ঢাকাশুক্রবার , ১০ ডিসেম্বর ২০২১

মাহমুদউল্লাহ’র চোখে টি-টোয়েন্টি কঠিন এক ফরম্যাট

News Pabna
ডিসেম্বর ১০, ২০২১ ৭:৪৩ অপরাহ্ণ
Link Copied!

সংযুক্ত আরব আমিরাতে বাজেভাবে ব্যর্থ হয়েছে বাংলাদেশ দল। এমন কি খর্ব শক্তির স্কটল্যান্ডের কাছেও হারতে হয়েছিল মাহমুদউল্লাহর দলকে। সেসব ব্যর্থতা ভুলে ঘরের মাঠে পাকিস্তানের বিপক্ষে তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলতে নেমে তাতেও হয়েছে হোয়াইটওয়াশ।

এতসব হার পেছনে ফেলে টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ ভাবতে শুরু করেছেন আসন্ন অস্ট্রেলিয়া টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ নিয়ে। হাতে রয়েছে এক বছরের কম সময়। এর মধ্যেই করতে হবে পরিকল্পনা।

upay
শুক্রবার বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) আয়োজনে ৯৬ দল নিয়ে বিসিবি একাডেমি কাপের উদ্বোধন করতে এসে কথা বলেছেন অস্ট্রেলিয়া বিশ্বকাপ নিয়ে।

সবশেষ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ সংযুক্ত আরব আমিরাতে অনুষ্ঠিত হলেও এশিয়ান কন্ডিশনের সঙ্গে অনেকটা মিল ছিল। তবে অস্ট্রেলিয়ার কন্ডিশনে তো আর সেসব নেই।

মাহমুদউল্লাহ বলছেন, ‘নির্ভর করে আমরা কি রকম টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট খেলছি। অনেক পথ পাড়ি দেওয়ার বাকি আছে। আমি ব্যক্তিগতভাবে মনে করি অস্ট্রেলিয়ার কন্ডিশন খুবই ভালো। সমান বাউন্স, ভালো পেস থাকে। এখন বিষয়টা আমাদের ওপর, কীভাবে আমরা জিনিসটা সামলাতে পারি।’

সম্প্রতি খেলা ম্যাচগুলোতে বাংলাদেশের নড়বড়ে ব্যাটিং ইউনিট ভাবাচ্ছে মাহমুদউল্লাহকেও। কেন না বাউন্সি আর গতিময় উইকেটে বাংলাদেশের ব্যাটারদের দুর্বলতা দেখা গেছে স্পষ্ট।

‘আমাদের ব্যাটিং ইউনিটকে আরও ভালো করতে হবে। বোলিং ইউনিট আমি মনে করি ধারাবাহিকভাবে ভালো করছে। কিছু ছোটখাটো জিনিস আছে সেগুলো আমরা যদি ধারাবাহিকভাবে প্রতিটি সিরিজে উন্নতি করি তবে আমরা খুব ভালো কিছু অর্জন করতে পারব।’

গত সাতটি বিশ্বকাপের মূল পর্বে একটা মাত্র ম্যাচ জিতেছে বাংলাদেশ। সেটিও আবার ২০০৭ সালে প্রথম আসরের প্রথম ম্যাচে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে। এরপর আর একটি ম্যাচও না জেতা বাংলাদেশ অধিনায়কের কাছে স্বাভাবিক ভাবেই মনে হতে পারে টি-টোয়েন্টি ফরম্যাট কঠিন।

মাহমুদউল্লাহ বলছেন, ‘আমরা কাছে মনে হয় টি-টোয়েন্টি কঠিন একটি ফরম্যাট। সব সময় আস্কিং রেট অনেক বেশি থাকে। চাপ থাকে, আশা থাকে। চাপ সবসময় থাকবে। দিনশেষে অনেক সময় আমরা করতে পারি আবার করতে পারি না। আমরা যদি আমাদের রেজাল্ট হোক বা পারফরম্যান্স হোক যদি আমরা একটু ধারাবাহিক হই তাহলে আমাদের ওপর ওই আস্থাটাও বাড়বে।’