রবিবার, ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২০, ০২:০০ অপরাহ্ন

ভাষা আন্দোলন গবেষণাই যাঁর ব্রত…

।। এবিএম ফজলুর রহমান।।

ভাষাশহীদদের আত্মত্যাগের মাস ফেব্রুয়ারি এলে আমরা নানাভাবে শহীদদের স্মরণ করি, বাংলা ভাষার প্রতি হই সচেতন। প্রভাতফেরি অয়োজন, শহীদ মিনারে ফুল দেওয়া, আলোচনাসহ কত কিছুই না করি। কিন্তু আর বারো মাস খবর রাখি না ভাষা আন্দোলন ও এর শহীদদের।

না, এমন মানুষও আছে, যিনি সারা বছর থাকেন ভাষা আন্দোলন নিয়ে, ভাষা আন্দোলনের ইতিহাস অনুসন্ধানই যাঁর ধ্যান-জ্ঞান।

বলছি, পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের শিক্ষক, তরুণ গবেষক ড. এম আবদুল আলীমের কথা। নিজ উদ্যোগে প্রতিষ্ঠা করেছেন ‘ভাষা আন্দোলন গবেষণাকেন্দ্র’।

সংগ্রহ করেছেন ভাষা আন্দোলন বিষয়ক বই, পত্র-পত্রিকা, ছবি ও দুর্লভ সব দলিলপত্র। শুধু তাই নয়, এ পর্যন্ত ভাষা আন্দোলন নিয়ে রচনা করেছেন পাঁচটি বই।

বইগুলো হলো ‘ভাষা আন্দোলনে শেখ মুজিব : কতিপয় দলিল’, ‘ভাষা আন্দোলনে ছাত্রলীগ : কতিপয় দলিল’, ‘ভাষাসংগ্রামী ড. মুহম্মদ শহীদুল্লাহ্’, ‘পাবনায় ভাষা আন্দোলন’ ও ‘সিরাজগঞ্জে ভাষা আন্দোলন’।

গত এক যুগ ধরে তরুণ গবেষক মগ্ন আছেন ভাষা আন্দোলন গবেষণায়।

ইতিমধ্যে এ বিষয়ে স্বীকৃতিও পেয়েছেন ড. এম আবদুল আলীম । ২০১৪ সালে তাঁর ‘পাবনায় ভাষা আন্দোলন’ গ্রন্থের জন্য লাভ করেন ‘কালি ও কলম তরুণ কবি ও লেখক পুরস্কার’।

গতকাল মঙ্গলবার সকালে তাঁর বাসায় কথা হয় এই প্রতিবেদকের। তিনি এখন ব্যস্ত ‘ভাষা আন্দোলন কোষ’ ও ‘ভাষা আন্দোলনের স্থানীয ইতিহাস’ রচনার কাজে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে বলেন, ‘ভাষা আন্দোলন আমাদের জাতীয় জীবনের এক মাইল ফলক। ভাষা আন্দোলন নিয়ে অনেক বই-পুস্তক বের হলেও, এ নিয়ে গবেষণা খুব বেশি হয়নি।

বদরুদ্দীন ওমর, বশীর আল্হেলাল, আহমদ রফিক, সফর আলী আকন্দসহ অনেকেই ভালো কিছু কাজ করলেও তরুণ প্রজন্ম ভাষা আন্দোলন গবেষণা ও পঠন-পাঠনে সেভাবে এগিয়ে আসেনি। ভাষা আন্দোলনের জেলাভিত্তিক গবেষণা ও তথ্যভিত্তিক কাজ এখনও খুব বেশি হয়নি।’

তিনি আরও বলেন, ‘মূলত স্মৃতিকথার উপর ভিত্তি করে ভাষা আন্দোলনের ইতিহাসের বড় অংশ রচিত হওয়ায় প্রকৃত ইতিহাস সন্ধান খুব জরুরি। বিশেষ করে, সম্প্রতি পাকিস্তানি গোয়েন্দা সংস্থার গোপন প্রতিবেদনসমূহ প্রকাশিত হওয়ায় ভাষা আন্দোলন সম্পর্কে বহু অজানা তথ্য সামনে চলে এসেছে। তাই এ বিষয়ে গবেষণা খুব জরুরি।’

২০১৯ সালের বইমেলায় ভাষা আন্দোলন নিয়ে প্রকাশিত হয়েছে তাঁর চারটি গ্রন্থ। পূর্ব পাকিস্তান মুসলিম ছাত্রলীগ ও ড. মুহম্মদ শহীদুল্লাহ্র ভাষা আন্দোলনে ভূমিকা নিয়ে প্রথম স্বতন্ত্র গ্রন্থ তিনিই রচনা করেছেন।

তাছাড়া ভাষা আন্দোলনের শেখ মুজিবের অবদান সম্পর্কে সর্বশেষ তথ-উপাত্ত সম্বলিত তাঁর গ্রন্থ এবারের বইমেলায় প্রকাশিত হয়েছে। এছাড়া ‘সিরাজগঞ্জে ভাষা আন্দোলন’ নিয়ে একটি গ্রন্থ এবার প্রকাশিত হয়েছে।

এই তরুণ গবেষকের এ পর্যন্ত সাহিত্য, ইতিহাস ঐতিহ্য নিয়ে মোট ১৭টি গ্রন্থ প্রকাশিত হয়েছে। তাঁর জন্মস্থান পাবনা জেলার সাঁথিয়া উপজেলার গৌরীগ্রাম।

বাংলা ভাষা ও সাহিত্যে স্নাতক (সম্মান) ও স্নাতকোত্তর ডিগ্রি অর্জন করেছেন। বিসিএস ক্যাডারের কর্মকর্তা সিবে চাকুরি করেছেন ঢাকা কলেজসহ ঐতিহ্যবাহী কলেজগুলোতে।

বর্তমানে পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগে সহযোগী অধ্যাপক হিসেবে কর্মরত। বিভাগের সভাপতি ও অনুষদের ডিন হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। নিজ উদ্যোগে গ্রামের বাড়িতে প্রতিষ্ঠা করেছেন ‘ভাষা আন্দোলন গবেষণাকেন্দ্র’।

ভাষা আন্দোলন গবেষণাকেই জীবনের ব্রত হিসেবে গ্রহণ করেছেন।

লেখক : এবিএম ফজলুর রহমান, স্টাফ রির্পোটার, দৈনিক সমকাল এবং এনটিভি, পাবনা।


© All rights reserved 2020 ® newspabna.com

 
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
error: Content is protected !!