সোমবার, ২৫ মে ২০২০, ০৭:২৭ পূর্বাহ্ন

আতঙ্কিত হবেন না
করোনা সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন

পাবনায় সংযোগের আগেই পড়ে গেল তারসহ ১১ টি বৈদ্যুতিক খুঁটি

পাবনা প্রতিনিধি : পাবনার-ঈশ্বরদী মহাসড়কের গাছাপাড়া থেকে বালিয়াহালট স্কুল পর্যন্ত পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির ৩৩ কেভি বিদ্যুৎ সঞ্চালন লাইনের সুউচ্চ বৈদ্যুতিক খুঁটি (১১ টি তার টাঙানোসহ ) সংযোগ দেওয়ার আগেই উপড়ে গেছে।

এতে অল্পের জন্য রক্ষা পেয়েছে বসত বাড়ি, অফিস ও সীমানা প্রাচীর। রোববার সন্ধ্যায় ঝড় ও বৃষ্টির সময় এ গুলো পড়ে যায়।

পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির ঠিকাদারের গাফিলতি আর কাজের মান নিম্নমানের হওয়ায় এমনটি হয়েছে বলে দাবী করেছে পিডিবি’র পাবনাস্থ নির্বাহী প্রকৌশলী আমিনুল ইসলাম।

অন্যদিকে পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির ঠিকাদার রফিক দাবী করেছেন, পিডিবি’র অসহযোগিতার কারণেই এমনটি হয়েছে।

আজ সোমবার দুপুরে সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, তড়িঘড়ি করে পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির ঠিকাদারের শ্রমিকেরা বৈদ্যুতিক ক্ষতিগ্রস্ত লাইন ও বৈদ্যুতিক খুঁটি প্রতিস্থাপনের কাজ করছেন।

গাছপাড়া ব্র্যাক (বিএলসি) অফিস থেকে বালিয়া হালট আমজাদ হোসেন উচ্চ বিদ্যালয় পর্যন্ত ১১ টি লাইন টাঙানোসহ বৈদ্যুতিক খুঁটি বসত বাড়ি, সীমানা প্রাচীর ও পুকুরের মধ্যে উপড়ে পড়ে আছে।

পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির ঠিকাদার রফিক জানান, পাবনা শহরের নুরপুর থেকে টেবুনিয়া বাজার পর্যন্ত প্রায় ২শ’ বৈদ্যুতিক খুঁটি বসানো ও লাইন টাঙানোর কাজ করছেন তিনি।

ইতোমধ্যে সবকটি খুঁটি বসানোর পর রোববার লাইন টাঙানো হয়েছে। আগামি জুনের ৩০ তারিখে ৩৩ কেভি লাইনে বিদ্যুৎ সংযোগ দেওয়ার কথা রয়েছে।

ঠিাকাদার রফিকের দাবী, পিডিবি কর্তৃপক্ষের অসহযোগিতার কারণে বসানো খুঁটির এক সাইডে সব তার টাঙানোর ফলে লোড বেশি হওয়ায় এবং রোববার সন্ধ্যার পর অতিমাত্রায় বৃষ্টি আর ঝড়ো বাতাসে খুঁটিগুলো উপড়ে গেছে।

তিনি অভিযোগ করেন, পিডিবির সংম্লিষ্ট কর্মকর্তারা কাজের শুরু থেকেই অসহযোগিতা করে আসছেন। ফলে তাদের কারণে আমি আর্থিক ভাবে দারুন ক্ষতির সন্মুখিন হলাম।

স্থানীয়রা বলছেন, ঠিকাদারের লোকজন মাটি খুঁড়ে দ্বায়সারা ভাবে খুঁটি বসানোর সাথে সাথে তার টাঙিয়ে দিয়েছে।

বসানোর সময় শ্রমিকেরা স্থানীয়দের বলেছেন, খুঁটি বসিয়ে তার টাঙানো হলেই বাঁকা সোজা সেরে যাবে। খুঁটি পড়ার কোন সম্ভবনা নেই।

খুঁটির গোড়ায় মাটি না থাকায় এবং তারগুলো এক সাইড দিয়ে টাঙানোর কারনেই খুঁটিগুলো দ্রুত পড়ে গেছে বলে জানান স্থানীয়রা।

বালিয়াহালট গোরস্তানের কাছে কর্মরত কয়েকজন শ্রমিকের সাথে আলাপকালে তারা বলেন, ঠিকাদার যেভাবে কাজ করার জন্য বলেছেন, তার বাইরে যাওয়ার এখতিয়ার আমাদের নেই।

বিল যেহেতু ঠিকাদার দেন, সেহেতু ঠিকাদারের বাইরে গিয়ে কাজ করতে পারবো না।

এ ব্যাপারে পিডিবি’র নির্বাহী প্রকৌশলী আমিনুল ইসলাম বলেন, পল্লী বিদ্যুৎ সংশ্লিষ্ট ঠিকাদারের সাথে যোগসাজসে অনিয়মতান্ত্রিক ভাবে রাতের আঁধারে খুঁটি বসানোর কাজ করেছে।

পিডিবির ১১ কেভি লাইনের পাশ দিয়ে পবিসের ৩৩ কেভি লাইন কখনও পাশাপাশি হতে পারেনা। এতে রক্ষণাবেক্ষণ কাজের মারাত্বক ব্যাঘাত ঘটে।

নির্বাহী প্রকৌশলী আমিনুল ইসলাম বলেন, ৫ ফিট দুরবর্তী তার টাঙানোর নিয়ম থাকলেও সেটা তারা লঙ্ঘন করে ১ ফুট করেছিল। যা বিপজ্জনক।

তিনি বলেন, ইতোমধ্যে তাদের ৩৩ কেভি লাইনের কারণে শহর ও আশপাশে বেশ কিছু মিটারসহ ক্ষতিগ্রস্থ বাড়ির মূল্যবান জিনিষপত্রের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে।

সঠিক ও নিরাপদ ভাবে বিদ্যুৎ সঞ্চালনের জন্য উভয় অফিসে একাধিক বার চিঠি আদান প্রদান ও বৈঠকও হয়েছে।

কিন্তু অনিয়মতান্ত্রিক ভাবেই পবিস কর্তৃপক্ষ এই কাজ করেছে। এর দ্বায়ভার পুরোটাই তাদের।

সংশ্লিষ্ট বিষয়ে পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির পাবনাস্থ নির্বাহী প্রকৌশলী হাবিবুর রহমানের সাথে মুঠোফোনে একাধিক বার যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও তিনি ফোন রিসিভ করেননি।

error20
fb-share-icon0
Tweet 10
fb-share-icon20


© All rights reserved 2020 ® newspabna.com

 
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
Wordpress Social Share Plugin powered by Ultimatelysocial
error: Content is protected !!