বুধবার, ২৭ মে ২০২০, ১২:৩৫ অপরাহ্ন

আতঙ্কিত হবেন না
করোনা সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন

বসন্ত ছুঁয়েছে আমাকে…

বছর ঘুরে আবারও এসেছে বসন্ত। আজ পহেলা ফাল্কগ্দুন। ফুলে ফুলে সেজেছে প্রকৃতি। রঙিন চারপাশ। বসন্ত বরণে অন্যদের

মতো তারকালোকেও রয়েছে নানা প্রস্তুতি। সেসব কথাই তুলে ধরেছেন এ সময়ের পাঁচ তারকা।

পূর্ণিমা

‘বসন্ত মানে চারদিক রঙিন। যত দূর চোখ যায়, ততই ভালো লাগে’ বললেন অভিনেত্রী পূর্ণিমা। তার কথায়, ঋতুরাজের এই অপরূপ সৌন্দর্য চোখে আনে তার অন্য রকম মুগ্ধতা। ছোটবেলা থেকে তাই বসন্তের রঙে নিজেকে রাঙিয়ে রাখতে ভালোবাসেন তিনি। এবারও তার ব্যতিক্রম হবে না। আজ নাগরিক কোলাহল ছেড়ে কোথাও বেড়িয়ে আসার পরিকল্পনা আছে তার। পূর্ণিমা বলেন, ‘অভিনয়ে ব্যস্ত হওয়ার পর এই বিশেষ দিনটি কমই উপভোগ করতে পেরেছি। তবে বসন্ত বলে কথা। বসন্তের মাতাল হাওয়ায় নিজেকে একটু সঁপে না দিলে কি হয়! বিকেলে নাগরিক কোলাহলের বাইরে প্রকৃতির কাছাকাছি গিয়ে বসন্ত দিনের সঙ্গে একাত্ম হবো।’

নুসরাত ইমরোজ তিশা

তিশার কাছে পহেলা ফাল্কগ্দুন মানেই বিশেষ একটি দিন। তাই সময় পেলেই বসন্তের সাজে নিজেকে সাজিয়ে নিতে ভুল করেন না। আজ শুটিংয়ের ব্যস্ততায় বসন্ত উদযাপনও করবেন। আর কিছু না হোক, পাখির মতো দু’হাত প্রসারিত করে গায়ে মাখবেন বসন্তের বাতাস। তার কথায়, ফাল্কগ্দুনের প্রথম দিন এলেই স্মৃতির সাগরে হারিয়ে যাই। মনে পড়ে, কতই না রঙিন ছিল শৈশবের দিনগুলো। দল বেঁধে বন্ধুদের সঙ্গে ঘুরে বেড়াতাম। বসন্তে শাড়ি পরে ঘুরতে ভালো লাগে। প্রকৃতিও সাজে নতুন রঙে। গাছে গাছে নানা রঙের ফুল। বসন্ত মানে এই নয় যে, হলুদ ড্রেস পরতেই হবে। মন রঙিন থাকলে রঙ কোনো ব্যাপার নয়, তখন সব রঙই রঙিন মনে হয়।

মাহিয়া মাহি

ফাগুনের মাতাল হাওয়া বইছে চারপাশে, কিন্তু সে হাওয়া গায়ে মাখার সুযোগ নেই মাহির। কেননা তিনি এখন ব্যস্ত ‘আনন্দ অশ্রু’ ছবির শুটিং নিয়ে। তাই বলে পহেলা ফাল্কগ্দুন কাজের মধ্যে দিয়েই পালিয়ে যাবে- এটাও মানতে নারাজ মাহি। তার কথায়, ‘বসন্ত এলেই মনে হয় হারিয়ে যাই অন্য জগতে। মানিকগঞ্জের যে জায়গায় আমরা শুটিং করছি, সে জায়গাটা বেশ সুন্দর। চারদিকে এখন বসন্তের হাওয়া বইছে। আজ বসন্তের প্রথম দিন নিজেকে নিয়ে যেতে চাই প্রকৃতির সান্নিধ্যে। যদিও শুটিংয়ের ব্যস্ততা রয়েছে। তার পরও ফুরসত পেলেই মন খুলে বসন্ত হাওয়ায় দম নেব। পাতা ঝরা দিনের শেষে প্রকৃতি কীভাবে নিজেকে সাজায়- এখন সেটা দেখার প্রতীক্ষায় আছি।’

পরীমণি

পরীমণির কাছে প্রতি বসন্তই ধরা দেয় একেকভাবে। এবার তিনি শারীরিক অসুস্থতায় ভুগছেন। গত কয়েক দিন শুটিংও করতে পারছেন না। বিশ্রামে থাকতে হচ্ছে তাকে। বসন্ত দ্বারে, ঘরে কি বসে থাকা যায়। বসন্তের প্রথম দিনে শারীরিক অসুস্থতাকে ছুটি দিয়ে নিজের মতো করে কাটতে চান সময়টা। এমনটিই জানালেন তিনি। পরীমণি বলেন, ‘বসন্ত দিনে সবকিছুই আমার কাছে নতুন লাগে। চারদিকে সাজসাজ রব। ছোটবেলায় নানুবাড়ির বসন্ত দিনগুলোর কথা খুব মনে পড়ে। পিরোজপুরে শৈশবের সেই হারিয়ে যাওয়া দিনগুলো যেন ফিরে পেতে মন চায়। সত্যিই যদি ফিরে পাওয়া যেত, তাহলে নিজেকে প্রকৃতির রঙে রাঙিয়ে মনের না বলা কথাগুলো বলতাম।’

মেহজাবিন

আজ বসন্তের প্রথম দিন। আর কাল ভালোবাসা দিবস। বসন্তের এই দিনে ভালোবাসা দিবসের নাটকের শুটিং নিয়ে ব্যস্ত সময় কাটে মেহজাবিনের। এবার ভালোবাসা দিবসের বেশ কয়েকটি নাটকে দেখা যাবে তাকে। শত ব্যস্ততার ভিড়েও বসন্ত তার হৃদয়ের দুয়ারে নাড়া দেয় নানাভাবে। মেহজাবিন কথায়, ‘বসন্ত এলেই শৈশবের সেই ফেলে আসা দিনগুলোর কথা মনে পড়ে। নানা ব্যস্ততায় দিনগুলো এখন হারিয়ে যেতে বসেছে জীবন থেকে। ছোটবেলায় বান্ধবীদের সঙ্গে হলুদ রঙের শাড়ি পরে ঘুরে সময় পার করেছি। চারদিকের রঙিন প্রকৃতি। প্রকৃতির সঙ্গে মিতালি হতো। মাঝেমধ্যে সেই হারিয়ে যাওয়া দিনগুলো ফিরে পেতে ইচ্ছা করে।’

error20
fb-share-icon0
Tweet 10
fb-share-icon20


© All rights reserved 2020 ® newspabna.com

 
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
Wordpress Social Share Plugin powered by Ultimatelysocial
error: Content is protected !!