ভাঙ্গুড়ায় পুলিশের এএসআইয়ের বিরুদ্ধে বসতবাড়ী ভাংচুরের অভিযোগ

ভাঙ্গুড়া প্রতিনিধি : পাবনার ভাঙ্গুড়ায় পূর্ব শত্রুতার জের ধরে ওমর আলী নামের এক বৃদ্ধর বসতবাড়ী ভাংচুর করার অভিযোগ উঠেছে শাহ আলম (৩৫) নামে এক পুলিশের এএসআই এর বিরুদ্ধে।

রবিবার (০১ নভেম্বর) সকালে উপজেলার অষ্টমনিষা ইউনিয়নের রূপসী গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

ঘটনার পর খবর পেয়ে ভাঙ্গুড়া থানার ওসি মুহম্মদ আনোয়ার হোসেন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। শাহআলম ওই গ্রামের মৃত হোসেন আলীর ছেলে এবং বর্তমানে তিনি র‌্যাব-১৩ রংপুর শাখায় কর্মরত আছেন।

অভিযোগ সূত্রে ও স্থানীয়রা জানান, দীর্ঘদিন যাবৎ ওমর আলীর সাথে একই গ্রামের মৃত হোসেন আলীর ছেলে জামাল উদ্দিনের জায়গা নিয়ে বিরোধ চলছিলো।

শনিবার সন্ধ্যায় শাহআলম প্রতিবেশী ওমর আলীর বাড়ীর সামনে থাকা বাঁশের চটা ভেঙে জায়গা দখলের চেষ্টা করে।

এ সময় তারা বাধা দিলে উভয় পক্ষের মধ্যে ইটের ঢেল ছুড়াছড়ি হয়। এতে উভয় পক্ষের চারজন আহত হয়।

আহতরা হলেন-ওমর আলীর ছেলে ফরিদ হোসেন, সোহেল রানা এবং মৃত হোসেন আলীর ছেলে শাহাদৎ, শাহআলম ও সাইফুল।

এ নিয়ে রবিবার সকালে শাহআলমের নেতৃত্বে শাহাদৎ, সাইফুল, শাজাহান, জহুরুল, জুয়েল, আহম্মদ ও ফারুকসহ বেশ কয়েক জন ধাড়ালো দেশীয় অস্ত্র দিয়ে ওমর আলীর বসতবাড়ীসহ বাড়ীতে থাকা ফ্রীজ, আলমারী, টয়লেটের স্লাব ভাংচুর করে এবং মুরগীর খামারে অগ্নি সংযোগ করে।

পরে স্থানীয়রা এসে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনেন।

অভিযোগ অস্বীকার করে পুলিশের এএসআই শাহআলম বলেন, আমি ছুটি নিয়ে আমার পেটে অপারেশন করার জন্য রাজশাহীতে ছিলাম।

অপারেশন শেষে শনিবার সন্ধ্যায় আমি রাজশাহী থেকে বাড়ী এসেছি, এটা আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র।

ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে ভাঙ্গুড়া থানার ওসি মুহম্মদ আনোয়ার হোসেন বলেন, এ ব্যাপারে কেউ অভিযোগ দেয়নি। তবে অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।