সোমবার, ২৫ জানুয়ারী ২০২১, ০৩:৫৮ অপরাহ্ন

আতঙ্কিত হবেন না
করোনা সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন

পাবনা পৌরসভার পাড়ায় পাড়ায় জলাবদ্ধতা

পাবনা পৌরসভার পাড়ায় পাড়ায় জলাবদ্ধতা। ফাইল ছবি।

image_pdfimage_print

বার্তাকক্ষ : পাবনা পৌরসভার কিছু এলাকায় পানিনিষ্কাশনের নালা ভেঙে পড়েছে। কিছু এলাকায় নালাগুলো ময়লা-আবর্জনায় আটকে আছে। নদী ও পুকুর ভরাটের কারণে ঠিকমতো পানি নিষ্কাশন হচ্ছে না। ফলে পৌর এলাকার পাড়ায় পাড়ায় জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হচ্ছে। সামান্য বৃষ্টিতেই চরম ভোগান্তিতে পড়তে হচ্ছে পৌরবাসীকে।

পাবনা পৌরসভা ও পৌর এলাকার প্রবীণ কয়েকজন বাসিন্দার সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, পৌর এলাকার বিভিন্ন মহল্লা মিলে প্রায় ১০০ কিলোমিটার পানিনিষ্কাশনের নালা (ড্রেন) রয়েছে। এসব নালা দিয়ে শহরের পানি ইছামতী নদীতে গিয়ে পড়ত।

অন্যদিকে শহরের বিভিন্ন মহল্লায় কিছু বড় পুকুর ছিল। বৃষ্টি হলে মহল্লার পানি এসব পুকুরে চলে যেত। আগে পাবনা শহরে তেমন জলাবদ্ধতা হতো না। বৃষ্টি নামার কিছুক্ষণের মধ্যেই পানি নেমে যেত।

কিন্তু বর্তমানে পানিনিষ্কাশনের নালাগুলো ময়লা-আবর্জনায় আটকে আছে। দখলের কারণে সরু হয়ে গেছে মধ্য শহরের ইছামতী নদী। ময়লা-আবর্জনা জমে নদীর পানিপ্রবাহ বন্ধ রয়েছে। শহরের অধিকাংশ পুকুর ভরাট করে বাড়ি তৈরি করা হয়েছে। ফলে ঠিকমতো পানি নিষ্কাশন হচ্ছে না। এতে পৌর এলাকার অধিকাংশ পাড়া-মহল্লা দীর্ঘ সময় ধরে জলাবদ্ধতা থাকছে।

গতকাল সোমবার (১২ জুন) সকালে সরেজমিনে দেখা যায়, যানবাহন কমে গেছে শহরে। হেঁটে চলাচল করছে শহরবাসী। বিড়ম্বনা সৃষ্টি করছে জলাবদ্ধতা। মধ্য শহরের পাবনা কলেজ সড়ক, প্রেসক্লাব সড়ক, ঝালাইপট্টি, শান্তিনগর, আতাইকুলা সড়কের বাংলাদেশ ঈদগাহ এলাকা, শিবরামপুর, শালগাড়িয়া, রাধানগর, মক্তবপাড়া, জুগিপাড়া, আটুয়া, ময়নামতি, দক্ষিণ রাঘরপুর ও দিলালপুর মহল্লার কিছু সড়কে পানি আটকে আছে। পানি মাড়িয়ে বহু কষ্টে চলাচল করছে শহরবাসী।

মহল্লার কয়েকজন বাসিন্দা বলেন, শহরে পৌরসভার পর্যাপ্ত পানিনিষ্কাশনের নালা রয়েছে। কিন্তু নালাগুলো পরিষ্কার থাকছে না। ময়লা-আবর্জনায় অধিকাংশ নালা আটকে আছে। শালগাড়িয়া মহল্লার কিছু এলাকায় নালাগুলো দীর্ঘদিন মেরামত না করায় ভেঙে পড়েছে। ফলে পানিনিষ্কাশন ব্যাহত হয়ে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হচ্ছে।

শালগাড়িয়া মহল্লার বাসিন্দা আবদুল হাফিজ বলেন, আগে শালগাড়িয়ায় কিছু বড় পুকুর ছিল। এ ছাড়া মহল্লার পেছনে বিশাল বিল এলাকায় পানি গড়াত। বর্তমানে পুকুরগুলো ভরাট হয়ে গেছে। বিল এলাকাটিও ভরাট হয়ে বাড়ি তৈরি হচ্ছে। অন্যদিকে নালাগুলো দীর্ঘদিন মেরামত না করায় ভেঙে বন্ধ হয়ে গেছে। ফলে পানিনিষ্কাশন ব্যাহত হয়ে দীর্ঘ জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হচ্ছে। বৃষ্টি নামলে কিছু বাড়িতে পানি উঠে যাচ্ছে।

মহল্লার এতিমখানা পাড়ার বাসিন্দা তমা চক্রবর্তী বলেন, ‘বৃষ্টি হলে আমাদের ভোগান্তির শেষ থাকছে না। একদিকে ভাঙাচোরা রাস্তা অন্যদিকে জলাবদ্ধতা। জীবন অতিষ্ঠ হয়ে যাচ্ছে।’

শিবরামপুর মহল্লার মাসুদ কমল বলেন, মহল্লার অধিকাংশ নালা ময়লা-আবর্জনায় আটকে আছে। ফলে মাত্র এক ঘণ্টা বৃষ্টি হলে মহল্লার রাস্তা চার থেকে পাঁচ ঘণ্টা জলাবদ্ধ থাকছে। বৃষ্টি নামলেই মহল্লাবাসীকে হাঁটুপানি মাড়িয়ে চলাচল করতে হচ্ছে। ব্যক্তিগত গাড়ি নিয়ে চরম ভোগান্তিতে পড়তে হচ্ছে মহল্লাবাসীকে।

পৈলানপুর মহল্লার রেহানা সুলতানা বলেন, ‘আগে বৃষ্টি হলে আনন্দ লাগত, এখন জলাবদ্ধতার কারণে ভয় লাগে। তাই আমরা পৌর কর্তৃপক্ষের কাছে জলাবদ্ধতা নিরসনে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানাই।’

এ প্রসঙ্গে পাবনা পৌরসভার মেয়র কামরুল হাসান মিন্টু বলেন, ‘শহরের নিচু এলাকাগুলোতে সামান্য জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হচ্ছে, এটা ঠিক। তবে আমরা এই জলাবদ্ধতা নিরসনে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি। পানিনিষ্কাশনের জন্য নালাগুলো নিয়মিত পরিষ্কার করা হচ্ছে। নতুন নালা তৈরির কাজ চলছে।’

0
1
fb-share-icon1

Best WordPress themes


© All rights reserved 2020 ® newspabna.com

 
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
error: Content is protected !!