শনিবার, ৩০ মে ২০২০, ০৭:২৩ পূর্বাহ্ন

আতঙ্কিত হবেন না
করোনা সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন

বিএনপিকে আওয়ামী লীগ থেকে শিক্ষা নিতে হবে বলে ফেঁসে গেলেন বিএনপির বুদ্ধিজীবীরা

বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দলের (বিএনপি) ভঙ্গুর অবস্থা বিবেচনায় ৭৫ পরবর্তী আওয়ামী লীগের রাজনীতি দেখে বিএনপিকে সে বিষয়ে শিক্ষা নিতে হবে বলে মন্তব্য করে ফেঁসে গেলেন বিএনপিপন্থী বুদ্ধিজীবীরা।

বিএনপির কারান্তরীণ চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার কারাগারে এক বছর পূর্তি উপলক্ষে বিএনপিপন্থী বুদ্ধিজীবী ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. মাহবুব উল্লাহ, জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের আহ্বায়ক ড. জাফরুল্লাহ চৌধুরী, ড. এমাজউদ্দীন আহমেদ এমন পরামর্শ দেন।

রাজনৈতিক অঙ্গনে পুরনো একটি দল বিএনপিকে আওয়ামী লীগের কাছ থেকে শিক্ষা নিতে হবে- এমন পরামর্শ জ্ঞানগর্ভ হলেও তা মেনে নিতে পারেননি দলের সিনিয়র ও মাঠপর্যায়ের নেতারা। তারা বলছেন, সরাসরি আওয়ামী লীগের নাম উল্লেখ না করে বিগত রাজনৈতিক প্রেক্ষাপট থেকে শিক্ষা নিতে হবে বললে বিষয়টি স্বাভাবিক হতো। কেননা, আওয়ামী লীগের সঙ্গে বিএনপির যে বিরোধ সম্পর্ক সেখানে এই বক্তব্য আওয়ামী লীগকে উস্কে দেয়ার নামান্তর।

এ প্রসঙ্গে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেন, বিএনপির পুনর্জাগরণের চেষ্টা ও পরিকল্পনা সকল নেতার মধ্যেই রয়েছে। কিন্তু বিরোধী দলের উদাহরণ টেনে তা থেকে শিক্ষা নেয়ার পরামর্শ দেয়া দলীয় শৃঙ্খলা বহির্ভূত। আমরা বিষয়টি সহজভাবে মানতে পারেনি। দলের কোনো নেতা তা মানবেও না।

বিএনপিপন্থী অন্যতম বুদ্ধিজীবী ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. মাহবুব উল্লাহ মনে করেন, বিএনপির বর্তমান যে রাজনৈতিক সংকট এবং সিদ্ধান্তহীনতা, সেই জায়গা থেকে বিএনপিকে বেরিয়ে আসতে হবে সাংগঠনিক শক্তির বলেই এবং নিজস্ব আদর্শ ও নীতির মাধ্যমেই। বিএনপি যদি তার আদর্শের সঙ্গে সমঝোতা করে বা আপস করে তাহলে সংকট আরো ঘনীভূত হবে। এ প্রসঙ্গে উদাহরণ দিয়ে তিনি বলেন, ৭৫ এর ১৫ আগস্টের পর আওয়ামী লীগ এরকম অস্তিত্ব সংকটে পড়েছিল। তারা যেভাবে সংকট থেকে উত্তরণ ঘটিয়েছিল সেটিকে অনুকরণ করাই উৎকৃষ্ট কাজ হবে।

বিএনপিপন্থী বুদ্ধিজীবী এবং জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের আহ্বায়ক ড. জাফরুল্লাহ চৌধুরী মনে করেন, একটা রাজনৈতিক দলে যখন সংকট তৈরি হয়, তখন সে সংকট থেকে উত্তরণের জন্য একটা নতুন নেতৃত্বের বিকাশ ঘটাতে হয়। নেতৃত্বের নির্দেশনায় দলকে পুনর্গঠিত করতে হয়। কিন্তু দুর্ভাগ্যজনক হলেও বিএনপিতে সেরকম নেতৃত্ব নেই। আওয়ামী লীগের উত্থান ও অবস্থানের দিকে লক্ষ্য করে বিএনপি যদি তা থেকে শিক্ষা নিতে পারে তা হবে সংকট থেকে উত্তরণের প্রধান পথ।

বিএনপির সাংগঠনিক নেতৃত্বের কথা উল্লেখ করে ড. এমাজউদ্দীন আহমদ বলেন, বিএনপির রাজনীতি সস্তা তথা বস্তাপচা রাজনীতিতে পরিণত হচ্ছে। সেখান থেকে যদি বিএনপি উত্তরণ না করতে পারে তাহলে বিএনপির এই সংকট মোকাবিলা করা যাবে না। বিভিন্ন রাজনৈতিক দলে এমন সংকট আসে। ৭৫ এর ১৫ আগস্টের পর আওয়ামী লীগ এমন সংকটে পড়েছিল। সেই সংকট থেকে আওয়ামী লীগের যে উত্তরণ তা থেকেই বিএনপিকে শিক্ষা নিতে হবে। এই শিক্ষা নিতে সবচেয়ে আগে যা দরকার তা হলো দলের আদর্শ এবং নীতিকে সামনে রাখা।

error20
fb-share-icon0
Tweet 10
fb-share-icon20


© All rights reserved 2020 ® newspabna.com

 
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
Wordpress Social Share Plugin powered by Ultimatelysocial
error: Content is protected !!