শনিবার, ২৭ নভেম্বর ২০২১, ০৬:১৬ পূর্বাহ্ন

বেড়ায় নৌকার গণসংযোগে বিদ্রোহী প্রার্থীর সমর্থকদের ককটেল হামলা, আহত ১০

আরিফ খাঁন, বেড়া-সাঁথিয়া, পাবনা: পাবনা বেড়া পৌরসভা নির্বাচনকে কেন্দ্র করে ৬৮ পাবনা ১ আসনের সাংসদ সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শামসুল হক টুকুর পারিবারিক দ্বন্দে ক্রমেই অশান্ত হয়ে উঠেছে নির্বাচনী পরিবেশ।

মঙ্গলবার (২৩ নভেম্বর) রাত ৯টার দিকে পৌরসভার সুম্ভপুড় মহল্লার মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স এর সামনে আ.লীগ প্রার্থী আসিফ শামস রঞ্জনের নৌকার গণসংযোগে ককটেল নিক্ষেপের অভিযোগ উঠেছে স্বতন্ত্র প্রার্থীর সমর্থকদের বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় অন্তত ১০ জন আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে।

চাচা-ভাতিজার সমর্থকদের মুখোমুখি অবস্থানে নৌকার গণসংযোগে অতর্কিত হামলার পাশাপাশি কয়েকটি ককটেল নিক্ষেপ করার অভিযোগ বিদ্রোহী প্রার্থী আব্দুল বাতেনের সমর্থকদের বিরুদ্ধে।

আহতদের মধ্যে ৫ জন বেড়া হাসপাতালে ভর্তি রয়েছে তবে তাদের অবস্থা গুরুত্বর না বলে জানা গেছে। এতে পৌর এলাকায় আতঙ্কের আশঙ্কা দিনদিন বেড়েই চলেছে। আহতরা হলেন- পাবনা জেলা ছাত্রলীগের সাবেক পাঠাগার সম্পাদক আব্দুল জব্বার (৩২), সাইদুল ইসলাম গায়েন ( ৪০), সাদ্দাম হোসেন (৩৩), কালু গায়েন (৪২) ও মহেলা খাতুন (৩৮)। বাকিদের নাম-পরিচয় পাওয়া যায়নি।

স্থানীয়রা জানান, রাতে আওয়ামী লীগের শতাধিক নেতাকর্মী নিয়ে নৌকার ভোট চাইতে গণসংযোগ করার সময় বেড়া উপজেলা আওয়ামী লীগ কার্যালয়ের দিকে অগ্রসরের সময়ে রাত ৯ টার দিকে স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থীর সমর্থকরা ৮/১০ জনের একদল বাহিনী দেশীয় অস্ত্র নিয়ে হামলা চালায়।

এবং কয়েকটি ককটেল নিক্ষেপ করে। এসময় ধাওয়া দিলে তারা পালানোর সময়ে জনতার রোষানলে পড়ে কয়েকজনকে গণধোলাই দিলে আহত অবস্থায় পালিয়ে যায়।

স্থানীয়রা আরও জানান, চাচা ভাতিজার দ্বন্দে পৌরবাসীর ঘুম হারাম হয়ে গেছে। এলাকায় বহিরাগত সন্ত্রাসীদের আনাগোনা বেড়ে গেছে। ভোটের দিন বড় ধরণের অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটতে পারে বলে আশঙ্কা করছে তারা। প্রতিদিনই সহিংসতার ঘটনা ঘটছে।

বেড়া পৌর নির্বাচনে মেয়র পদে সাংসদ টুকুর পরিবারের তিন সদস্য প্রতিদ্বন্দিতা করছেন। আওয়ামীলীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকের প্রার্থী সাংসদ টুকুর ছেলে আসিফ শামস রঞ্জন, নারিকেল গাছ প্রতীক নিয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী বর্তমান মেয়র আব্দুল বাতেন টুকুর ছোট ভাই ও মোবাইল ফোন প্রতীক নিয়ে টুকুর বড় ভাইয়ের মেয়ে সাদিয়া আলম নির্বাচনী মাঠে রয়েছেন।

এছাড়াও রেল ইঞ্জিন প্রতীক নিয়ে মেয়র পদে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী হয়েছেন জেলা আওয়ামীলীগের সদস্য ফজলুর রহমান মাসুদ, জগ প্রতীক নিয়ে সাবেক ছাত্রলীগ নেতা এ কে এম আব্দুল্লাহ্। আগামী ২৮ নভেম্বর বেড়া পৌরসভার নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

নৌকা প্রতীকের প্রার্থী আসিফ শামস রঞ্জন বলেন, মঙ্গলবার রাতে নির্বাচনি প্রচারণার জন্য আমার সমর্থকেরা গণসংযোগ করতে থাকলে পৌর এলাকার সুম্ভুপুড় মহল্লার মোড়ে পৌঁছায়। এ সময় বিপরীত দিক থেকে নারিকেল গাছ মার্কার প্রার্থী আব্দুল বাতেনের সমর্থকরা দেশীয় অস্ত্র দিয়ে হামলা করে। পরে কয়েকটি ককটেল ও নিক্ষেপ করলে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। এসময় আমার সমর্থকদের ওপর হামলা চালায় ও মারপিট করে তাঁরা পালিয়ে যায়। এতে প্রায় দশজন আহত হয়েছে বলে তিনি জানান।

তবে অভিযোগ অস্বীকার করেছেন নারিকেল গাছ প্রতীকের স্বতন্ত্র বিদ্রোহী মেয়র প্রার্থী আব্দুল বাতেন বলেন, জনসমর্থন না পেয়ে নৌকার প্রার্থী রঞ্জন তার এমপি পিতাকে সঙ্গে নিয়ে ষড়যন্ত্রের জাল বিছিয়েছে সেটা সবাই অবগত। আমাকে নির্বাচনি মাঠ থেকে সরিয়ে দিতে এখনোও চেষ্টা করছে। আমার কর্মীদের হয়রানি করতেই তারা পূর্ব পরিকল্পিতভাবে নিজেরা গণসংযোগে হামলা চালিয়ে ককটেল নিক্ষেপ করেছে।

বেড়া মডেল থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ( ওসি) অরবিন্দ সরকার বলেন, উভয়পক্ষের গণসংযোগের সময় সংর্ঘষের সৃষ্টি হলে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় বেশ কয়েকজন হাসপাতালে ভর্তি আছেন বলে জানতে পেরেছি। বুধবার দুপুর পর্যন্ত কেউ লিখিত কোন অভিযোগ করেনি। অভিযোগ দিলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। তবে পুলিশ ককটেল উদ্ধার করে নিস্ক্রিয় করতে কাজ করছে বলে জানান তিনি।

0
1
fb-share-icon1


© All rights reserved 2021 ® newspabna.com

 
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
x
error: Content is protected !!