শুক্রবার, ০৩ ডিসেম্বর ২০২১, ০৭:৫২ পূর্বাহ্ন

পাবনায় ৫’শ শিশুর বিনামূল্যে প্লাস্টিক সার্জারি সম্পন্ন

পাবনায় ৫’শ শিশুর বিনামূল্যে প্লাস্টিক সার্জারি সম্পন্ন

পাবনায় ৫’শ শিশুর বিনামূল্যে প্লাস্টিক সার্জারি সম্পন্ন

পাবনায় ৫’শ শিশুর বিনামূল্যে প্লাস্টিক সার্জারি সম্পন্ন

শহর প্রতিনিধি: পাবনায় বিনা মূল্যে প্লাস্টিক সার্জারির মাধ্যমে পাঁচ শতাধিক শিশু স্বাভাবিক জীবন ফিরে পেয়েছে। এসব দরিদ্র শিশুর অস্ত্রোপচারসহ সব খরচ বহন করেছে পাবনার বেসরকারি প্রতিষ্ঠান মুসলিম এইড কমিউনিটি হাসপাতাল।

ঢাকা থেকে বিশেষজ্ঞ দল এসে গত তিন বছরে ৫০টি ক্যাম্পের মাধ্যমে এসব শিশুর অপারেশন সম্পন্ন করে। এটি মানব সেবায় বিরল দৃষ্টান্ত স্থাপন বলে মনে করেন রোগীদের অভিভাবক ও পাবনার সচেতন মহল।

আট মাস বয়সের ঠোঁট কাটা রোগী সামির হোসেনের বাবা সাদীপুর গ্রামের আবদুল কাদের জানান, জন্মের পর থেকে তিনি তাঁর সন্তান নিয়ে চরম দুশ্চিন্তায় ছিলেন।

চরাঞ্চলের অতীব দরিদ্র হওয়ায় অস্ত্রোপচারের টাকা জোগাড় করা অসম্ভব হয়ে যায়। পরে তিনি জানতে পারেন পাবনার মুসলিম এইড হাসপাতালে বিনা মূল্যে এই অস্ত্রোপচার করা হবে। তখন তিনি হাসপাতালে যোগাযোগ করে তাঁর সন্তানের অস্ত্রোপচার সম্পন্ন করেছেন। এখন তাঁর সন্তানের মুখ স্বাভাবিক।

সাঁথিয়া উপজেলার কাশিনাথপুরের হামিদুল্লাহ জানান, তাঁর ছেলে কিফাত উল্লাহকে (২) নিয়ে বড় সমস্যায় পড়তে হয় তাঁকে। তিনি শুনেছেন এসব অস্ত্রোপচার করতে ৫০ হাজারের মতো টাকা লাগে। এতো টাকা জোগাড় না করতে পেরে তিনি ভেঙে পড়েন। কিন্তু মুসলিম এইডের মাধ্যমে বিনা মূল্যে তাঁর ছেলের অস্ত্রোপচার করতে পেরে তিনি এখন খুশি।

নাটোরের লালপুর থেকে আসা শরিফুল ইসলাম এবার সপ্তম শ্রেণির ছাত্র। তার ঠোট কাটা থাকায় স্পষ্ট করে কথা বলতে পারে না। ক্লাসের বন্ধুরা তার সঙ্গে হাসি তামাশা করত। মানসিকভাবে সে অনেক দুর্বল হয়ে পড়েছিল। লজ্জায় অনেক সময় লোকালয়ে থাকতে ভালোবাসতো। লোক মুখে শুনে সে মুসলিম এইড হাসপাতালে এসে তার নতুন জীবন ফিরে পেয়েছে। এজন্য সে মুসলিম এইডের কাছে কৃতজ্ঞ।

মুসলিম এইড হাসপাতাল পাবনার প্রশাসন ও মানবসম্পদ কর্মকর্তা প্রকৌশলী আইয়ুব আলী খান বলেন, এখন প্রতি মাসেই এই ধরনের ক্যাম্প মুসলিম এইড হাসপাতালে আয়োজন করা হয়। বিনা মূল্যে এই ক্যাম্প থেকে দূর দূরান্তের ঠোঁট ও তালুকাটা রোগীদের উন্নত মানের অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে তাদের স্বাভাবিক ও সুন্দর মুখচ্ছবি সম্পন্ন জীবন অর্জন করতে সক্ষম হয়েছে। আমরা আশা করি মানুষের কল্যাণে এই ক্যাম্পের ধারাবাহিকতা আগামী দিনেও চলমান থাকবে।

ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের প্লাস্টিক সার্জারি বিভাগের প্রধান অধ্যাপক ডা. সাজ্জাদ খোন্দকারের নেতৃত্বাধীন একটি বিশেষ দল এসব অস্ত্রোপচার সম্পন্ন করে।

এই দলের সদস্য ডা. মাজহারুল হক জানান, এসব অস্ত্রোপচারে ৩০ থেকে ৪০ হাজার টাকা খরচ হয়। কিন্তু মুসলিম এইড এসব অস্ত্রোপচার সম্পূর্ণ খরচ বহন করে থাকে। তিনি আরো জানান, জন্মের পর এই ধরনের সন্তান হলে অনেকেই চন্দ্র গ্রহণ, সূর্য গ্রহণকে দায়ী করে থাকেন।

আসলে এসব কুসংস্কার। অনেকেই তার পরিবারের জন্য অভিশাপ মনে করে থাকেন। আর দরিদ্র গোষ্ঠীর মধ্যে সবচেয়ে বেশি এই রোগী পাওয়া যায়। ধনীর সন্তানদের খুবই সামান্য এই রোগ হয়ে থাকে। মূলত পুষ্টির অভাবজনিত কারণে এই ধরনের রোগ হতে পারে। তবে অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসা সম্ভব বলে চিকিৎসকরা জানিয়েছেন।

0
1
fb-share-icon1


© All rights reserved 2021 ® newspabna.com

 
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
x
error: Content is protected !!