শনিবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২০, ০৮:৩৫ পূর্বাহ্ন

আতঙ্কিত হবেন না
করোনা সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন

ভাঙ্গুড়ায় রাস্তা সংষ্কার তদারকিতে রাস্তায় পৌর মেয়র

image_pdfimage_print

ভাঙ্গুড়া প্রতিনিধি: দীর্ঘদিন খানাখন্দে ভরপুর ছিল, সামান্য বৃষ্টি হলেই জলাবন্ধতা হয়ে থাকত, রাস্তার পাশে ছিল না কোনো পরিকল্পিত ড্রেনেজ ব্যবস্থা।

ফলে ভাঙ্গুড়ার ঐতিহ্যবাহী সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজের শিক্ষক, শিক্ষার্থীরা বিদ্যালয়ে যেতে দুর্ভোগ পোহাতে হতো।

বলছিলাম পাবনার ভাঙ্গুড়ার সরকারি ভাঙ্গুড়া ইউনিয়ন উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজ গেটের সামনের হাইস্কুল মার্কেট মোড় হতে ভাঙ্গুড়া স্মৃতিসোৗধ গোল চত্বর পর্যন্ত ২৮০ মিটার রাস্তার কথা।

দীর্ঘ প্রতীক্ষার পর পৌরসভা হতে আইইউআইডিপি প্রকল্পের অধীনে রাস্তাটি সংষ্কারের কাজ দ্রুত গতিতে এগিয়ে চলছে। ফলে ভাঙ্গুড়া ঐতিহ্যবাহী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ভাঙ্গুড়া ইউনিয়ন উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও সাধারণ চলাচলকারি মানুষ দীর্ঘদিন এর সুফল ভোগ করবে।

সূত্রে জানা গেছে, আইইউআইডিপি প্রকল্পের আওতায় রাস্তা সংষ্কার ও ডেন্স কার্পেটিং করার জন্য ১৮ ফুট চওড়া করে ২৮০ মিটার রাস্তার জন্য ১৬ লক্ষ টাকার কাজের টেন্ডার পায় সরকার ট্রেডার্স নামক একটি প্রতিষ্ঠান।

রাস্তাটি মানসম্মত ও টেকসই করে নির্মাণ করার লক্ষ্যে পরিকল্পিতভাবে এর আগে অন্য একটি ড্রেনেজ প্রকল্পের আওতায় ভাঙ্গুড়া ইউনিয়ন উচ্চ বিদ্যালয়ের সামনের রাস্তার পূর্ব পাশ দিয়ে কলতানের সামনে দিয়ে স্মৃতি সৌধের পশ্চিম পাশ দিয়ে ঘুরে আবার ঐ বিদ্যালয়ের সাবেক স্থানে মিলিত হয়ে ভাঙ্গুড়া বাজারের রাসেল প্লাজার পশ্চিম পাশ দিয়ে সোনালী ব্যাংকের পশ্চিম পাশের প্রধান ড্রেনের সাথে মিলিত একটি ড্রেনের ব্যবস্থা অনেক আগেই নির্মাণ কাজ শেষে হয়েছে।

ফলে বৃষ্টি হয়ে রাস্তায় পানি জমে থেকে এই রাস্তাটি নষ্ট হওয়ার সম্ভাবনা অনেকাংশই কমে যাবে পাশাপশি টেকসই হবে এই রাস্তাটি এমনটি জানিয়েছেন পৌরসভার প্রকৌশল বিভাগ।

সরেজমিন রোববার (১৮ অক্টোবর) দুপুরের দিকে উপজেলার সরকারি ভাঙ্গুড়া ইউনিয়ন উচ্চ বিদ্যালয়ের রাস্তার গিয়ে দেখা যায় , রাস্তাটির কার্পেটিং এর কাজ চলছে।

রোদ আর তীব্র গরম উপেক্ষা করে রাস্তার কাপেটিং এর কাজ দেখে বুঝে নিচ্ছেন পৌর মেয়র গোলাম হাসনাইন রাসেল।

এসময় তার সাথে ছিলেন পৌরসভার ইঞ্জিনিয়ার ও ঐ প্রকল্পের এসও হাবিবুর রহমান।

ইঞ্জিনিয়ার হাবিবুর রহমান জানান, ২৮০ মিটার দৈর্ঘ্য, ১৮ ফুট চওড়া ৪০ মিলি পুরু করে রাস্তার টেন্ডার মোতাবেক কাজ বুঝে নেওয়া হচ্ছে।

এবিষয়ে মেয়র গোলাম হাসনাইন রাসেল বলেন, পৌর এলাকার জনপ্রতিনিধি হিসেবে রাস্তার কাজ যেন শর্ত মোতাবেক হয় সেটা দেখে বুঝে নেওয়ার চেষ্টা করেছি। এতে একটু কষ্ট হলে সেটা তো সহ্য করতেই হবে।

0
1
fb-share-icon1

Best WordPress themes


© All rights reserved 2020 ® newspabna.com

 
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
error: Content is protected !!