বৃহস্পতিবার, ২০ ফেব্রুয়ারী ২০২০, ০৩:১৯ অপরাহ্ন

সাঁথিয়ায় মাইক্রোবাসসহ অপহরণকারীচক্রের ২ সদস্য আটক

সাঁথিয়া প্রতিনিধি : পাবনার সাঁথিয়া উপজেলার চতুরবাজারের ব্যবসায়ীদের মধ্যে চলছিল অপহরণ আতঙ্ক। বহুল আলোচিত অপহরণকারীচক্রের ২ সদস্য কে আটক করেছে পুলিশ।

আটককৃতরা হলেন বেড়া থানার মানিকআর দক্ষিনপাড়া গ্রামের গোলজার শেখের ছেলে সোহেল (২১) ও আমিনপুর থানার নয়াবাড়ি গ্রামের হাসেম মোল্লার ছেলে পিয়াশ (২০)। এ সময় তাদের হেফাজতে থাকা অপহরণকাজে ব্যবহৃত একটি মাইক্রোবাসও আটক করা হয়েছে।

জানা যায়, করমজা চতুরহাটের বিভিন্ন ব্যবসায়ীদের বাড়ি ফেরার পথে রাস্তা থেকে অপহরণ করা হতো। এরপর নির্যাতনের খবর দিয়ে পরিবারের লোকজনের কাছে থেকে নেওয়া হয় মোটা অঙ্কের অর্থ। টাকা নিয়ে মুখ নাখুলতে হুমকিও দেওয়া হতো।

উল্লেখ্য, গত ৩১ ডিসেম্বর রাত ১১ টার দিকে বাড়ি ফেরার পথে অপহরণ হয় চতুরবাজারের ব্যবসায়ী ভজন (৫৫)। অপহরণকারীরা চোখ বেঁধে বিভিন্ন জায়গায় ঘুরানোর পর পাবনার ঢালারচর নামক স্থানে নিয়ে শারীরিক নির্যাতন চালায়।

নির্যাতনের মুখে পরিবারের লোকজনকে মুঠোফোনের মাধ্যমে মোটা অঙ্কের অর্থ দাবী করে অপহরণকারীরা। এরপর ১ জানুয়ারি দুপুরের দিকে তাকে মুক্তিপণ নিয়ে ছেড়ে দেওয়া হয়।

এমন ঘটনায় ব্যবসায়ীদের মাঝে আতঙ্কের রেশ কাটতে না কাটতেই আবারও গত ১৮ জানুয়ারী রাত ১০টার দিকে মুদি দোকান বন্ধ করে বাসায় ফেরার পথে করমজা ইউনিয়নের মল্লিকপাড়া খড়বাগানের সামনে থেকে অপহরণ করা হয় আরেক চতুর বাজারের ব্যবসায়ী জিকরুল (২৩)কে।

স্বজনরা জানান, প্রতিদিনের ন্যায় সে দিনও বাসায় ফিরছিল জিকরুল। পথিমধ্যে অপহরণচক্রের সদস্যরা তাকে পথরোধ করে চোখ বেঁধে তুলে নিয়ে যায়। এরপর স্বজনদের মুঠোফোনে জিকরুলের ফোন থেকে ফোন দেয় অপহরণকারীরা। তাকে ছেড়ে দিতে মোটা অংকের অর্থ দাবী করে। না দিলে প্রাণে মেরে ফেলার হুমকিও দেওয়া হয়। এরপর ১৯ জানুয়ারী সকালের দিকে তাকে মুক্তিপণ নিয়ে ছেড়ে দেওয়া হয়।

এ ব্যাপারে সাঁথিয়া থানার ওসি (তদন্ত) আমিনুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, আমরা অপহরণকারী গ্যাং এর সক্রিয় ২ সদস্যকে আটক করেছি। এরা এলাকা ও এলাকার বাইরে বিভিন্নস্থানে অপকর্ম করে বেড়াতেন।

আটককৃতদের আজ বুধবার (২২ জানুয়ারী) পাবনা আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

এই গ্যাং এর সকল সদস্যকে আটক করতে সাঁথিয়া থানার অফিস ইনর্চাজ আসাদুজ্জামানের নেতৃত্বে একটি বিশেষ টিম নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে বলেও জানান পুলিশের ওই কর্মকর্তা।


© All rights reserved 2020 ® newspabna.com

 
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
error: Content is protected !!