সোমবার, ০২ অগাস্ট ২০২১, ১১:৪৫ পূর্বাহ্ন

সাঁথিয়ায় বেড়া দিয়ে রাস্তা বন্ধ, দুর্ভোগে অর্ধশতাধিক পরিবার

আরিফ খান, বেড়া-সাঁথিয়া : তুচ্ছ ঘটনা নিয়ে বিরোধের জেরে প্রতিপক্ষের উপর প্রতিশোধ নিতে প্রায় অর্ধশত বছরের পুরোনো গ্রামীণ রাস্তায় জোর করে বাঁশের বেড়া ও মাটি খনন করে চলাচলের রাস্তা বন্ধ করে দিয়েছে প্রতিপক্ষরা।

এতে প্রায় অর্ধশতাধিক পরিবারের কয়েশ মানুষ চলাচল করতে পারছেন না। এতে করে চরম ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে পরিবারগুলোর লোকজনকে। প্রতিপক্ষরা বলছে আমাদের ব্যাক্তিগত জায়গায় আমরা বেড়া দিয়েছি। সমাধান চেয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবর লিখিত অভিযোগ দিয়েছে ভুক্তভোগিরা।

এমন ঘটনা ঘটেছে পাবনা সাঁথিয়া উপজেলার করমজা ইউনিয়নে ৮ নং ওয়ার্ডের বড়গ্রাম দত্তপাড়া গ্রামে। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে ঐ এলাকায় যেকোন সময় রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের আশস্কা রয়েছে।

স্থানীয়দের সূত্রে জানা যায়, বড়গ্রাম দত্তপাড়া নজরুল ইসলামের বাড়ি হইতে মজিদ সরদারের বাড়ির পূর্বে পাকা রাস্তা পর্যন্ত চলাচলের একমাত্র রাস্তা বাঁশের বেড়া দিয়ে ও মাটি খনন করে গর্ত করে গাছ লাগিয়ে রাস্তা বন্ধ করে দেয়া হয়েছে।

ভুক্তভোগী নজরুল ইসলাম জানান, আমরা এই রাস্তা দিয়ে প্রায় অর্ধশত বছর যাবত চলাচল করে আসছি। মাসখানেক আগে রাস্তার মালিকানা দাবি করে কাদের খাঁ, আয়ুব খাঁ, আশরাফ খাঁ, সাইদুল খাঁ, আমিরুল খাঁ, ও কামরুল খাঁ বাঁশ দিয়ে বেড়া দিয়ে চলাচল বন্ধ করে দেয়। এতে জরুরি কাজে আমরা বের হতে পারছি না।

তিনি আরও বলেন, তারা আমাদের কোনো কথাই শুনছে না। বর্তমানে আমাদেরকে অন্যের একটি বাড়ির উপর দিয়ে ঘুরে যেতে হচ্ছে যা খুবই কষ্টকর। এই রাস্তা দিয়ে মাঠে যায় গ্রামের অনেক মানুষ। তারাও মাঠে যেতে পারছে না। বর্তমানে আমরা চরম দূর্ভোগের মধ্যে পরিবার নিয়ে বসবাস করছি। এই রাস্তায় সরকারি জায়গা আছে ১৮ ফিট। আমরা দ্রুত চলাচলের জন্য প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করছি।

ভুক্তভোগী কেসমত আলী বলেন, রাস্তার সমাধান চেয়ে ইউনিয়ন পরিষদে বিচার দিয়েছিলাম। চেয়ারম্যান তাদের একাধিকবার নোটিশ করলেও তারা হাজির হয় নাই। আমরা বাধ্য হয়ে বুধবার (০৯ জুন) উপজেলা প্রশাসন বরাবর একটি লিখিত অভিযোগ দিয়েছি। এই রাস্তা নিয়ে ১৯৮৪ সালের সাবেক করমজা ইউনিয়নের মৃত মনতাজ আলী (চতুর) সমাধান করে দিয়েছিল। তারপরও তারা মাঝে মধ্যেই ঝগড়া লাগলেই রাস্তা বন্ধ করে দেয়। আমরা এর স্থায়ী সমাধান চাই।

রাস্তা দখলকারী কাদের খাঁ’র ছোট ছেলে মনজু বলেন, রাস্তার জায়গাটি আমাদের জমির মধ্যে পড়েছে তাই আমরা জায়গাটি বাঁশের বেড়া দিয়েছি। ওদের সাথে আমার বড় ভাই আমিরুল ধান কাটতে গেছিল ওরা কয় ভাই মিলে আমার ভাইকে মারছিল। তাই এতদিনও আমরা রাস্তার জায়গা দিয়েছি, কিন্তু এখন আর দেবো না ওরা কন দিয়ে যাবি তা জানিনে।

করমজা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা হোচেন আলী বাগচী বলেন, এ বিষয়টি নিয়ে সমাধানের জন্য আমার কাছে এক পক্ষ আসে আমি নোটিশ এর মাধ্যমে অপর পক্ষকে উপস্থিত হতে বলি। কিন্তু প্রতিপক্ষ উপস্থিত হয়নি। প্রতিপক্ষ বলেন, ঘটনাস্থলে গিয়ে সালিশ করতে হবে। কিন্তু আমি চাচ্ছিলাম পরিষদে বসে মিমাংসা করে ঘটনাস্থলে গিয়ে জায়গা মাপঝোগ দিয়ে এর একটা সমাধান করে দিব। তবে আমি সমস্যাটি সমাধান করার জন্য চেষ্টা করছি।

সাঁথিয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার এস এম জামাল আহমেদ বলেন, এ বিষয়ে অভিযোগ পেয়ে খাঁজ খবর নিয়ে জেনেছি জায়গাটি ব্যাক্তি মালিকানাধীন। আর ব্যাক্তি মালিকানাধীন জায়গা হলে আমাদের খুব একটা করণীয় থাকে না। বিষয়টি নিয়ে মাসিকসভায় আলোচনা করা হবে। তারপরও বিষটি সুরাহার জন্য চেয়াম্যানকে বলেছি। এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেয়া হবে।

0
1
fb-share-icon1


শৈশব কৈশরের দুরন্ত-দুষ্টু ছেলেটিই আজকের এমপি প্রিন্স

শৈশব কৈশরের দুরন্ত-দুষ্টু ছেলেটিই আজকের এমপি প্রিন্স

শৈশব কৈশরের দুরন্ত-দুষ্টু ছেলেটিই আজকের প্রিন্স অফ পাবনা

Posted by News Pabna on Thursday, February 18, 2021

© All rights reserved 2021 ® newspabna.com

 
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
x
error: Content is protected !!