বুধবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২০, ০৮:২৮ পূর্বাহ্ন

আতঙ্কিত হবেন না
করোনা সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন

ব্রাজিলে করোনায় আরও ৫২৯ জনের প্রাণহানি

image_pdfimage_print

ব্রাজিলে আগের তুলোনায় সুস্থতার হার কমেছে, বেড়েছে সংক্রমণ। এতে করে আক্রান্তের সংখ্যা ৫৫ লাখ ১৯ হাজার ছাড়িয়েছে। অন্যদিকে নতুন করে ৫২৯ জনের প্রাণ ঝরেছে লাতিন আমেরিকার দেশটিতে। এ নিয়ে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ১ লাখ সাড়ে ৫৯ হাজার ছাড়িয়ে গেছে। এছাড়া অবস্থার অবনতি হয়েছে আর্জেন্টিনা ও কলম্বিয়ায়। তবে কিছুটা নিয়ন্ত্রণে পেরু ও চিলিতে।

ব্রাজিলের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের বরাত দিয়ে জরিপ সংস্থা ওয়ার্ল্ডোমিটারের নিয়মিত পরিসংখ্যানে বলা হয়েছে, দেশটিতে গত ২৪ ঘণ্টায় ২৩ হাজার ১২৬ জন মানুষের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ৫৫ লাখ ১৯ হাজার ৫২৮ জনে দাঁড়িয়েছে। নতুন করে প্রাণ হারিয়েছেন ৫২৯ জন। এতে করে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ১ লাখ ৫৯ হাজার ৫৬২ জনে ঠেকেছে।

অপরদিকে সুস্থতা লাভ করেছেন আরও ১২ হাজারের বেশি ভুক্তভোগী। এতে করে বেঁচে ফেরার সংখ্যা ৪৯ লাখ ৬৬ হাজার ২৬৪ জনে পৌঁছেছে।

চলতি বছরের ২৬ ফেব্রুয়ারি দেশটির সাও পাওলো শহরে ৬১ বছর বয়সী ইতালি ফেরত এক জনের শরীরে ভাইরাসটি প্রথম শনাক্ত হয়। এরপর থেকেই অবস্থা ক্রমেই সংকটাপন্ন হতে থাকে। যেখানে আক্রান্ত ও প্রাণহানির তালিকায় অনেক চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মী রয়েছেন।

তবে শুধু ব্রাজিলই নয়, করোনার ভয়াবহতা ছড়িয়ে পড়েছে গোটা লাতিন আমেরিকার অন্যান্য দেশগুলোতেও। যেখানে পূর্বের তুলনায় ভাইরাসটির দাপট অনেকটা বেড়েছে। এমন অবস্থায় করোনাকে বাগে আনতে দেশগুলোর সরকার মানুষকে ঘরে রাখতে চেষ্টা করছেন। কিন্তু অর্থনীতির চাকা সচল থাকা নিয়ে রয়েছে যত দুশ্চিন্তা। ফলে সংকটাবস্থার মধ্য দিয়ে ব্রাজিল, পেরু, চিলি, ইকুয়েডর ও আর্জেন্টিনার মতো দেশগুলোতে অনেক কিছুই চালু রয়েছে।

এর মধ্যে ব্রাজিলে সবচেয়ে ভয়াবহ অবস্থা। যা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রকে ছাড়িয়ে যেতে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। দেশটিতে আক্রান্তদের চিকিৎসা দিতে গিয়ে বেশ বিপাকে পড়তে হচ্ছে চিকিৎসা কেন্দ্রগুলোকে। অপরদিকে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা দ্বিতীয় দফায় করোনা আরও ভয়াবহ রূপ নিতে পারে বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য ও ইউরোপে ধ্বংসযজ্ঞ চালানোর পর ব্রাজিল ভাইরাসটির প্রধানকেন্দ্রে পরিণত হয়। একই সঙ্গে এ অঞ্চলের অন্যান্য দেশগুলোতে দ্রুত বিস্তার লাভ করায় কলম্বিয়া, পেরু ও আর্জেন্টিনার মতো দেশগুলোর প্রত্যেকটিতে আক্রান্ত ৮ লাখ ছাড়িয়ে গেছে।

এর মধ্যে আর্জেন্টিনায় সংক্রমিতের সংখ্যা ১১ লাখ ৫৭ হাজার ১৭৯ জনে দাঁড়িয়েছে। মৃত্যু হয়েছে ৩০ হাজার ৭৯২ জনের।

কলম্বিয়ায় শনাক্ত ১০ লাখ ৬৩ হাজার ১৫১ জন মানুষ। এর মধ্যে মৃত্যু হয়েছে ৩১ হাজার ১৩৫ জনের।

পেরুতে আক্রান্তের সংখ্যা ৯ লাখ ছাড়িয়েছে। যেখানে মৃতের সংখ্যা ৩৪ হাজার ৪১১ জনে ঠেকেছে।

এছাড়া চিলিতে সংক্রমিত ৫ লাখ ৮ হাজার ৫৭১ জন মানুষ। এর মধ্যে ১৪ হাজার ১৫৮ জনের প্রাণ কেড়েছে করোনা।

0
1
fb-share-icon1

Best WordPress themes


© All rights reserved 2020 ® newspabna.com

 
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
error: Content is protected !!