ভাঙ্গুড়ায় অভিভাবকদের হামলায় ৩ শিক্ষক আহত

Bhangura-Mapভাঙ্গুড়া (পাবনা) সংবাদদাতা : ভাঙ্গুড়া উপজেলার করতকান্দি রোস্তম আলী বহুমুখি উচ্চ বিদ্যালয়ের ধর্মঘটী কতিপয় শিক্ষকের প্রতি ক্ষুব্ধ হয়ে বুধবার (৪ মে) এলাকার অভিভাবকগণ তাদের উপর হামলা চালায় ।

এতে ভয়ে পালানোর সময় ৩ জন শিক্ষক আহত হন। এরা হলেন সহকারি শিক্ষক বেলাল হোসেন,বিপুল মজুমদার ও বিউটি পারভিন।

হামলাকারীরা সহকারি প্রধান শিক্ষক ইলিয়াছকে অফিস কক্ষে কয়েক ঘণ্টা বন্দি রাখেন। খবর পেয়ে ভাঙ্গুড়া থানা পুলিশের এসআই আবু তালেব সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে বিকালে ঘটনাস্থলে পৌছার পর পরিস্থিতি শান্ত হয়।

ওসি আবু জাফর ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেছেন।

এলাকাবাসী জানান,সহকারি প্রধান শিক্ষক রবিউল ইসলাম ওরফে ইলিয়াছ এর নেতৃত্বে ঐ শিক্ষকগণ ম্যানেজিং কমিটি গঠন বিষয়ে দ্বন্দে লিপ্ত হন এবং ৭/৮ দিন ধরে ধর্মঘট ডেকে স্কুলে ক্লাশ বর্জন করে আসছিলেন।

তারা অন্যান্য শিক্ষকগণকেও ভয়ভীতি দেখিয়ে ক্লাশ বর্জন করতে বাধ্য করেন। এতে সন্তানদের ভবিষ্যত নিয়ে অভিভাবকগণ উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েন।

বুধবার অভিভাবকগণ একজোট হয়ে বিদ্যালয়ে উপস্থিত হন এবং ক্লাশ গ্রহনের দাবি জানান। ধর্মঘটী শিক্ষকগণ এতে অপারগতা জানান এবং আল মাহমুদ নামের এক অভিভাবককে মারপিট করেন। ফলে ক্ষুব্দ ব্যক্তিরা ঐ শিক্ষকদের উপর হামলা চালান।

উল্লেখ্য,প্রায় দু’বছর আগে প্রধান শিক্ষিকা শামিম আরা পারভিনকে অবৈধ ভাবে বরখাস্ত করা হয়। রাজশাহী শিক্ষা বোর্ডের আরবিটেশন কমিটি ও হাইকোর্টের রায়ে ৬০ দিনের মধ্যে তাকে স্বপদে পুনঃবহাল এবং তার সকল বকেয়া বেতন-ভাতা পরিশোধের নির্দেশ দেন।

স্কুল কর্তৃপক্ষ হাইকোর্টের রায় অগ্রাহ্য করায় বিষয়টি জটিল আকার ধারণ করে। এদিকে আইনি জটিলতার কারনে ম্যানেজিং কমিটি নতুন সভাপতি নির্বাচন করতে ব্যর্থ হওয়ায় ৫/৬ মাস ধরে এ বিদ্যালয়ের সকল শিক্ষকের বেতন বন্ধ রয়েছে।

ফলে প্রধান শিক্ষিকার ন্যায় সকল শিক্ষক এখন মানবেতর জীবন যাপন করছেন। এ জন্যে অভিভাবকগণ সহকারি শিক্ষক ইলিয়াছকে দায়ী করেন।