শুক্রবার, ২৩ অক্টোবর ২০২০, ১২:৫২ পূর্বাহ্ন

আতঙ্কিত হবেন না
করোনা সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন

সাঁথিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স; সাত বছর কর্মস্থলে নেই দুই চিকিৎসক

image_pdfimage_print

বার্তাকক্ষ : প্রায় সাত বছর ধরে বিনা অনুমতিতে পাবনার সাঁথিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের দুজন চিকিৎসক কর্মস্থলে অনুপস্থিত রয়েছেন। তাঁরা হলেন সহকারী সার্জন সোহেলী সোবাহান ও শিশু বিশেষজ্ঞ খুরশিদ আলম। অনুপস্থিত চিকিৎসকেরা ঠিক কোথায় রয়েছেন, সে ব্যাপারে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স কর্তৃপক্ষ কিছুই জানাতে পারেনি।

এদিকে ৫০ শয্যার সাঁথিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এমনিতেই রয়েছে চিকিৎসকের সংকট। সেখানে ২১ জন চিকিৎসকের স্থলে দায়িত্ব পালন করছেন ৪ জন। তাই ওই দুই চিকিৎসক দীর্ঘদিন ধরে অনুপস্থিত থাকায় স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসাব্যবস্থা আরও ভেঙে পড়েছে।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সূত্রে জানা গেছে, সোহেলী সোবাহান স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে সহকারী সার্জন হিসেবে যোগ দেন ২০১০ সালের ১ জুলাই। এরপর ওই বছরেরই ৮ জুলাই থেকে তিনি টানা অনুপস্থিত রয়েছেন।

অন্যদিকে শিশু বিশেষজ্ঞ হিসেবে ২০১০ সালের ২৬ ডিসেম্বর যোগ দেন খুরশিদ আলম। মাত্র ১৫ দিন দায়িত্ব পালনের পর ২০১১ সালের ১০ জানুয়ারি থেকে তিনি অনুপস্থিত রয়েছেন। অনুপস্থিত থাকা চিকিৎসক দুজন প্রথমে স্বল্পমেয়াদি ছুটির আবেদন জমা দিয়েই স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ছেড়ে যান। সেই ছুটির পর বিভিন্ন কারণ দেখিয়ে তাঁরা আবারও ছুটির আবেদন করেন। কিন্তু সেই ছুটি মঞ্জুর না হওয়া সত্ত্বেও তাঁরা আর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে যোগ দেননি।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, দীর্ঘদিন অনুপস্থিত থাকার বিষয়ে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর ওই দুই চিকিৎসকের ঠিকানায় বারবার কারণ দর্শানোর নোটিশ পাঠিয়েছে। তাঁরা এসব নোটিশের জবাব দিয়েছেন কি না, সে ব্যাপারে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স কর্তৃপক্ষ কিছু জানাতে পারেনি। শুধু তা-ই নয়, তাঁরা কে কোথায় আছেন, সে ব্যাপারেও স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে কোনো তথ্য নেই। স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ছেড়ে যাওয়ার পর থেকে তাঁরা বেতন-ভাতাদিও নিতে আসেন না।

উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা মোজাফফর হোসেন বলেন, ‘অনুপস্থিত চিকিৎসক দুজন কোথায় রয়েছেন, তা আমাদের সম্পূর্ণ অজানা। আমি এ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে যোগ দেওয়ার পর থেকে তাঁদের কথা শুনে এলেও তাঁদের দেখিনি। তাঁদের ব্যাপারে আমি সংশ্লিষ্ট কার্যালয়ে বারবার লিখেছি। স্বাস্থ্য অধিদপ্তর ও সিভিল সার্জন কার্যালয় থেকে তাঁদের ব্যাপারে শিগগিরই চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হতে পারে। এমনিতেই প্রয়োজনীয় চিকিৎসক নেই, তার ওপর দুজন চিকিৎসকের অনুপস্থিতির কারণে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাসেবা ব্যাহত হচ্ছে।’-সূত্র: প্রথম আলো

Best WordPress themes


© All rights reserved 2020 ® newspabna.com

 
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
error: Content is protected !!