মঙ্গলবার, ২৪ নভেম্বর ২০২০, ০৬:১২ অপরাহ্ন

আতঙ্কিত হবেন না
করোনা সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন

বগুড়ায় বিএনপির মেয়র প্রার্থী নির্বাচন নিয়ে নেতাকর্মীদের মধ্যে অসন্তোষ

image_pdfimage_print

বগুড়া পৌর নির্বাচনে মেয়র পদে হঠাৎ করে বিএনপি প্রার্থী চূড়ান্ত করা হয়েছে। সোমবার (৫ অক্টোবর) দিনভর আলোচনা ও গোপন ব্যালটে ভোটগ্রহণ শেষে রাতে সদর আসনের সংসদ সদস্য ও জেলা বিএনপির আহবায়ক গোলাম মোহাম্মদ সিরাজ সাবেক সভাপতি রেজাউল করিম বাদশাকে প্রার্থী ঘোষণা করেন। এতে বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনের অনেক ত্যাগী নেতাকর্মী ক্ষোভ ও হতাশা প্রকাশ করেছেন। তারা বলছেন, কাউকে না জানিয়ে এক তরফা ভোট করা হয়েছে। তাই তারা এ নির্বাচন প্রত্যাখ্যান করেছেন। নেতাকর্মীরা এ বিষয়ে দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারপারসন তারেক রহমানের হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

নেতাকর্মীরা জানান, গত সোমবার শহরের নবাববাড়ি সড়কে দলীয় কার্যালয়ে বিএনপির পৌর ও ওয়ার্ড কমিটির নেতৃবৃন্দ নিয়ে আসন্ন বগুড়া পৌরসভার মেয়র পদে প্রার্থী নিয়ে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। সেখানে ২১ ওয়ার্ডের মধ্যে ১৮ ওয়ার্ডের পাঁচ জন করে নেতা ও শহর কমিটির নেতাদের ডাকা হয়েছিলো। রাতে গোপন ব্যালটের মাধ্যমে জেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি রেজাউল করিম বাদশাকে মেয়র পদে দলীয় প্রার্থী ঘোষণা করা হয়।

এসময় আবারও মনোনয়ন প্রত্যাশী বর্তমান মেয়র, খালেদা জিয়ার উপদেষ্টা অ্যাডভোকেট একেএম মাহবুবর রহমান ছাড়াও অনেকে অনুপস্থিত ছিলেন। নেতাকর্মীরা আরও জানান, পৌর ও ওয়ার্ড বিএনপির মতবিনিময় সভা ডাকা হলেও পৌর নির্বাচনে প্রার্থিতার বিষয়ে কেউ আগে থেকে জানতে পারেননি। বর্তমান মেয়রসহ মনোনয়ন প্রত্যাশীদের অবহিত করা হয়নি। হঠাৎ করে প্রার্থী বাছাইয়ের আয়োজন করায় মনোনয়ন প্রত্যাশীরা হতাশ হয়েছেন।

জেলা বিএনপির সাবেক যুগ্ম সম্পাদক ও সাবেক ছাত্র নেতা এমআর ইসলাম স্বাধীনসহ কয়েকজন প্রার্থী নির্বাচন নিয়ে বিরোধিতা করেন। স্বাধীন সাংবাদিকদের বলেন, মতবিনিময় সভা ডেকে তড়িঘড়ি করে মেয়রপ্রার্থী ঘোষণা করা হয়েছে। তিনি এ ঘোষণাকে প্রহসন বলে দাবি করেন।

এ বিষয়ে বর্তমান মেয়র অ্যাডভোকেট একেএম মাহবুবর রহমান কোনও মন্তব্য করতে রাজি হননি।

জেলা বিএনপির আহবায়ক গোলাম মোহাম্মদ সিরাজ সাংবাদিকদের বলেন, মেয়র পদে দলীয় প্রার্থী হতে চেয়েছেন, বর্তমান মেয়র অ্যাডভোকেট একেএম মাহবুবর রহমান, রেজাউল করিম বাদশা, এমআর ইসলাম স্বাধীন, জেলা বিএনপির আহবায়ক কমিটির সদস্য খায়রুল বাশার, সিনিয়র যুগ্ম আহবায়ক অ্যাডভোকেট একেএম সাইফুল ইসলাম এবং জেলা মহিলা দলের সভানেত্রী লাভলী রহমান। গোপন ভোটে বাদশা প্রথম, স্বাধীন দ্বিতীয়, মাহবুবর তৃতীয়, বাশার চতুর্থ, সাইফুল পঞ্চম ও লাভলী ষষ্ঠ হন। তাই রেজাউল করিম বাদশাকে মেয়রপ্রার্থী করা হয়। এরপরও দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারপারসন তারেক রহমান প্রার্থী চূড়ান্ত করবেন।

0
1
fb-share-icon1

Best WordPress themes


© All rights reserved 2020 ® newspabna.com

 
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
error: Content is protected !!