উপায়অন্ত না পেয়ে হয়তো মেয়েকে রেখে পালিয়েছে। আশা করছি এই পরিবারের সদস্যরা তার সন্তানের জন্য আবার ফিরে আসবেন।

আমরা চাই এই মেয়েটির সুচিকিসৎসার জন্য সরকারী বে-সরকারী সংস্থা সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেবেন।’


টুইটারে আমরা

© All rights reserved 2020 ® newspabna.com

 
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
Wordpress Social Share Plugin powered by Ultimatelysocial