রবীন্দ্রসংগীতে দেশ সেরা পাবনার মেয়ে চাঁদনী

পাবনার রবীন্দ্র সংগীত শিল্পী চাঁদনী

পাবনার রবীন্দ্র সংগীত শিল্পী চাঁদনী

শহর প্রতিনিধি : শেখ তোজা ফারদিন চাঁদনী। পড়ে পাবনা সরকারি এডওয়ার্ড কলেজে ইংরেজী বিভাগের  স্নাতোকোত্তর শেষ পর্বে। লেখাপড়ায় যেমন মেধাবী , সঙ্গীতেও তেমন। ১৯৯৯ সালে সংগীত চর্চা শুরু। হাতেখড়ি বাংলাদেশ শিশু একাডেমী পাবনা জেলা শাখায়।

প্রথম সংগীত গুরু পাবনার বরেণ্য শিল্পী আবুল কাশেম। এরপর তালিম নিয়েছে আরও অনেকের কাছে। শুরুটা হয়েছিল নজরুলের গান দিয়ে। স্বিকৃতি স্বরুপ ২০০১ সালে বাংলাদেশ বেতার, রাজশাহী উপ কেন্দ্রের নজরুল সংগীতে শিশু শিল্পী হিসেবে তালিকাভুক্তি। তবে থেমে থাকেনি রবীন্দ্র সঙ্গীতের চর্চা।

সে রবীন্দ্র ও নজরুল সঙ্গীতে জেলা এবং বিভাগীয় পর্যায়ে বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় অংশ গ্রহন করে ১৩৪ টি পুরুস্কার অর্জণ করেছে। একই সঙ্গে জাতীয় পর্যায়ে পেয়েছে আরও ৭ টি পুরুস্কার। এরমধ্যে ২০০৪ সালে বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি আয়োজিত জাতীয় নজরুল সংগীত প্রতিযোগিতায় প্রথম ও ২০০৫ সালে দ্বিতীয় স্থান দখল করে।

একই বছর জাতীয় শাপলাকুড়ি আয়োজিত নজরুল সঙ্গীত প্রতিযোগিতায় দ্বিতীয়, জাতীয় শিশু পুরস্কার প্রতিযোগিতায় তৃতীয় পুরুস্কার পায়। ২০১১ সালে প্রথমবার জাতীয় রবীন্দ্র সংগীত সম্মিলন পরিষদ আয়োজিত রবীন্দ্র সংগীত প্রতিযোগিতায় দ্বিতীয় মান, ২০১৩ সালে তৃতীয় মান ও ২০১৫ সালে আবার দ্বিতীয় মান অর্জণ করে।

বর্তমানে সে পাবনা ললিতকলা কেন্দ্র ইফায় সংগীত গুরু আবুল হাশেমের কাছে রবীন্দ্র সঙ্গীতের তালিম নিচ্ছে।

চাঁদনীর সকল অর্জণের পেছনে রয়ে তার মা শামীমা আক্তার খানমের অক্লান্ত পরিশ্রম ও অনুপ্রেরনা। জীবন চলার পথে বড় বন্ধু তার মা । আর গান হচ্ছে নেশা। স্বপ্ন সুস্থধারার সঙ্গীত দিয়ে মানুষের মনে জায়গা করে নেয়া। চাঁদনী এবার অর্জন করেছেন শিক্ষা মন্ত্রণালয় অয়োজিত জাতীয় শিক্ষা সপ্তাহ ২০১৬ -এ রবীন্দ্রসংগীতে দেশের শ্রেষ্ঠ পুরুষ্কার ।