বুধবার, ২৭ জানুয়ারী ২০২১, ০৩:০৫ পূর্বাহ্ন

আতঙ্কিত হবেন না
করোনা সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন

পাবিপ্রবি উপাচার্যের বিরুদ্ধে ঘুষ নেওয়ার অভিযোগ- অডিও ভাইরাল

image_pdfimage_print

পাবনা প্রতিনিধি : পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (পাবিপ্রবি) উপাচার্য অধ্যাপক রোস্তম আলী আট লাখ টাকা ঘুষ নিয়ে এক প্রার্থীকে ইতিহাস বিভাগের শিক্ষক নিয়োগের প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন বলে অভিযোগ উঠেছে। এ নিয়ে ওই প্রার্থীর সঙ্গে ভিসির কথোপকথনের একটি অডিও ছড়িয়ে পড়েছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে।

অডিওতে শোনা যায়, দু’জনের মধ্যে কথোপকথনের এক পর্যায়ে মনিরুল ইসলাম নামের ওই প্রার্থী নিয়োগের প্রাথমিক তালিকায় তার নাম না থাকার কারণ জানতে চাইলে তাকে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী দিয়ে গ্রেফতারের হুমকি দেন ভিসি।

বৃহস্পতিবার (২৪ অক্টোবর) তাদের দু’জনের এই কথোপকথনের অডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে সর্বত্র সমালোচনার ঝড় ওঠে। তবে ঘুষ গ্রহণের অভিযোগটি ষড়যন্ত্র বলে দাবি করেছেন ভিসি এম রোস্তম আলী।

পাবিপ্রবি সূত্র জানায়, ইতিহাস বিভাগে শিক্ষক নিয়োগের জন্য বৃহস্পতিবার সকালে লিখিত পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। এতে ২৮ প্রার্থী অংশ নেন। পরীক্ষা শেষে শিবু চন্দ্র অধিকারী, শরিফুল ইসলাম, তানভীর আহমেদ, রাজীবুল ইসলাম, সালাহউদ্দিন ও নুরুল হামিদ নামের ছয়জনকে উত্তীর্ণ ঘোষণা করে তালিকা প্রকাশ করা হয়। তারা সবাই রাজশাহী ও চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পাস করা শিক্ষার্থী।

নিয়োগ প্রার্থী ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র মনিরুল ইসলাম অভিযোগ করেন, ‘পাবিপ্রবির ইতিহাস বিভাগে শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষায় বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ হলে সব শর্ত মেনে তিনি আবেদন করেন। গত জুনে কর্তৃপক্ষ নিয়োগ পরীক্ষা স্থগিত করলে পরিচিত এক বড় ভাইয়ের মাধ্যমে উপাচার্যের সঙ্গে যোগাযোগ হয় তার।

সে সময় দুই দফা সাক্ষাতের পর উপাচার্য শিক্ষক হিসেবে তাকে নিয়োগ দিতে ১২ লাখ টাকা ঘুষ দাবি করেন। নিয়োগ পরীক্ষার আগেই জমি বিক্রি করে তিনি ঢাকার ফার্মগেটে পাবিপ্রবির রেস্ট হাউসে গিয়ে উপাচার্যকে দুই দফায় প্রথমে পাঁচ ও পরে তিন লাখ টাকা দেন। নিয়োগ পরীক্ষায় অংশ নেওয়ার আগের দিনও মোবাইল ফোনে নিয়োগের আশ্বাস দিয়ে পরীক্ষায় অংশ নিতে বলেন ভিসি।’

মনিরুল অভিযোগ করেন, ‘নিয়োগ পরীক্ষায় অংশ নিয়েই পূর্বনির্ধারিত কয়েকজন প্রার্থীর পরীক্ষায় বিশেষ সুবিধা প্রাপ্তি ও গতিবিধি দেখে সন্দেহ হয়। পরে ফলাফল তালিকাতেও তাদের নাম প্রকাশ করা হয়। এ সময় ভিসি স্যারকে ফোন দিয়ে আমাকে নিয়োগ না দেওয়ায় তার কাছ থেকে টাকা ফেরত চাইলে তিনি আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে দিয়ে আমাকে গ্রেপ্তার করে শায়েস্তা করার হুমকি দেন।’

নিয়োগ পরীক্ষায় অংশ নেওয়া নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রভাষক আইরিন আক্তার অভিযোগ করেন, ‘আমরা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পাস করা ১০ জন প্রার্থী পরীক্ষায় অংশ নিলেও কেউই উত্তীর্ণ হতে পারিনি। যারা উত্তীর্ণ হয়েছেন তারা প্রত্যেকেই রাজশাহী ও চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের।

নিয়োগ বোর্ডে থাকা শিক্ষকরা সবাই এ দুটি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক। এমনকি লিখিত পরীক্ষায় উত্তীর্ণ শরিফুল ইসলাম পাবিপ্রবির উপ-উপাচার্য আনোয়ারুল ইসলামের আপন ভাগনি জামাই। তিনি নীতিমালা ও নৈতিকতার তোয়াক্কা না করে নিয়োগ বোর্ডে থেকে তাকে পাস করান।’

এ বিষয়ে নিয়োগ বোর্ডের সদস্য এবং কলা ও সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডিন ড. হাবিবুল্লাহ বলেন, নিয়োগ বোর্ড নীতিমালা মেনেই সব প্রক্রিয়া সম্পন্ন করেছে। লিখিত পরীক্ষায় ফলাফলে ছয়জনকে উত্তীর্ণ ঘোষণা করা হলেও মৌখিক পরীক্ষায় বোর্ড সন্তুষ্ট না হওয়ায় কাউকেই চূড়ান্ত উত্তীর্ণ দেখায়নি।

অভিযোগের বিষয়ে জানতে উপ-উপাচার্য আনোয়ারুল ইসলামের মোবাইল ফোনে একাধিকবার কল করলেও তিনি ফোন ধরেননি।

তবে সব অভিযোগ মিথ্যা ও উদ্দেশ্যপ্রণোদিত দাবি করে পাবিপ্রবি উপাচার্য রোস্তম আলী বলেন, অনুত্তীর্ণ কিছু প্রার্থী নিয়োগ প্রক্রিয়াকে বিতর্কিত করার চেষ্টা করছে।

মনিরুলের সঙ্গে নিয়োগ পরীক্ষার আগে একাধিকবার মোবাইল ফোনে কথোপকথন এবং সাক্ষাতের কথা স্বীকার করলেও আর্থিক লেনদেনের বিষয়টি অস্বীকার করেন তিনি।

উপাচার্য বলেন, ‘মনিরুল আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের সুপারিশ জানাতে আমার সঙ্গে দেখা করেছিল।’

অডিও শুনতে এখানে ক্লিক করুন।

0
1
fb-share-icon1

Best WordPress themes


© All rights reserved 2020 ® newspabna.com

 
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
error: Content is protected !!