সোমবার, ২৫ জানুয়ারী ২০২১, ০৪:০৭ অপরাহ্ন

আতঙ্কিত হবেন না
করোনা সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন

সাঁথিয়ায় মহাসড়ক দখল করে হাট; তীব্র যানজট

সাঁথিয়ায় মহাসড়ক দখল করে হাট; তীব্র যানজট। ছবি : সিটিজেনস ভয়েস পাবনা।

image_pdfimage_print

বার্তাকক্ষ : পাবনার সাঁথিয়া উপজেলার কাশীনাথপুর ও করমজা হাট এলাকায় আবারও মহাসড়ক দখল করে দোকানপাট বসানো হয়েছে।

এতে ঢাকা-পাবনা মহাসড়কের ওই দুই স্থানে প্রতি হাটবার তীব্র যানজট তৈরি হচ্ছে। এতে দুর্ভোগে পড়ছেন চালক ও যাত্রীরা।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, কাশীনাথপুরে রবি ও বৃহস্পতিবার এবং করমজায় শনি ও মঙ্গলবারে হাট বসে। দুটি হাটই মহাসড়কসংলগ্ন। মহাসড়কের অংশ দখল করে হাট বসায় ও দোকানপাট গড়ে উঠেছে।

উপজেলা প্রশাসন ২০১৪ সালের ১৫ সেপ্টেম্বর কাশীনাথপুরে এবং ২০১৬ সালের ৩ জুন করমজা হাটে অভিযান চালিয়ে শতাধিক অবৈধ দোকানপাট উচ্ছেদ করে।

মহাসড়কে যাতে হাট বসতে না পারে সে ব্যাপারে প্রশাসন ও হাট কমিটির পক্ষ থেকেও ছিল বিশেষ নজর। ফলে দুটি স্থানেই যানজট কমে গিয়েছিল।

কিন্তু সেই অবস্থা বেশি দিন স্থায়ী হয়নি। উচ্ছেদ অভিযানের ছয় মাস পরই দুটি স্থানেই আবারও অবৈধ স্থাপনা ফিরে আসতে থাকে।

এ ছাড়া মহাসড়কের ওপর হাট যাতে বসতে না পারে সে ব্যাপারেও নজরদারি কমে গেছে। ফলে দুটি স্থানেই আবারও তীব্র যানজট সৃষ্টি হচ্ছে।

হাটবারে দুটি স্থানে চার থেকে পাঁচ কিলোমিটার যানজটের সৃষ্টি হয়। আধা ঘণ্টা থেকে দুই ঘণ্টা পর্যন্ত বিভিন্ন যানবাহনকে আটকে থাকতে হচ্ছে।

সম্প্রতি সরেজমিনে দেখা যায়, ওই দুটি স্থানে মহাসড়ক দখল করে ফল, কাপড়, আসবাব, মুদিখানা, পান-সিগারেট, সবজি প্রভৃতির অসংখ্য দোকান বসেছে।

দুটি হাটের সাত-আটজন অবৈধ দোকানদার বলেন, এর আগে উচ্ছেদের কারণে কয়েক মাস তাঁরা বেকার হয়ে বসেছিলেন। পেটের তাগিদেই তাঁরা বাধ্য হয়ে ফিরে এসেছেন।

তাঁরা দাবি করেন, দোকানের জন্য নয়, মহাসড়কে হাটুরেরা সবজি নিয়ে বসার কারণেই যানজটের সৃষ্টি হচ্ছে।

করমজা হাটের যানজটে আটকে থাকাকালে সোনার বাংলা বাসের চালক বাবু মিয়া বলেন, ‘আধঘণ্টা এই জায়গায় আটকায়া আছি। আরও কতক্ষণ থাকা লাগবি কিডা জানে?’

পাবনা মোটর শ্রমিক ইউনিয়নের সহসভাপতি রইজউদ্দিন বলেন, ‘হাটবার এলেই কাশীনাথপুর ও বেড়া বাসস্ট্যান্ডসংলগ্ন করমজা হাটে অসহনীয় যানজট হচ্ছে। এতে যাত্রীরা যেমন চরম দুর্ভোগ পোহাচ্ছেন, তেমনি প্রায় বাসের ট্রিপগুলোও মিস হয়ে যাচ্ছে। যানজট দূর করার ব্যাপারে আমরা প্রশাসনের কাছে বহুবার আবেদন করেও কোনো ফল পাচ্ছি না।’

কাশীনাথপুর হাট কমিটির সভাপতি ও কাশীনাথপুর ইউপি চেয়ারম্যান মীর মঞ্জুর এলাহী বলেন, ‘শুধু মহাসড়কের জায়গায় অবৈধ দোকানগুলো ফিরে আসার কারণেই যানজট হচ্ছে না। বরং হাটের ব্যাপক জায়গা দখল করে পাকা দোকানপাট গড়ে ওঠার কারণেও যানজট হচ্ছে। আর হাটুরেরা পণ্য নিয়ে যাতে মহাসড়কে বসতে না পারেন, সে ব্যাপারে হাট কমিটির পক্ষ থেকে হাটে লোক দেওয়া আছে।’

করমজা হাট কমিটির সহসাধারণ সম্পাদক মোহসীন আলী বলেন, ‘মহাসড়কের দুপাশের ফুটপাত থেকে অবৈধ দোকান তুলে দিলে যানজট অনেক কমে যাবে। বিষয়টি সম্পর্কে আমরা (হাট কমিটি) প্রশাসনকে জানিয়েছি।’

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) জাহাঙ্গীর আলম বলেন, ‘আমরা দুটি স্থানেই অবৈধ দোকান চিহ্নিত করে তালিকা করেছি। শিগগিরই উচ্ছেদ অভিযান চালানো হবে।’

0
1
fb-share-icon1

Best WordPress themes


© All rights reserved 2020 ® newspabna.com

 
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
error: Content is protected !!