শুক্রবার, ১৪ মে ২০২১, ০৮:২০ অপরাহ্ন

সাঁথিয়ায় ভিজিডি কার্ডধারী দুস্থদের সঞ্চয় নিয়ে চেয়ারম্যানের নয়ছয়!

আরিফ খান, বেড়া, পাবনাঃ পাবনার সাঁথিয়ায় ভিজিডি ২৩৫জন কার্ডধারীদের সঞ্চয়ের প্রায় ৩ লক্ষ টাকা কম দেয়ার অভিযোগ উঠেছে আর-আতাইকুলা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মিরাজুল ইসলামের বিরুদ্ধে।

অভিযোগে জানা যায়, উপজেলার আর-আতাইকুলা ইউনিয়নের দুস্থ , অসহায় ২৩৫ জন কার্ডধারী রয়েছেন।

তারা ভিজিডি ৩০ কেজি চাল গ্রহণ করতে প্রতি মাসে ২শ টাকা করে দুই বছর জমা রাখেন মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরে ।

দুই বছর শেষ হলে মহিলা বিষয়ক দপ্তর থেকে ইউনিয়ন পরিষদে জমা দিয়ে দেন। বিধি মতে ২বছর পর কার্ডধারীদের প্রত্যেকে ৪ হাজার ৮শ টাকা জমা হওয়ার কথা থাকলেও করোকালীন সময়ে কারও কারও ২/১ মাস সঞ্চয় দেয়া বাদ পড়ায় মুল সঞ্চয় ২/৪ শ টাকা কম হয়।

তাদের সেই সঞ্চয় প্রতি দুই বছর অন্তর অন্তর কার্ডধারীদেরকে সমুদ্বয় অর্থ দিয়ে দেয়ার সরকারী নির্দেশ থাকলেও চেয়ারম্যান মিরাজুল ইসলাম তা দিচ্ছেন না বলে অভিযোগ উঠেছে।

সবাইকে মোট ৩ হাজার টাকা দিয়ে বাকী টাকা পরে দিবে বলে বই রেখে দেন তিনি।

সূত্র জানায়, শুধুমাত্র টাকা পরিশোধ হলেই বই রেখে দেয়ার বিধান রয়েছে। কিন্তু এখানে টাকা পরিশোধ না করেই তাদের সবাইকে ৩ হাজার টাকা করে দিয়ে বই রেখে দিয়েছেন বলে অনেক ভূক্তভোগীরা জানান।

২নং ওয়ার্ডের ভিজিডি কার্ডধারী মাজেদা খাতুন জানান, আমার বইয়ে ৪হাজার ২শ টাকা জমা দিয়েছি, আমাকে প্রথমে ১হাজার টাকা দেয়া হয়। পরে ২ হাজার টাকা দিয়ে কিছু না বলে বই রেখে দেয় চেয়ারম্যান।

আর-আতাইকুলা ইউনিয়নের গ্রাম পুলিশ রতন বলেন, আমার স্ত্রীর নামে ভিজিডি কার্ড। আমাকেও ৩ হাজার টাকা দিয়েছেন। আর দিবেন কিনা তা বলেন নাই। কার্ডধারী বানেছা বেগম ও একই কথা জানায়।

এ বিষয়ে আর-আতাইকুলা ইউনিয়ন পরিষদের সচিব রফিকুল ইসলাম বলেন, চেয়ারম্যান সাহেব কিছু টাকা ভেঙ্গে ফেলার কারণে কার্ডধারীদের জমাকৃত অর্থ ফেরৎ দেয়া হয় নাই। তিনি (চেয়ারম্যান) টাকাগুলো দিয়ে দিলে পরবর্তিতে তাদের দিয়ে দেয়া হবে।

আর-আতাইকুলা ইউপি চেয়ারম্যান মিরাজুল ইসলাম টাকা নেয়ার কথা অস্বীকার করে সাংবাদিকদের বলেন, আমি সচিবের সাথে কথা বলে আপনাকে জানাচ্ছি বলে ফোন কেটে দেন।

সাঁথিয়া উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা আলমগীর কবীর টাকা কম দেয়ার সত্যতা স্বীকার করে জানান, কার্ডধারীদের ৫ মাসের টাকা আমাদের নিকট ছিল।

আমি পরিষদে গিয়ে ২লাখ ২৪ হাজার টাকা জমা দিয়েছি। শুনেছি তাদের জমাকৃত কিছু টাকা ব্যাংকে জমা না দিয়ে চেয়ারম্যান সাহেবের নিকট রয়েছে বলে জানান চেয়ারম্যান। তিনি ঢাকায় আছেন। এলে কার্ডধারীদের জমাকৃত বাকী টাকা দেয়া হবে।

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার এসএম জামাল আহমেদ বলেন, ভিজিডি কার্ডধারীদের সঞ্চয়ের একটি টাকাও কম দেয়ার সুযোগ নেই। চেয়ারম্যান সাহেব টাকা ভেঙ্গে থাকলে তা তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।

0
1
fb-share-icon1


শৈশব কৈশরের দুরন্ত-দুষ্টু ছেলেটিই আজকের এমপি প্রিন্স

শৈশব কৈশরের দুরন্ত-দুষ্টু ছেলেটিই আজকের এমপি প্রিন্স

শৈশব কৈশরের দুরন্ত-দুষ্টু ছেলেটিই আজকের প্রিন্স অফ পাবনা

Posted by News Pabna on Thursday, February 18, 2021

© All rights reserved 2021 ® newspabna.com

 
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
x
error: Content is protected !!