সংবাদপত্র, টেলিভিশনের অনলাইন সংস্করণে নিবন্ধন লাগবে

নিউজ ডেস্ক : বেসরকারি টেলিভিশন, বেতার ও প্রিন্ট মিডিয়ার অনলাইন সংস্করণ এবং আইপি টিভি ও ইন্টারনেট রেডিও পরিচালনায় সরকারের কাছ থেকে নিবন্ধন নিতে হবে। এ ধরনের বিধান সংযোজন করে অনলাইন গণমাধ্যম নীতিমালা সংশোধনের প্রস্তাব অনুমোদন করেছে মন্ত্রিসভা। ইতিপূর্বে শুধু স্বতন্ত্র নিউজ পোর্টালের ক্ষেত্রে একটি নীতিমালা করা হয়েছিল।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে গতকাল সোমবার অনুষ্ঠিত মন্ত্রিসভার ভার্চুয়াল বৈঠকে ‘জাতীয় অনলাইন গণমাধ্যম নীতিমালা, ২০১৭’-এর খসড়ায় ঐ নীতিগত অনুমোদন দেওয়া হয়। আগের নীতিমালার ৯টি অনুচ্ছেদ সংশোধন করে পাঁচটি নতুন অনুচ্ছেদ অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। অনলাইন নিউজ পোর্টাল নিবন্ধনের যোগ্যতা-অযোগ্যতা, নিবন্ধন ফি, কর্তৃপক্ষ নির্ধারণ, লাইসেন্সপ্রাপ্ত টেলিভিশন চ্যানেল এবং বেতারের নিউজ পোর্টাল হিসেবে প্রচারকাজ পরিচালনা এবং আইপি টিভি ও ইন্টারনেট রেডিওর সম্প্রচার বিষয়ে সুনির্দিষ্ট কোনো নির্দেশনা (নীতিমালায়) ছিল না, এগুলো এখন যুক্ত করা হয়েছে। দেশের বেসরকারি টেলিভিশন এবং বেতারগুলোও এখন নিউজ পোর্টাল চালিয়ে আসছে। এতদিন এজন্য অনুমতি নিতে হতো না, এখন নিতে হবে। আইপি টিভি, ইন্টারনেট রেডিও সম্প্রচারের বিষয়ে (নীতিমালায়) সুনির্দিষ্ট নির্দেশনা ছিল না, এখন এসব বিষয় নীতিমালায় যুক্ত করা হয়েছে।

সভা শেষে মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম সাংবাদিকদের বলেন, পত্রিকাগুলো হার্ড কপিতে যা ছাপছে, হুবুহু সেটাই যদি অনলাইনে দিয়ে দেয়, তাহলে কোনো অনুমতি লাগবে না। কিন্তু যদি কেউ ভ্যারিয়েশন করে, তখন তাকে অনুমতি নিতে হবে। কারণ অনেকেই হুবুহু তা দিচ্ছে না। অনলাইন সংস্করণে ভেরিয়েশন থাকলে লাইসেন্স নিতে হবে।

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জ্যেষ্ঠ পুত্র ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভাই ক্রীড়া সংগঠক শেখ কামালের জন্মবার্ষিকী সরকারিভাবে উদ্যাপনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে মন্ত্রিসভা। যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের প্রস্তাবমতো এখন থেকে প্রতি বছর ৫ আগস্ট দিনটি রাষ্ট্রীয়ভাবে উদ্যাপিত হবে। এ দিনটি ‘ক’ শ্রেণির দিবস হিসেবে পালিত হবে।

বৈঠকে মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ (সংশোধন ) আইন, ২০২০ খসড়া, চিকিত্সা মহাবিদ্যালয় পরিচালনা পরিষদ (রহিতকরণ) আইন, ২০২০ খসড়ায় নীতিগত অনুমোদন দেওয়া হয়। এ ছাড়া সোনাদিয়া গভীর সমুদ্রবন্দর কর্তৃপক্ষ আইন, ২০১২-এর খসড়ায় নীতিগত অনুমোদন বিষয়ে ২০১২ সালের ২ জানুয়ারি মন্ত্রিসভা কর্তৃক গৃহীত সিদ্ধান্ত বাতিলের প্রস্তাব অনুমোদন করা হয়।