সোমবার, ২৫ মে ২০২০, ১০:৫৯ পূর্বাহ্ন

আতঙ্কিত হবেন না
করোনা সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন

ফেসবুকে ক্রাশ এন্ড কনফেশন: ব্যক্তিগত আক্রমণের এক অভিনব কায়দা!

সম্প্রতি রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ছাত্রীকে নিয়ে ফেসবুক পেজে হয়রানিমূলক পোস্ট দেওয়ারকে কেন্দ্র করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে চলছে ব্যাপক সমালোচনা। শুক্রবার দুপুরে নগরীর মতিহার থানায় ওই ছাত্রী নিজে সাধারণ ডায়েরি করেন। অভিযোগে তিনি এ বিষয়ে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের অনুরোধ জানিয়েছেন। জানা যায়, বুধবার (০৩ এপ্রিল) মধ্যরাতে ‘Ru Crush & Hate Confession’ পেজ থেকে ওই ছাত্রীর ছবিসহ পোস্ট আপডেট করা হয়। যেখানে ওই ছাত্রী সম্পর্কে অশ্লীল, অশ্রাব্য, কুরুচিপূর্ণ এবং যৌন হয়রানিমূলক তথ্য প্রকাশ করা হয়। মূহুর্তেই পোস্টটি বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্তত সাড়ে পাঁচ হজার শিক্ষার্থী ভিউ করেন। কমেন্টের স্থলেও শুরু হয় ‘বিদ্বেষমূলক’ মন্তব্য।

কেউ কেউ স্ক্রিন শর্ট নিয়ে তাতে আরও ‘বিদ্বেষমূলক’ মন্তব্য জুড়ে দিয়ে শেয়ার করতে থাকেন ফেসবুকে। রাতভর সামাজিক মাধ্যমে ওই ছাত্রীকে নিয়ে চলে নেতিবাচক আলোচনা, সমালোচনা ও ‘হয়রানিমূলক মন্তব্য’। বৃহস্পতিবার (০৪ এপ্রিল) সকালে বিভিন্ন জনের আপত্তির মুখে দুপুরে পোস্টটি সরিয়ে ফেলেন পেজের অ্যাডমিন।

বাংলার আলোর অনুসন্ধানে জানা গেছে, ইংরেজি অদ্য অক্ষরে ‘ক্রাশ অ্যান্ড কনফেশন’, ‘ক্রাশ এ্যান্ড হেটস কনফেশনস’ ইত্যাদি নামে শতাধিক পেজ রয়েছে ফেসবুকে। বিভিন্ন স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়ের নাম জুড়ে এসব পেজ খোলা হলেও বিশ্ববিদ্যালয়ের বাইরের অনেক ব্যক্তিও সামাজিক মাধ্যমে এই পেজে যুক্ত। পেজগুলোতে বিশ্ববিদ্যালয়ের যেকেনো ছাত্র-ছাত্রীর ছবিসহ তার সম্পর্কে তথ্য বা তাকে ভালো লাগার কারণ বা প্রেম করতে চাওয়ার অভিপ্রায় প্রকাশ করা হয়। যে কেউ ফেক আইডি ব্যবহার করে ছবিসহ তথ্য সরবরাহ করলেই মূহুর্তেই তা প্রকাশ করা হয়।

তবে কে এই তথ্য দিলো তার কোনো পরিচয় সেখানে উল্লেখ করা হয় না। এমনকি পোস্ট দেওয়ার পর ভুক্তভোগী (যার নামে পোস্ট করা হয়) যদি পেজের অ্যাডমিনদের কাছে ম্যাসেজ করে তথ্য চান, তবুও তাকে কোনো তথ্যই দেওয়া হয় না। অনেক ছাত্রী এ ব্যাপারে আপত্তি তুললেও বেশিরভাগই লোক-লজ্জার ভয়ে এড়িয়ে যান। ফলে ক্রমেই বাড়ছে এ অপরাধ প্রবণতা।

তবে এই ধরণের আক্রমণের শিকার হলে নিয়মগুলো জানা থাকলে আপনি সহজেই নিতে পারবেন পুলিশি সহায়তা। চলুন জানা যাক এই বিষয়ে বিস্তারিত।

কোথায় অভিযোগ করবেনঃ
০১। প্রাথমিকভাবে অভিযোগ করতে পারেন আপনার নিকটস্থ থানায়। অথবা,
০২। ই-মেইলে অভিযোগ জানাতে পারেন [email protected] এই ঠিকানায়। অথবা
০৩। যদি পরিচয় গোপন রেখে অভিযোগ করতে চান তাহলে Google Play Store থেকে ডাউনলোড করুন ডিএমপি’র কাউন্টার টেরোরিজম ডিভিশন এর Hello CT অ্যাপ। এ অ্যাপ ব্যবহার করে পাঠাতে পারবেন আপনার ব্যক্তিগত তথ্য। অথবা,
০৪। সরাসরি কথা বলার প্রয়োজনবোধ করলে চলে আসতে পারেন ডিএমপি’র কাউন্টার টেরোরিজম ডিভিশনের Cyber Crime Unit অফিসে। কথা বলতে পারেন দায়িত্বরত কর্মকর্তার সাথে এই নাম্বারে-০১৭৬৯৬৯১৫২২ । ঠিকানাঃ ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ হেডকোয়ার্টার্স, ৩৬ শহীদ ক্যাপ্টেন মনসুর আলী স্মরণী, রমনা, ঢাকা।

কিভাবে অভিযোগ করবেনঃ

ভিক্টিমাইজড হলে যত দ্রুত সম্ভব অভিযোগ জানানো উচিত। অভিযোগ করার ক্ষেত্রে আপনার অভিযোগের স্বপক্ষে কিছু প্রমাণাদি প্রয়োজন। যেমন এক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট আলামতের স্ক্রীনশট, লিংক, অডিও/ভিডিও ফাইল অথবা রিলেটেড ডকুমেন্টস। স্ক্রীনশট সংগ্রহের ক্ষেত্রে খেয়াল রাখতে হবে যেন Address Bar এর URL টি দৃশ্যমান হয়। Hello CT অ্যাপ ও ই-মেইল এর মাধ্যমে অভিযোগ জানাতে চাইলে এসব কন্টেন্ট এটাচ করে আপলোড করতে পারেন। অন্যান্য ক্ষেত্রে সরাসরি সফট কপি দেয়া যেতে পারে। সর্বোপরি আপনি প্রয়োজনে Cyber Crime Unit এর অফিসারদের নিকট থেকে প্রয়োজনীয় পরামর্শ গ্রহণ করতে পারেন যা আপনার আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের সহায়ক হতে পারে।

error20
fb-share-icon0
Tweet 10
fb-share-icon20


© All rights reserved 2020 ® newspabna.com

 
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
Wordpress Social Share Plugin powered by Ultimatelysocial
error: Content is protected !!