শনিবার, ২৪ অক্টোবর ২০২০, ০৯:২৮ পূর্বাহ্ন

আতঙ্কিত হবেন না
করোনা সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন

পাবিপ্রবিতে ছাত্রলীগের দু’গ্রুপের দফায় দফায় সংঘর্ষ

ফাইল- ছবি

image_pdfimage_print

পাবনা প্রতিনিধি : অভ্যন্তরীণ কোন্দল ও আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া, ভাংচুর ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে।

সোমবার (১৭ জুলাই) সকাল থেকে দফায় দফায় ক্যাম্পাসে দুই গ্রুপের ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার এ ঘটনা ঘটে। এ সময় ক্যাম্পাসে বঙ্গবন্ধু হলের দুটি কক্ষ ভাংচুর করে প্রতিপক্ষের কর্মীরা।

 

পাবনা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আব্দুর রাজ্জাক জানান, বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সভাপতি শাহেদ সিদ্দিকী শান্ত ও সম্পাদক ওয়ালী উল্লাহ গ্রুপের সাথে সহ-সভাপতি আরাফাত গ্রুপের মধ্যে ক্যাম্পাসে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছিল।

এরই জের ধরে সোমবার ভোরে আরাফাত গ্রুপের লোকজন শান্ত গ্রুপের এক কর্মীকে মারধোর করে।

পরে সকাল দশটার দিকে উভয় গ্রুপ ক্যাম্পাসে আসলে দুই গ্রুপের মধ্যে উত্তেজনা দেখা দেয়।

এক পর্যায়ে দুই গ্রুপের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও ইট পাটকেল নিক্ষেপ এবং সংঘর্ষ শুরু হয়।

এ সময় ক্যাম্পাসে চরম উত্তেজনা ছড়িয়ে পরে, সাধারণ শিক্ষার্থীরা দিগ্বিদিক ছুটাছুটি করে নিরাপদে আশ্রয় নেয়।

খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। ক্যাম্পাস থমথমে পরিবেশ বিরাজ করায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

পাবিপ্রবি শাখা ছাত্রলীগের সহ সভাপতি আরাফাত হোসেন বলেন, ‘বর্তমান ছাত্রলীগের সভাপতি ও সম্পাদক একচ্ছত্র আধিপত্য বিরাজ করে বিভিন্ন অপকর্ম করেন, তার প্রতিবাদ করলেই তারা আমাদের উপর চড়াও হয়।

আমার রুমে ব্যাপক ভাংচুর ও লুটপাট করেছে। সব সময় ওরা যা করবে সেটাই মেনে নিতে হবে। সভাপতি শান্ত নিজেই কতিপয় শিক্ষার্থীদের দিয়ে ইয়াবাসহ বিভিন্ন মাদক দ্রব্য বিক্রি করায় এবং সে নিজেও সেবন করে। ক্যাম্পাসে মাদক দ্রব্যর বিরুদ্ধে কথা বলার জন্যেই আজকে এই অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে।’

পাবিপ্রবিতে ছাত্রলীগের দু’গ্রুপের সংঘর্ষ

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সভাপতি শাহেদ সিদ্দিকী শান্ত মাদকের কথা অস্বীকার করে বলেন, ‘বিরোধিতা করার জন্যেই তারা আমার বিরুদ্ধে অপপ্রচার করছেন। আমরা সব সময় ক্যাম্পাসে শান্তি শৃঙ্খলার পক্ষে। আজকের এই ঘটনার জন্যে আরাফাত নিজেই দায়ী, কেননা সে বিশ্ববিদ্যালয়ের বাহির থেকে ক্যাডার ভাড়া করে এনে শিক্ষার্থীদের মারপিট করেছে। ক্যাম্পাসে বহিরাগত আসবে কেন। আমরা আরাফাতের এই কর্মকাণ্ডের জন্যে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের নিকট সঠিক বিচার দাবী করি।’

পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ও শিক্ষক সমিতির সভাপতি আওয়াল কবির জয় বলেন, ‘ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের মধ্যে সকাল থেকে কয়েক দফা ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটলেও কোনো ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা যেন না ঘটে সেদিকে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন তৎপর রয়েছে।

আমরা উভয় গ্রুপের সাথে কথা বলে পরিস্থিতি শান্ত করার চেষ্টা করছি। বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবেশ নষ্ট হলে দোষী ছাত্রলীগ নেতাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’

Best WordPress themes


© All rights reserved 2020 ® newspabna.com

 
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
error: Content is protected !!