রবিবার, ২৯ নভেম্বর ২০২০, ০১:৩০ পূর্বাহ্ন

আতঙ্কিত হবেন না
করোনা সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন

বেড়ায় মহাসড়কে হাট, তীব্র যানজট

বেড়ায় রাস্তার উপর হাট

image_pdfimage_print
বেড়ায় রাস্তার উপর হাট

বেড়ায় রাস্তার উপর হাট

মাহমুদল হাসান ঝিনুক, বেড়া (পাবনা) থেকে : পাবনার বেড়া বাসস্ট্যান্ডের পার্শ্ববর্তী করমজা হাটে জায়গা আছে ঠিকই। তা সত্ত্বেও হাটুরেরা সেখানে না বসে সংলগ্ন মহাসড়কে উঠে পণ্যের পসরা সাজিয়ে বসছেন। এতে হাটসংলগ্ন পাবনা-ঢাকা মহাসড়কে প্রতিদিনই সৃষ্টি হচ্ছে দুঃসহ যানজট। দুর্ভোগ পোহাচ্ছে যাত্রীরা। বেড়ে যাচ্ছে ঝুঁকিও।

বেড়া পৌরসভার অন্তর্ভুক্ত করমজা উত্তরাঞ্চলের সবজির অন্যতম প্রধান পাইকারি হাট হিসেবে পরিচিত। এখানে প্রতি শনি ও মঙ্গলবার হাট বসলেও প্রতিদিনই সবজি পাইকারি বেচাকেনা চলে। দেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে সবজি ব্যবসায়ীরা এখানে এসে কৃষকদের কাছ থেকে সবজি কেনেন।

ভোর হতে না হতেই কৃষক ও সবজি বিক্রেতারা হাটসংলগ্ন মহাসড়কের পাশে সবজি নিয়ে বসে যান। এতে বেশির ভাগ দিনই মহাসড়ক-সংলগ্ন অংশ ছাড়িয়ে সবজির হাট মহাসড়কের ওপর পর্যন্ত পৌঁছে যায়। এতে প্রায় প্রতিদিনই সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত হাটসংলগ্ন মহাসড়কে সৃষ্টি হয় তীব্র যানজট। হাটবারে (শনি ও মঙ্গলবার) এই যানজট ভয়াবহ রূপ নেয়। কখনো কখনো এই যানজট চার থেকে পাঁচ কিলোমিটার দীর্ঘ হয়।

সরেজমিনে গতকাল মঙ্গলবার দেখা যায়, হাটের পূর্ব দিকের অংশে মাটি ফেলে প্রশস্ত করা হয়েছে। এই অংশ এসে যুক্ত হয়েছে মহাসড়কে। এই অংশে পেঁয়াজ, আসবাবসহ বিভিন্ন পণ্যের পসরা বসার পরও অনেক জায়গা ফাঁকা। সবজি বেচাকেনার জন্য কৃষক ও আড়তদারদের ওই অংশ ব্যবহার করতে বলেছে হাট কমিটি।

তারপরও কৃষকেরা সবজি এনে হাটের ওই অংশের পরিবর্তে মহাসড়কে গিয়ে বসছেন। পাইকারি ক্রেতারাও সেখানে গিয়েই সবজি কিনছেন। আর এই বেচাকেনায় কৃষক ও সবজি ক্রেতাদের সাহায্য করছেন কিছু আড়তদার। বেচাকেনার পর সেখানেই নছিমন, করিমন অথবা অটোভ্যানে বোঝাই করা হচ্ছে বিক্রীত সবজি। এতে হাটসংলগ্ন মহাসড়কের দুই পাশে সৃষ্টি হয়েছে ভয়াবহ যানজট।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক দুজন সবজি আড়তদার বলেন, মহাসড়কের পাশে ১০ থেকে ১২টি সবজির আড়ত রয়েছে। সবজি ক্রেতারা এসব আড়ত থেকেই সবজি কেনেন। এ জন্য ভেতরে জায়গা থাকলেও আড়তের সামনে কৃষকদের উৎপাদিত পণ্য নিয়ে বসতে বলেন তাঁরা। আড়তদাররা আরও বলেন, মহাসড়কের পাশে থাকা আড়তগুলো থেকে হাটের ভেতরের ফাঁকা অংশটি কিছুটা দূরে হওয়ায় সেখান থেকে পণ্য কিনে আড়তে আনা ঝামেলা ও ব্যয়সাপেক্ষ।

মহাসড়কের প্রায় মাঝবরাবর পটোলের বস্তা নিয়ে বিক্রির জন্য দাঁড়িয়ে ছিলেন সাঁথিয়া উপজেলার সবজিচাষি আশকার আলী। তিনি বলেন, ‘অটোভ্যানের থ্যা মহাসড়কের ওপর পটোলের বস্তা নামায়া বেচাকেনার জন্য দাঁড়াইছি। হাটের ভেতরে বস্তা নেওয়া কঠিন, কেনার লোকের অভাবে বেচাও কঠিন।’

যানজটে আটকে থাকা সিরাজগঞ্জ থেকে পাবনাগামী যাত্রীবাহী বাস সোনার বাংলা পরিবহনের চালক মোখলেছুর রহমান বলেন, ‘৩০ মিনিট এহানে আইটক্যা রইছি। আরও কতক্ষণ থাকা লাগবি কিডা জানে।’
পাবনা মোটর শ্রমিক ইউনিয়নের সহসভাপতি মো. রইজউদ্দিন বলেন, ‘করমজা হাটের যানজটে সাধারণ মানুষ যেমন দুর্ভোগ পোহাচ্ছে, তেমনি পরিবহন খাতেও বিশৃঙ্খল অবস্থার সৃষ্টি হচ্ছে। যানজটে আটকে থাকায় প্রায়ই বিভিন্ন বাসের ট্রিপ মিস হয়ে যাচ্ছে।’

করমজা হাট কমিটির যুগ্ম সম্পাদক মহসীন আলী বলেন, হাটের পূর্ব দিকে জায়গা থাকা সত্ত্বেও কিছু আড়তদারের কারণে মহাসড়ক থেকে হাট পুরোপুরি সরছে না। হাট কমিটির পক্ষ থেকে এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

এ ব্যাপারে বেড়া-সাঁথিয়া (এএসপি) সার্কেল বলেন” আমরা ইতিমধ্যে অবৈধ দোকান উচ্ছেদ করার জন্য অভিযান চালিয়েছি এবং এ অভিযান অব্যাহত থাকবে।

0
1
fb-share-icon1

Best WordPress themes


© All rights reserved 2020 ® newspabna.com

 
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
error: Content is protected !!