বৃহস্পতিবার, ২৬ নভেম্বর ২০২০, ০৬:০৭ অপরাহ্ন

আতঙ্কিত হবেন না
করোনা সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন

পাবনায় লোডশেডিং আর তীব্র তাপদাহে জনজীবন বিপর্যস্ত

image_pdfimage_print

নিজস্ব প্রতিবেদক : দেশজুড়ে চলছে তীব্র তাপদাহ। ফ্যানের বাতাস কিংবা বরফের পানি পান করেও অসহ্য গরম থেকে রেহাই পাচ্ছেনা মানুষ। সেই সঙ্গে পাবনা শহরসহ জেলার বিভিন্ন উপজেলায় শুরু হয়েছে ভয়াবহ লোডশেডিং। এ যেন মরার ওপর খাড়ার ঘা! দিন-রাত মানছে না, গরমের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে চলছে লোডশেডিং।

তীব্র তাপদাহ ও লোডশেডিংয়ের কারণে একদিকে শিক্ষার্থীদের লেখাপড়ায় মারাত্মক ব্যাঘাত ঘটছে। অন্যদিকে অসুস্থ হয়ে পড়ছে শিশু ও বৃদ্ধরা। বিভিন্ন হাসপাতালে রোগীদের সংখ্যাও দিন দিন বাড়ছে।

পাবনা শহরসহ জেলার বিভিন্ন উপজেলায় সর্বনিম্ন ৮ ঘণ্টা থেকে ১০ ঘণ্টা পর্যন্ত লোডশেডিংয়ের খবর পাওয়া গেছে। এতে  শিক্ষার্থীদের লেখাপড়া বিঘ্নিত হচ্ছে।

পাবনা এডওয়ার্ড কলেজ ছাত্র শাকিল আহমেদ জানান, প্রতিদিনই লোডশেডিং হয়। কখনও ১০ মিনিট আবার কখন ৩০ মিনিট বিদ্যুত থাকার পর আবারও লোডশেডিং শুরু হয়। এভাবে বিদ্যুতের ভেল্কিবাজিতে জনজীবন দুর্বিষহ হয়ে উঠেছে। বিঘ্নিত হচ্ছে লেখাপড়াসহ দৈনন্দিন কাজকর্ম।

পাবনা শহরের একজন প্রেস মালিক জানান, ‘প্রতিদিন ভয়াবহ লোডশেডিং হচ্ছে। রাত-দিন মিলে গড়ে ৮/১০ ঘণ্টা বিদ্যুৎ থাকে। এতে কাজ ঠিকমত করতে পারছিনা। এতে যেমন কাজের ক্ষতি হচ্ছে তেমনি ব্যবসায়িক ক্ষতিও হচ্ছে।’

পাবনা বড় বাজারের ব্যবসায়ী পলাশ চন্দ্র রায় জানান, এত ঘনঘন বিদুতের সমস্যা হলে কি চলে? এমনিতে যে গরম আবার তার উপর এত ঘনঘন বিদুতের ভেলকিবাজি। এতে আমাদের অবস্থা নাজেহাল

ভূক্তভোগিরা জানান, কলকারখানা থেকে শুরু করে বিভিন্ন ব্যবসায় প্রতিষ্ঠান ও অফিসে স্থবিরতা বিরাজ করছে। বিদ্যুতের বারবার আসা-যাওয়ার এ খেলায় বিদ্যুৎ সংশ্লিষ্ট ব্যবসা প্রতিষ্ঠানগুলোর কার্যক্রম ব্যহত হচ্ছে।

এ বিষয়ে পাবনা বিদুৎ বিতরণ বিভাগের একজন প্রকৌশলী জানান, ‘অস্বাভাবিক তাপদাহ ও টেকনিক্যাল সমস্যার কারণে লোডশেডিংয়ের মাত্রা কিছুটা বেড়েছে। আশা করছি খুব দ্রুতই সমস্য সমাধান হবে।’

0
1
fb-share-icon1

Best WordPress themes


© All rights reserved 2020 ® newspabna.com

 
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
error: Content is protected !!