বঙ্গমাতা বঙ্গবন্ধুর নেপথ্যের রাজনৈতিক সহযোদ্ধা- পাবনায় আলোচনাসভায় বক্তারা

বার্তা সংস্থা পিপ, পাবনা : পাবনা জেলা প্রশাসন ও মহিলা বিষয়ক অধিদফতর কর্তৃক আয়োজিত আলোচনাসভায় বক্তারা বলেছেন, বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন নেছা মুজিব শুধু বন্ধুবন্ধুর সহধর্মিনীই ছিলেন না, ছিলেন বঙ্গবন্ধুর নেপথ্যের রাজনৈতিক সহযোদ্ধা।

বক্তারা বলেন, স্বাধীনতার মহানায়ক জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সহধর্মিণী মহীয়সী নারী বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব কেবল একজন সাবেক রাষ্ট্রনায়কের সহধর্মিণীই নন, তিনি ছিলেন বাঙালির মুক্তি সংগ্রামের অন্যতম এক স্মরণীয় অনুপ্রেরণা নেপথ্যে করিগর।

জীবনে অনেক ঝুঁকিপূর্ণ কাজ করেছেন, এজন্য অনেক কষ্ট-দুর্ভোগ পোহাতে হয়েছে তাকে। বঙ্গবন্ধুর রাজনৈতিক জীবনের প্রতিটি বাঁকে, সঙ্কটে পরামর্শ দিয়ে পাশে থেকেছেন।

আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীদের যে কোন বিপদে-আপদে ত্রাতার মতো পাশে থেকেছেন সবসময়।

শনিবার (০৮ আগস্ট) বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন নেছা মুজিবের ৯০ তম জন্মদিবস উপলক্ষে পাবনা জেলা প্রশাসন ও মহিলা বিষয়ক অধিদফতর কর্তৃক আয়োজিত এক আলোচনাসভায় বক্তারা এ সব কথা বলেন।

“বঙ্গমাতা ত্যাগ ও সুন্দরের সাহসী প্রতীক” এই প্রতিপাদ্য বিষয় নিয়ে সকাল ১১ টায় জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে আলোচনা সভা ও সেলাই মেশিন বিতরণ করা হয়।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন পাবনার জেলা প্রশাসক কবীর মাহমুদ।

জেলা মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তর পাবনার উপ পরিচালক কানিজ আইরিন জাহানের সভাপতিত্বে এবং সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, পাবনা প্রেসক্লাব সভাপতি এবিএম ফজলুর রহমান, পাবনা সংবাদপত্র পরিষদের সভাপতি আব্দুল মতীন খান, জাতীয় মহিলা সংস্থার চেয়ারম্যান শামিমা শিরিন।

পাবনা চেম্বার অব কর্মাসের সভাপতি মো. সাইফুল ইসলাম স্বপন চৌধুরী, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক শাহেদ পারভেজ, স্থানীয় সরকারের উপপরিচালক আফরোজা আকতার, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট (এডিএম) জাহিদ নেওয়াজসহ জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটবৃন্দ ও মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের সকল কর্মকর্তা ও কর্মচারীবৃন্দ এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানে ৫৪ জন প্রশিক্ষণ প্রাপ্ত নারীদের মাঝে ৫৪ টি সেলাই মেশিন ও ২০ জনকে ২ হাজার করে ৪০ হাজার টাকা প্রধানমন্ত্রীর উপহার হিসেবে প্রদান করা হয়।