ঢাকাশনিবার , ২২ জানুয়ারি ২০২২

সাঁথিয়ায় দু’পক্ষের সংঘর্ষে আহত-৫, মৃত্যুর গুজবে লুটপাটের অভিযোগ

News Pabna
জানুয়ারি ২২, ২০২২ ১০:৫৫ অপরাহ্ণ
Link Copied!

আরিফ খান,বেড়া-সাঁথিয়া, পাবনাঃ পাবনার সাঁথিয়া দু’পক্ষের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে এতে প্রবাস ফেরত কর্মীসহ ৫জন আহত হয়েছে। আহত একজন রোগীর মৃত্যুর গুজব ছড়িয়ে প্রতিপক্ষের বাড়িতে হামলা ভাংচুর ও লুটপাটের অভিযোগ করেছে স্বজনরা।

জানা যায়, উপজেলার গৌরীগ্রাম ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মানিক শেখ ও ঘুঘুদহ গ্রামের লেবু প্রামানিক গ্রুপের মধ্যে শুক্রবার (২১ জানুয়ারি) বিকালে জমি সংক্রান্ত সালিশী বৈঠকে সংঘষের্র ঘটনা ঘটে। এতে মৃত সুলতান প্রামানিকের ছেলে কামরুল (৩৫), মজনু (৪২) আতিকুল ৪০) বিদেশ ফেরত আনিসুর রহমান (৪৫) ও ইউপি সদস্য মানিক (৪৮) আহত হয়।

শনিবার (২২ জানুয়ারি) সকাল দশটার দিকে আনিসুরের ভুয়া মৃত্যুর গুজব ছড়িয়ে সদ্য ইউপি সদস্য মানিক শেখ এর নেতৃত্বে শতাধিক লোকজন লেবু প্রামানিকের বাড়িতে দেশিয় অস্ত্র নিয়ে হামলা চালিয়েছে বলে দাবি করেন ওই পরিবারের সদস্যরা। এসময় লেবু প্রামানিকের ভাই শরিফুল আতিকুল সিদ্দিকুল ইসলাম ও ভিক্ষুক জাহেনার বাড়িতে হামলা চালিয়ে টিভি, ফ্রিজ, খাট, ধান, ছাগল লুট করে নেন বলে অভিযোগ তাদের। শরিফুলের স্ত্রী স্বপ্না খাতুন জানান, আমার ঘরের বেড়া কেটে মানিক ও তার লোকজন সব কিছু লুট করে নিয়ে গেছে। তিনি আরও জানান, আমার মেয়েদের সখের টিভি ও রান্নার পাত্রও নিয়ে গেছে।

ভিক্ষুক জাহেলা জানান, আমার ভিক্ষার টাকায় করা ঘরের টিন ভেঙ্গে দিয়েছে। রাতে ওরা আবার আসবে। তিনি সম্পদ ও জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন। এসময় আশপাশের লেবুর স্বজনরা লুটের ভয়ে পুলিশের উপস্থিতিতে নিজেদের মালামাল অন্যত্র সরিয়ে নিয়ে যাচ্ছে শনিবার বিকেলে সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়। পরে সংবাদ পেয়ে সাঁথিয়া থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে উত্তপ্ত পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করেন। সেখানে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

স্থানীয়দের সাথে কথা বলে আরও জানা যায়, জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধের জেরে গত বছর মানিকের ছেলেকে ধারালো ফালাবিদ্ধ করে হত্যা করে প্রতিপক্ষ। পরে সদ্য সমাপ্ত ইউপি নির্বাচনে মানিক গৌরীগ্রাম ৯নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য হয়েছেন তাঁর প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছিলেন লেবু প্রামানিক।

সাঁথিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আসিফ মোহাম্মদ সিদ্দিকুল ইসলাম জানান, সংঘর্ষের ঘটনার সংবাদ পেয়ে পুলিশ পাঠিয়ে এলাকার পরিবেশ শান্ত করা হয়েছে। মিথ্যা মৃত্যুও সংবাদ প্রচার করে এলাকায় ভাংচুর চালানো হয়। আমরা লাশের কোন সন্ধ্যান পাইনি। শনিবার সকালে পাবনা সদর হাসপাতাল থেকে আহত আনিসুরকে ছেড়ে দিয়েছেন চিকিৎসকরা