মঙ্গলবার, ২৬ জানুয়ারী ২০২১, ০৫:৫৩ অপরাহ্ন

আতঙ্কিত হবেন না
করোনা সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন

পাবনা জেলা শান্তি কমিটির চেয়ারম্যানের নাম মুছে দেওয়া হলো

পাবনা জেলা শান্তি কমিটির চেয়ারম্যানের নাম মুছে দেওয়া হলো

image_pdfimage_print
পাবনা জেলা শান্তি কমিটির চেয়ারম্যানের নাম মুছে দেওয়া হলো

পাবনা জেলা শান্তি কমিটির চেয়ারম্যানের নাম মুছে দেওয়া হলো

স্থানীয় প্রতিনিধি : একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধের সময় পাবনা জেলা শান্তি কমিটির চেয়ারম্যান সাইফুদ্দিন এহিয়ার নামে স্থাপিত শাহজাদপুরের সরকারি কলেজের কলাভবনের নাম মুছে ফেলা হয়েছে। হাইকোর্টের নির্দেশনার পর আজ বুধবার (০৭ ডিসেম্বর) সকালে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা স্বতঃস্ফূর্তভাবে রঙের প্রলেপ দিয়ে মুছে ফেলে নামটি।

শিক্ষার্থীদের সূত্রে জানা গেছে, নব্বই দশকে সরকারি জায়গা দখল করে সাইফুদ্দিনের নামে পৌর সদরে একটি কলেজ প্রতিষ্ঠা করা হয়। পরে কলেজটি সরকারি করা হয়। কলেজের কলাভবনের নাম মওলানা সাইফুদ্দিন এহিয়া করা হয়।

গত মঙ্গলবার বিচারপতি কাজী রেজা-উল হক ও বিচারপতি মোহাম্মদ উল্লাহর সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এ ৬০ দিনের মধ্যে শিক্ষাসচিব ও স্থানীয় সরকারসচিবকে স্বাধীনতাবিরোধীদের নামে করা সব স্থাপনার নাম পরিবর্তন করে প্রতিবেদন দাখিল করার নির্দেশ দেন।

হাইকোর্টের দেওয়া নির্দেশনার পরিপ্রেক্ষিতে আজ বুধবার শাহজাদপুর সরকারি কলেজের একটি ভবনসহ তাঁর নামে করা অন্যান্য প্রতিষ্ঠানের নামও মুছে ফেলে ছাত্রছাত্রীরা।

স্বাধীনতাবিরোধীদের নাম রাস্তাঘাট, সড়ক ও স্থাপনা থেকে মুছে ফেলার দাবিতে মুনতাসীর মামুন ও শাহরিয়ার কবিরের দায়ের করা রিটের এক সম্পূরক আবেদনের শুনানি শেষে আদালত গত মঙ্গলবার এ আদেশ দেন। একই আদেশে খান এ সবুরের নামে খুলনায় যেসব স্থাপনা রয়েছে, সেগুলো মুছে ফেলার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

আদালতে আবেদনকারী মুনতাসীর মামুন ও শাহরিয়ার কবিরের পক্ষে শুনানি করেন ব্যারিস্টার এ কে রাশিদুল হক। আর রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল তাপস কুমার বিশ্বাস।

এ বিষয়ে আইনজীবী এ কে রাশেদুল হক মুঠোফোনে বলেন, ‘২০ জন স্বাধীনতাবিরোধীর নাম-সংবলিত একটি তালিকা যুক্ত করে সম্পূরক এক আবেদন করা হলে আদালত ওই আদেশ দিয়েছেন।’ এর আগে গত বছরের ৩ নভেম্বর খান এ সবুর সড়ক ও কুষ্টিয়া ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের শাহ আজিজুর রহমান মিলনায়তনের নাম পরিবর্তনের আদেশ দিয়েছিলেন হাইকোর্ট। এ নির্দেশ ইতিমধ্যেই বাস্তবায়ন করা হয়েছে।

শাহজাদপুর সরকারি কলেজের উপাধ্যক্ষ ওয়াজেদ আলী বলেন, সব স্থাপনা থেকে মানবতাবিরোধীদের নামে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ও ভবনের নামকরণ পরিবর্তন করার জন্য একটি আদেশের বিষয় পত্রিকায় এসেছে। এর পরিপ্রেক্ষিতে উৎসুক শিক্ষার্থীরা মানবতাবিরোধীর নামের কলাভবনের নাম রং করে মুছে দিয়েছে। তবে এখন পর্যন্ত কোনো পত্র কলেজে আসেনি।

0
1
fb-share-icon1

Best WordPress themes


© All rights reserved 2020 ® newspabna.com

 
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
error: Content is protected !!