বেড়ায় আকস্মিক নদীর পানি বৃদ্ধি : তলিয়ে গেছে ফসল

BERA-SAM_8489বেড়া সংবাদদাতা : বেড়ায় বড়াল, হুরাসাগর ও যমুনা নদীতে আকস্মিক পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় নদীর তীরবর্তী ও নিম্মাঞ্চল ডুবে গেছে। ফলে হাজার হাজার বিঘা জমির ইরি বোরো ধানসহ বিভিন্ন ফসল পানির নিচে তলিয়ে গেছে।

পানি উন্নয়ন বিভাগ সুত্রে জানা গেছে, গত এক সপ্তাহে যমুনা নদীতে আকস্মিকভাবে পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় এই পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে।

গত এক সপ্তাহে নদীতে প্রায় ৪ থেকে ৫ ফুট পানি বৃদ্ধি পেয়েছে। এতে করে নদী তীরবর্তী অঞ্চল বেড়া উপজেলার পায়না, সম্ভুপুর, বৃশালিখা, মোহনগঞ্জ, হরিরামপুর ও শাহজাদপুর উপজেলার মোয়াকোলা, আন্দারমানিক, চর আন্দার মানিক, সন্তোষা, চরবন্যা, ভেড়াকোলা, চরপেচাকোলার হাজার হাজার বিঘা জমির কাচা আধাপাকা ধান, তিল, কাউনসহ বিভিন্ন ফসলী জমি পানির নিচে তলিয়ে গেছে।

ফলে পানিতে তলিয়ে যাওয়া আধা পাকা ধান ও অন্যান্য ফসল কৃষক কেটে নিতে বাধ্য হচ্ছে। সন্তোষা গ্রামের কৃষক আনোয়ার হোসেন জানান, এবছর ধানের ফলন ভাল হয়েছিল। ভেবে ছিলাম ধান কেটে মহাজনের ঋন শোধ করুম। কিন্তু পানিতে তলিয়ে আমাদের সর্বনাশ হয়্যা গেল। এহন ভিক্ষার ঝুলি নেয়্যা ছার‌্যা ওপায় নাই।

বেড়া পৌর এলাকার সম্ভুপুর মহল্লার কৃষক সোবাহান মোল্লা জানান, তার দুই বিঘা জমির ধান পানিতে তলিয়ে গেছে। কামলা দিয়ে কাচা ধান কেটে আনছেন গরুকে খাওয়ানোর জন্য।

বৃশালিখা গ্রামের কৃষক নুর ইসলাম জানান, দেনা কইর‌্যা ৫ বিঘা জমিতে ধান লাগাইছি পানি বৃদ্ধিতে তার ৩ বিঘা জমির বোরো ধান পানির নিচে। এসব ধান কাইটা কোন লাভ হইবনা। তাইতো টাহা খরচ কইরা কাটুম না।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, নাকালিয়া, নগরবাড়ি, কাজিরহাট, ঢালারচর, চরলতিফপুর, আরিচা, পাটুরিয়া, দৌলদিয়া, গোয়ালন্দ এলাকায় একই চিত্র ফুটে উঠেছে।