বুধবার, ২০ জানুয়ারী ২০২১, ০৬:৫৮ অপরাহ্ন

আতঙ্কিত হবেন না
করোনা সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন

বেড়ায় বাঁধ ভেঙে পানিতে তলিয়েছে বোরো ধান

image_pdfimage_print

আরিফ খাঁন, বেড়া পাবনাঃ পাবনার বেড়া উপজেলার রূপপুর ইউনিয়নে ঘোপশিলেন্দা যমুনা নদীর তীরবর্তি একটি জোলার বাঁধ ভেঙ্গে সাতটি গ্রামের প্রায় তিনশত বিঘার জমির ধান পানিতে ডুবে গেছে।

গত শনিবার (৩০ মে) দুপুরে হঠাৎ করে ঘোপশিলেন্দা গ্রামের জোলার মুখের বাঁধটি ভেঙ্গে যায়। মুহুতের মধ্যে পানি ঢুকে জমিগুলোর ধান তিল, পাট পানিতে তলিয়ে যায়।

ডুবে যাওয়া পাকা আধাপাকা ধান নিয়ে কৃষকেরা দিশেহারা হয়ে পড়েছে। ধান কাটার জন্য কৃষকেরা শ্রমিক না পেয়ে অনেকে ধান কাটাতে পারছে না। ফলে পানির নিচে পরে ধানগুলো নষ্ট হয়ে যাচ্ছে।

জানা যায়, গত কয়েকদিন যমুনা নদীতে অস্বাভিক পানি বৃদ্বির ফলে রূপপুর ইউনিয়নের ঘোপশিলেন্দা গ্রামের ১২০মিটার অংশে ভাঙন দেখা দিয়েছে বলে গ্রামবাসী পাউবো কর্তৃপক্ষকে জানান।

পাউবো কর্তৃপক্ষ কোন কর্নপাত না করলে এলাকাবাসি মিলে যমুনা নদীর তীরবর্তি ঘোপশিলেন্দায় একটি জোলার মুখের বাঁধ দিয়ে পানি আটকিয়ে রাখে। যাতে জোলা দিয়ে পানি ঢুকে মাঠের ধান, তিল, পাটসহ অন্যান্য ফসল পানিতে তলিয়ে না যায়।

শনিবার বিকালে সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, যমুনা নদীতে অস্বাভিক পানি বৃদ্বির ফলে ঘোপশিলেন্দা গ্রামের একটি জোলার মুখের বাঁধ ভেঙ্গে প্রবল বেগে পানি ঢুকে প্রতাপপুর, রানীগ্রাম, রঘুনাথপুর, রাজ্জাকপুর, কৃষ্ণপুর, ঘোপশিলেন্দা খানপুরা নতুনপাড়াসহ সাতটি গ্রামের প্রায় তিনশত বিঘার জমির ধান, পাট তিল পানিতে তলিয়ে গেছে।

প্রতাপপুর গ্রামের কৃষক আতোয়ার আলী শেখ (৬৫) জানান, তিনি এ মাঠে ছয় বিঘা জমিতে ধান লাগিয়েছিলেন।

শনিবার জোলার মুখের বাঁধ ভেঙ্গে তার সমস্ত জমির ধান তলিয়ে গেছে। শ্রমিকের অভাবে ধানগুলো কেটে বাড়িতে আনতে পারলাম না বলে আফসোস করেন তিনি।

রঘুনাথপুর গ্রামের কৃষক হাবিবুর রহমান বলেন, এ মাঠে আমার প্রজেক্টে নিজের ৫বিঘাসহ ১৮ বিঘা জমির বোরো ধান পানিতে তলিয়ে গেল চোখের পলকে। কিন্তু শ্রমিকের অভাবে ধানগুলো কাটতে পারলাম না। এবছর ছেলে সন্তান নিয়ে কষ্টে দিনাপাত করতে হবে।

কৃষক রফিকুল ইসলাম, আজিজুল হক, জয়াদ আলী, মানিক মিয়াসহ অনেকেই আহাজারি করে বলেন, ভাই এত কষ্টে ফলানো ধানগুলো চোখের পলকে মহুর্ত্বের মধ্যে পানিতে তলিয়ে গেল। ধান কাটার জন্য একটা শ্রমিক ৭শ থেকে ৮শ টাকা দিয়ে পাওয়া যাচ্ছে না। তাছারা ডুবে যাওয়া ধানগুলো কেটে শ্রমিকের টাকাই যোগার হবে না। এছারা কাচা তিল, পাট পানিতে ডুবে নষ্ট হয়ে গেছে।

ঘোপশিলেন্দা গ্রামের (চার নম্বর ওয়ার্ড) স্থানীয় ইউপি সদস্য আমিরুল ইসলাম বলেন, যমুনা নদীতে অস্বাভিক পানি বৃদ্ধির ফলে শনিবার দুপরে হঠাৎ করে জোলার মুখের বাঁধটি ভেঙ্গে আট-দশটি গ্রামের কৃষকের অনেক বিঘা জমির ধান পানিতে ডুবে নষ্ট হয়েছে। অনেকেই আগেই ধান কেটে নিয়েছিল।

তিনি বলেন, একদিকে নদী ভাঙ্গন অন্য দিকে পানিতে তলিয়ে ফসল নষ্ট হওয়ায় অনেকে নাওয়া খাওয়া বন্ধ হয়ে গেছে।

বেড়া উপজেলা কৃষি অফিসার মসকর আলী জানান, রোববার (৩১ মে) সকালে ডুবে যাওয়া এলাকার পরিদর্শন করেছি। তাছারা ক্ষতির পরিমান ও ক্ষতিগ্রস্থ কৃষকের তালিকা করা হচ্ছে।

পরবর্তিতে সরকারি কোন সহযোগিতা এলে ক্ষতিগ্রস্থ কৃষকে দেওয়া হবে।

0
1
fb-share-icon1

Best WordPress themes


© All rights reserved 2020 ® newspabna.com

 
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
error: Content is protected !!