বুধবার, ১৫ জুলাই ২০২০, ১১:১১ পূর্বাহ্ন

আতঙ্কিত হবেন না
করোনা সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন

শিশুর শ্বাসকষ্ট হলে কী করবেন?

শীত শুরু হলেই শিশুদের ঠাণ্ডাজনিত সমস্যা দেখা দেয়। এই ঠাণ্ডার সমস্যা যখন নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যায় তখন নিউমোনিয়া, ব্রংকিউলাইটিস, অ্যাজমাসহ শ্বাসকষ্টজনিত নানা অসুখ হয়। তাই এই সময়ে শিশুর বাড়তি যত্ন নেয়া প্রয়োজন।

শীতে বৃষ্টি কম হওয়ায় ধুলাবালি, গাড়ির ধোঁয়া আর আবর্জনা সব মিলে জীবাণুর পরিমাণ বেড়ে যায়। আপনার শিশু আক্রান্ত হতে পারে শ্বাসকষ্টজনিত অসুখে।শিশু শ্বাসকষ্টজনিত সমস্যা বিভিন্ন কারণে হতে পারে। এছাড়া এই সমস্যা প্রতিরোধে কিছু নিয়ম মেনে চলা জরুরি।

আসুন জেনে নেই শিশুর শ্বাসকষ্টের সমস্যা কেন হয়?

মায়ের বুকের দুধ

জন্মের পরে থেকে ৬ মাস বয়স পর্যন্ত শিশুকে মায়ের দুধ খাওয়াতে হবে।যেসব শিশুকে মায়ের দুধ খাওয়ানো না হয় তারা বেশি শ্বাসকষ্টের সমস্যায় ভোগে। তাই শিশুকে অবশ্যই মায়ের দুধ খাওয়াতে হবে।

গরম-ঠাণ্ডা

অতিরিক্ত গরম-ঠাণ্ডা থেকে শিশুর শ্বাসকষ্টের সমস্যা হতে পারে। তাই অতিরিক্ত গরমে বা ঠাণ্ডায় যেন শিশুর গা ঘেমে ঠাণ্ডা লেগে না যায় সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে।

ব্রংকিউলাইটিস

ব্রংকিউলাইটিস শিশুদের ফুসফুসের ভাইরাসজনিত সংক্রমণ। এই সংক্রামণ ১ বছরের কম বয়সী শিশুরা বেশি আক্রান্ত হয়।মায়ের দুধ না খাওয়া,যেসব শিশু কম ওজন নিয়ে জন্মায়,তারা বেশি ব্রংকিউলাইটিসে আক্রান্ত হয়। ব্রংকিউলাইটিসের মাত্রা বেড়ে গেলে তা ভয়াবহ আকার ধারণ করতে পারে।তাই সচেতন হতে হবে।

অ্যালার্জি

অ্যাজমা বা হাঁপানি শিশুর শ্বাসনালির এক ধরনের অ্যালার্জি। বাবা-মায়ের থাকলে এই সমস্যা শিশুরও হতে পারে। শিশুর অ্যালার্জির সমস্যা বেশি হলে ডাক্তারের পরামর্শ নিতে হবে।

শিশুর শ্বাসকষ্টের সমস্যা হলে কী করবেন?

ধূমপান

ধূমপান সবার জন্য ক্ষতিকর। তবে এটি শিশুদের জন্য বেশি ক্ষতিকর। তাই শিশুর সামনে ধূমপান করা যাবে না। এছাড়া রান্নার চুলার ধোঁয়া, বাতাসে ধুলোবালি, ফুলের রেণু, কার্পেটের ধুলা থেকে শিশুকে দূরে রাখুন।

খাবার

শিশু মায়ের বুকের দুধ খায়। তাই কোনো খাবারে যদি এলার্জি থাকে তবে তা মা কখনোই খাবেন না। খাবারের ক্ষেত্রে সতর্ক হোন।

ইনহেলার ও নেবুলাইজার ব্যবহার

শিশুর শ্বাসকষ্টজনিত অসুখের চিকিৎসায় ইনহেলার ও নেবুলাইজার ব্যবহার করা হয়ে থাকে। অনেক অভিভাবকই শিশুকে ইনহেলার ব্যবহার করাতে ভয় পান। যদিও ইনহেলার ব্যবহারে ভয়ের কিছু নেই।

ডা.মানিক কুমার তালুকদার, শিশু বিশেষজ্ঞ, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়।

error20
fb-share-icon0
Tweet 10
fb-share-icon20


© All rights reserved 2020 ® newspabna.com

 
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
Wordpress Social Share Plugin powered by Ultimatelysocial
error: Content is protected !!