ঢাকামঙ্গলবার , ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২২

সাঁথিয়ায় খামারিকে বেঁধে রেখে ১০ গরু ডাকাতি

News Pabna
ফেব্রুয়ারি ২২, ২০২২ ৮:৩৭ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

আরিফ খান, বেড়-সাঁথিয়া, পাবনাঃ পাবনার সাঁথিয়া উপজেলার ভিটাপাড়া গ্রামের আবদুল মোতালেব প্রামাণিক নামের এক খামারিকে বেঁধে ব্যাপক মারধরের পর মহাসড়কের পাশে ট্রাক রেখে তাঁর ১০টি গরু নিয়ে গেছে ১৫ থেকে ২০ জনের একটি সংঘবদ্ধ ডাকাত দল।

 রোববার (২০ ফেব্রয়ারি) রাত দুইটার দিকে পাবনা-বগুড়া মহাসড়কের পাশ থেকে মোতালেবের গরুগুলো ডাকাতি করে নিয়ে যায় ডাকাত দল। খামারির তথ্য মতে গরুগুলোর দাম প্রায় ২০ লাখ টাকা।

 পুলিশ ও ডাকাতির শিকার খামারি সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার ভিটাপাড়া গ্রামের মোতালেব তাঁর বাড়ির খামারে ১০টি গরু লালনপালন করে আসছিলেন। গরুগুলোর আয়েই চলত তাঁর সংসার ও তিন ছেলের পড়াশোনার খরচ। 

দুই-তিন দিন হলো তিনি পাবনা-বগুড়া মহাসড়কের পাশে তাঁর ফসলের খেতের ঘাস খাওয়ানোর জন্য গরুগুলো সেখানে রেখেছিলেন। রোববার রাতে সেখানে পাহারায় ছিলেন মোতালেবসহ তাঁর দুই স্বজন। রাত দুইটার দিকে ১৫ থেকে ২০ জন ডাকাত সেখানে হানা দেয়। ডাকাত দল মোতালেবসহ অন্য দুজনকে বেঁধে ব্যাপক মারধর করে। এরপর সেখানে থাকা সব গরু পাশের মহাসড়কে রাখা ট্রাকে তুলে নিয়ে বগুড়ার দিকে চলে যায়। 

 সোমবার (২১ ফেব্রয়ারি) দুপুরে সরেজমিনে গিয়ে কথা হয় খামারি মোতালেবের সঙ্গে সে কান্নাজড়িত কণ্ঠে বলেন, ‘গরুগুল্যার আয়েই আমার সংসার চলত। অথচ এক রাতেই ডাকাতেরা আমার সব গরু নিয়্যা গেল। আমি নিঃস্ব হয়া গেলাম। এখন আমার ছেলেদের পড়ালেখার খরচ জোগাব কোনথ্যা?’ মোতালেব এর  সঙ্গী আজিজুল হক বলেন, ডাকাতেরা ট্রাক নিয়ে এসেছিল। 

ডাকাতি সংঘটিত হওয়া স্থানের পাশে মহাসড়কে পুলিশের নিয়মিত টহল দল থাকে। গতকাল রাতেও ছিল। কিন্তু রাত দুইটার দিকে টহল পুলিশ চলে যাওয়ার পরপরই ডাকাত দল গরুগুলো নিয়ে যায়। ডাকাতদের মারধর নিয়ে তেমন আক্ষেপ না থাকলেও গরুগুলোর অভাবে কীভাবে তাঁদের সংসার চলবে, সেই চিন্তায় অস্থির হয়ে আছেন তাঁরা।

 সাঁথিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) পরিদর্শক (তদন্ত) কমল কুমার দেবনাথ বলেন, গরুগুলো উদ্ধার ও ডাকাত দলকে ধরার জন্য আমরা মাঠে কাজ করছি। এ ঘটনায় থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে বলে জানান তিনি।