সোমবার, ২৬ অক্টোবর ২০২০, ০৯:২১ পূর্বাহ্ন

আতঙ্কিত হবেন না
করোনা সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন

পাবনায় র‌্যাব সদস্যসহ ৭ ডাকাত গ্রেপ্তার

পাবনায় র‌্যাব সদস্যসহ ৭ ডাকাত গ্রেপ্তার

image_pdfimage_print
পাবনায় র‌্যাব সদস্যসহ ৭ ডাকাত গ্রেপ্তার

পাবনায় র‌্যাব সদস্যসহ ৭ ডাকাত গ্রেপ্তার

শহর প্রতিনিধি: নাটোরের লালপুরে এক ডাকাতির ঘটনায় গতকাল সোমবার (০৫ সেপ্টেম্বর) পাবনায় এক সেনাসদস্যসহ সাতজন গ্রেপ্তার হয়েছেন। গত রোববার এ ডাকাতির ঘটনা ঘটে। এদিকে পাবনার ভাঙ্গুড়ায় সাবেক সেনাসদস্যসহ তিনজনের বাড়িতে রোববার রাতে ডাকাতি হয়েছে।

গ্রেপ্তার হওয়া ব্যক্তিরা হলেন চাঁপাইনবাবগঞ্জের ইসমাইল হোসেন (২৮) ও জি এম বাবু (২৮), পাবনার ঈশ্বরদী উপজেলার মাঝদিয়াড় এলাকার সাকিব হোসেন (২০), সুজন আলী (২০) ও মাহবুব হোসেন (৩০), পাবনা জেলা সদরের সিরাজুল ইসলাম (২৮) এবং নাটোরের লালপুর উপজেলার সাদিপুর গ্রামের মখলেছুর রহমান (৩০)।

পাবনা সদর ও নাটোরের লালপুর থানা সূত্রে জানা যায়, সংঘবদ্ধ একটি ডাকাত দল লালপুর, ঈশ্বরদী, রাজশাহীর বাঘাসহ আশপাশের এলাকায় ডাকাতি করে আসছিল।

রোববার (৪ সেপ্টেম্বর) রাতে দলটির ওই সাত সদস্য লালপুরের তিলকপুর গ্রামে ব্যবসায়ী রফিকুল ইসলামের বাড়িতে র‍্যাব পরিচয়ে ঢুকে ৪৫ হাজার টাকা ও স্বর্ণালংকার লুট করে পালান।

লালপুর থানার মাধ্যমে খবর পেয়ে পাবনা জেলা শহরের অনন্ত বাজার এলাকায় সড়কে তল্লাশি চালানোর সময় গতকাল ভোররাতে পুলিশ একটি মাইক্রোবাস নয় আরোহীসহ আটক করে।

জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায়, তাঁদের মধ্যে সাতজন ডাকাত দলের সদস্য। বাকি দুজন অপহরণের শিকার।

তাঁরা হলেন চট্টগ্রামের বায়েজীদ এলাকার এরফান আলী (৩০) ও এস এম সাহেব শরীফ। তাঁরা ব্যবসার কাজে যশোর থেকে বগুড়া যাচ্ছিলেন। পথে দাশুড়িয়ার মোড় থেকে তাঁদের অপহরণ করে ডাকাত দলটি।

ওই মাইক্রোবাস থেকে ৪৫ হাজার টাকা, স্বর্ণালংকার, একটি বিদেশি পিস্তল ও দুটি খেলনা পিস্তল উদ্ধার করা হয়।

লালপুর থানার ওসি আবু ওবায়েদ বলেন, আটক সাতজনের মধ্যে ইসমাইল হোসেন সৈনিক হিসেবে কর্মরত। সাত মাস আগে তিনি পাবনা র‌্যাব-১২-তে ছিলেন।

ইসমাইল চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলার চুনাখালী গ্রামের হুমায়ন কবীরের ছেলে। তিনি দেড় মাসের ছুটিতে রয়েছেন। ২১ সেপ্টেম্বর তাঁর কর্মস্থলে যোগ দেওয়ার কথা।

ওসি আরও বলেন, পাবনা র‌্যাব-১২-তে থাকাকালে ইসমাইলের সঙ্গে অন্যদের পরিচয় হয়। এদিকে পাবনা সদর থানার ওসি আবদুল্লাহ আল হাসান বলেন, ডাকাতি ও অস্ত্র আইন মামলায় গ্রেপ্তার সাতজনকে গতকালই আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

এদিকে ভাঙ্গুড়া পৌরসভার চৌবাড়িয়া মাস্টারপাড়া মহল্লার বাসিন্দা অবসরপ্রাপ্ত সেনাসদস্য আবু জাফর বলেন, রোববার দিবাগত রাত একটার দিকে ১০ থেকে ১২ জনের একটি ডাকাত দল তাঁর বাড়িতে হানা দেয়। তারা অস্ত্রের মুখে বাড়ির সবাইকে জিম্মি করে এক লাখ টাকা, নতুন জামা-কাপড় ও ১০ ভরি স্বর্ণালংকার নিয়ে যায়।

পরে ডাকাতেরা তাঁর দুই ভাই আফসার আলী ও শাহাদত হোসেনের বাড়িতে হানা দিয়ে টাকা ও স্বর্ণালংকার লুট করে। ভাঙ্গুড়া থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আবদুর রব বলেন, ডাকাতির ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে। পুলিশ ডাকাতদের শনাক্ত করার চেষ্টা করছে।

Best WordPress themes


© All rights reserved 2020 ® newspabna.com

 
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
error: Content is protected !!