বৃহস্পতিবার, ০৩ ডিসেম্বর ২০২০, ১২:১২ পূর্বাহ্ন

আতঙ্কিত হবেন না
করোনা সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন

রূপপুর পরমাণু বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণে ব্যয় এক লাখ কোটি টাকা

image_pdfimage_print
রূপপুর বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণে ব্যয় এক লাখ কোটি টাকা

রূপপুর বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণে ব্যয় এক লাখ কোটি টাকা

ঢাকা অফিস: রূপপুর পরমাণু বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণে রাশিয়ার কাছ থেকে ১২ দশমিক ৬৫ বিলিয়ন মার্কিন ডলার বা এক লাখ এক হাজার ২০০ কোটি টাকা ঋণ নিতে আন্তঃরাষ্ট্রীয় ঋণচুক্তির খসড়ায় অনুমোদন দিয়েছে সরকার।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে সোমবার (২৭ জুন) জাতীয় সংসদ ভবনে মন্ত্রিসভার ১১৩তম বৈঠকে এই ঋণচুক্তির খসড়া অনুমোদন পায়।

বৈঠক শেষে মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম সচিবালয়ে সাংবাদিকদের বলেন, ২০১১ সাল থেকে রূপপুর পরমাণু বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণের প্রক্রিয়া চলছে।

২০১৩ সালে প্রধানমন্ত্রীর রাশিয়া সফরে ফ্রেমওয়ার্ক চুক্তি চূড়ান্ত করা হয়। তখন উভয় সরকারের মধ্যে ৫০০ মিলিয়ন মার্কিন ডলারের স্টেট এক্সপোর্ট ক্রেডিট চুক্তি (আন্তঃরাষ্ট্রীয় ঋণ চুক্তি) স্বাক্ষরিত হয়। তখনকার ওই এমওইউ’র আলোকেই এখন চুক্তিপত্র তৈরি করা হয়েছে।

শফিউল বলেন, “এক হাজার ২০০ মেগাওয়াটের দুটি অ্যাটমিক এনার্জি প্ল্যান্ট তৈরি করতে ১২ দশমিক ৬৫ বিলিয়ন মার্কিন ডলার ঋণচুক্তি করা হচ্ছে।”

গত ১৯ মে মস্কোতে বাংলাদেশের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিমন্ত্রীর সঙ্গে রাশিয়ার অর্থ মন্ত্রণালয়ের উপমন্ত্রীর দ্বিপক্ষীয় সভার পর মিনিটস ও ডিসকাশন স্বাক্ষর হয়। তার আলোকেই চুক্তিপত্র তৈরি করা হয়েছে।

শফিউল আরো বলেন, “রূপপুরে দুটি পরমাণু বিদ্যুৎকেন্দ্র তৈরিতে রাষ্ট্রের মোট ঋণের পরিমাণ ১১ দশমিক ৩৮ বিলিয়ন মার্কিন ডলার। প্রকল্প নির্মাণ ব্যয়ের ১০ শতাংশ অগ্রিম হিসেবে বাংলাদেশ সরকার রাশিয়ার ফেডারেশনের ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানকে দেবে। ঋণের বাস্তবায়নকাল ২০১৭ থেকে ২০২৪।”

ঋণ পরিশোধকাল প্রস্তাবিত অর্থায়ন শুরুর পর থেকে ১০ বছর গ্রেস পিরিয়ড। এই ১০ বছর পর থেকে শুরু করে মোট ৩০ বছরের মধ্যে ঋণ শোধ করতে হবে। মূল ঋণের প্রথম কিস্তি শুরু হবে ২০২৭ সালের ১৫ মার্চ থেকে। প্রতি বছরের ১৫ মার্চ ও ১৫ সেপ্টেম্বর সমপরিমাণ কিস্তিতে বাংলাদেশ সরকারকে ঋণ পরিশোধ করতে হবে। সুদের হার ঊর্ধ্বসীমা ৪ শতাংশের বেশি হবে না।

মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, “মোট ব্যয় ১২ দশমিক ৬৫ বিলিয়ন। বাংলাদেশ সরকার ও রাশিয়ার অর্থ মিলিয়ে এই ব্যয় নির্বাহ করা হবে।”

কবে নাগাদ এই ঋণচুক্তি স্বাক্ষরিত হবে এমন প্রশ্নে শফিউল বলেন, “সব রেডি, আশা করছি জুলাই বা অগাস্টে এই চুক্তি হবে। রাশিয়ার উচ্চ পর্যায়ের প্রতিনিধি এখানে (বাংলাদেশ) আসতে পারে বা আমাদের প্রতিনিধি দল ওখানে (রাশিয়া) যেতে পারে।”

পাবনার রূপপুরে দেশের প্রথম পরমাণু বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণে রাশিয়ান ফেডারেশনের প্রতিষ্ঠান অ্যাটমস্ট্রয় এক্সপোর্টের সঙ্গে গত বছরের ২৫ ডিসেম্বর চুক্তি হয় বাংলাদেশ পরমাণু শক্তি কমিশনের।

সে অনুযায়ী, ২৪০০ মেগাওয়াটের দুটি ইউনিটে এ বিদ্যুৎ কেন্দ্র তৈরি করা হবে; যাতে ব্যয় ধরা হয়েছে ১২ দশমিক ৬৫ বিলিয়ন মার্কিন ডলার (১ লাখ ১ হাজার ২০০ কোটি টাকা)।

৫০ বছর আয়ুর এই বিদ্যুৎকেন্দ্রের প্রথম ইউনিট ২০২১ সালের মধ্যে চালু করা সম্ভব হবে বলে আশা করা হচ্ছে।

0
1
fb-share-icon1

Best WordPress themes


© All rights reserved 2020 ® newspabna.com

 
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
error: Content is protected !!