বেড়া-সাঁথিয়ায় তিন মাসে নয় খুন!

বেড়া-সাঁথিয়ায় তিন মাসে নয় খুন!

বেড়া-সাঁথিয়ায় তিন মাসে নয় খুন!

নিউজ ডেস্ক : আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি ভালো যাচ্ছে না পাবনা জেলার বেড়া ও সাঁথিয়া উপজেলার কারন, প্রায় তিন মাসে বেড়া ও সাঁথিয়া উপজেলায় নয়টি খুনের ঘটনা ঘটেছে। গত ১৯ মার্চ থেকে ১১ জুন পর্যন্ত সময়ের মধ্যে এসব খুনের ঘটনা ঘটে। এর মধ্যে সাঁথিয়া উপজেলায় পাঁচটি ও বেড়া উপজেলায় চারটি খুন হয়েছে। এ সময় দুই উপজেলায় বেশ কয়েকটি ডাকাতি ও ছিনতাইয়ের ঘটনাও ঘটেছে। পুলিশ, গণমাধ্যম ও স্থানীয় সূত্রে এসব তথ্য পাওয়া গেছে।

গত ১৯ মার্চ রাতে বেড়ার ঢালারচর ইউনিয়ন পরিষদে (ইউপি) নির্বাচনী সহিংসতায় মিরপুর গ্রামে প্রতিপক্ষের হাতে খুন হন গহর মণ্ডল (৩০) নামের এক যুবক। তাঁর বাড়ি ইউনিয়নের খয়েরবাগান গ্রামে। ১৯ এপ্রিল আরেকটি খুনের ঘটনা ঘটে সাঁথিয়ার ভায়নাপাড়া গ্রামে। ওই দিন দুপুরে ভায়নাপাড়া গ্রামের ইব্রাহিম হোসেন (৩৫) নামের এক ব্যক্তিকে তাঁর বাড়ির পাশে বাগানে কুপিয়ে খুন করা হয়। পুলিশের দাবি, ইব্রাহিম চরমপন্থী দলের আঞ্চলিক নেতা ছিলেন এবং দলের অভ্যন্তরীণ কোন্দলের জেরে তিনি খুন হন।

গত ২০ এপ্রিল রাতে বেড়ার শিবপুর গ্রামে স্বামী ও শ্বশুরবাড়ির লোকজনের হাতে শেফালি আক্তার (২৮) নামের এক গৃহবধূ হত্যার অভিযোগ ওঠে। পুলিশ ঘর থেকে ঝুলন্ত অবস্থায় তাঁর লাশ উদ্ধার করে। গত ২৩ এপ্রিল রাতে সাঁথিয়ায় আবারও চরমপন্থী দলের আল-আমিন হোসেন (৩৫) নামের এক আঞ্চলিক নেতা খুন হন। তাঁর বাড়ি উপজেলার ভিন্নগ্রামে। দুর্বৃত্তরা ওই গ্রামের ইছামতী নদীপাড়ে তাঁকে কুপিয়ে হত্যা করে লাশ ফেলে রাখে। পরদিন (২৪ এপ্রিল) পুলিশ লাশ উদ্ধার করে।

গত ১৭ মে রাতে সাঁথিয়ার বহলবাড়িয়া গ্রামে খুন হন ফুলমতি বেগম (২৬) নামের এক গৃহবধূ। পরদিন সকালে পুলিশ পাটখেত থেকে তাঁর লাশ উদ্ধার করে। ঘটনার পর গৃহবধূর স্বামী পালিয়ে যান।

গত ২২ মে বেড়ার দক্ষিণ চরপেঁচাকোলা গ্রামে চায়না খাতুন (৮) নামের এক শিশু খুন হয়। শিশুটির বাবা এ ঘটনায় একই গ্রামের মনির হোসেনের (১৯) বিরুদ্ধে ধর্ষণ ও খুনের অভিযোগ এনে থানায় মামলা করেন। পুলিশ মনিরকে গ্রেপ্তার করে জেলহাজতে পাঠায়। একই দিনে সাঁথিয়ার সাতানিরচর গ্রামে জমি নিয়ে বিরোধের জের ধরে ছোট ভাইয়ের লাঠির আঘাতে গুরুতর জখম হন এলাহী বক্স (৫০)। হাসপাতালে নেওয়ার পথে তিনি মারা যান।

গত ২৫ মে রাতে খুন হন সাঁথিয়ার পাথাইলহাট গ্রামের জালাল প্রামাণিক (৫০) নামের এক কৃষক। পরদিন সকালে পুলিশ গ্রামের একটি পুকুরের পাড় থেকে তাঁর লাশ উদ্ধার করে। ১১ জুন বেড়া থানা-পুলিশ উপজেলার ডাকবাংলা ঘাটে হুরাসাগর নদ থেকে অজ্ঞাতপরিচয় এক ব্যক্তির (৪০) লাশ উদ্ধার করে।

খুনের ঘটনা ছাড়াও গত তিন মাসে বেড়া ও সাঁথিয়ার বিভিন্ন এলাকায় ডাকাতি ও ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটেছে। গত ১৪ মার্চ দুপুরে বেড়া উপজেলায় গ্রামীণ ব্যাংকের জাতসাখিনী শাখার সামনে দুর্বৃত্তরা তিন কর্মকর্তা-কর্মচারীর কাছ থেকে ছিনিয়ে নেয় পাঁচ লাখ টাকা। গত ৩ এপ্রিল রাতে সাঁথিয়ার কাশীনাথপুর ইউনিয়নের হাসানপুর গ্রামে চার বাড়িতে ডাকাতি হয়।

১০ জুন রাতে কাশীনাথপুর বাজারে একদল দুর্বৃত্ত একটি স্বর্ণালংকারের দোকানে ডাকাতি করে ১০০ ভরি স্বর্ণালংকারসহ ৫০ লাখ টাকার মালামাল লুটে নেয়। ওই সময় দোকানমালিকসহ পাঁচজন আহত হন।

আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে দাবি করে বেড়া-সাঁথিয়া সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি) জাকির হোসাইন বলেন, খুনসহ অনাকাঙ্ক্ষিত যেসব ঘটনা ঘটেছে, তা নিতান্তই বিচ্ছিন্ন। এর সঙ্গে জড়িত ব্যক্তিদের ধরতে অভিযান চলছে। আর কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা যাতে না ঘটে, সে ব্যাপারে পুলিশের কঠোর নজরদারি রয়েছে।