সোমবার, ০১ জুন ২০২০, ০২:৫৬ পূর্বাহ্ন

আতঙ্কিত হবেন না
করোনা সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন

সাবেক ভুমিমন্ত্রী, পাবনা-৪ আসনের এমপি শামসুর রহমান শরীফ আর নেই

পাবনা প্রতিনিধি : পাবনা জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি, সাবেক ভূমিমন্ত্রী, ভাষা সৈনিক ও মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব শামসুর রহমান শরীফ এমপি আর নেই।

বৃহস্পতিবার (০২ এপ্রিল) ভোর সাড়ে পাঁচটায় ঢাকা ইউনাইটেড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান (ইন্নালিল্লাহে……রাজেউন)।

শামসুর রহমান শরীফ এমপি’র ছেলে সাকিবুর রহমান শরীফ কনক এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিলো ৮১ বছর।

বিগত প্রায় ৭ মাস ধরে তিনি বার্ধক্য ও দুরারোগ্য রোগে ভুগছিলেন। প্রথমে ঢাকার ল্যাবএইড হাসপাতালে চিকিৎসা গ্রহণের পর তিনি লন্ডনে গিয়ে চিকিৎসা গ্রহণ করেন। লন্ডন থেকে ফিরে কিছুদিন ভাল থাকার পর অসুস্থ হলে আবারো ল্যাবএইডে ভর্তি হন।

সেখান থেকে তাকে ভারতের মুম্বাই টাটা মেমোরিয়াল হাসপাতালে নেয়া হয়। সেখানে প্রায় দুই মাস চিকিৎসা গ্রহণের পর ঢাকায় ফিরে আসেন। পরে আবারো তাকে ল্যাবএইডে ভর্তি করা হয়। সেখান থেকে ইউনাইটেড হাসপাতালে নেয়া হয়। আজ ইউনাইটেড হাসপাতালেই তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।

এই নেতা পাবনা-৪ (ঈশ্বরদী-আটঘরিয়া) আসনের চলতি সংসদের জাতীয় সংসদ সদস্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করছিলেন। ১৯৯৬ থেকে ২০১৮ পর্যন্ত পর পর ৫ বার জাতীয় সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। বিগত সংসদে তিনি ভূমিমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেন।

বর্ষিয়াণ নেতা শামসুর রহমান শরীফ এমপি’র সুদীর্ঘ রাজনৈতিক জীবনে অত্যাচার, জেল-জুলুম ও নির্যাতন সহ্য করেছেন। এক সময়ের প্রতাপশালী জমিদার বংশের সন্তান শরীফ পাবনা জিলা স্কুলের ছাত্র থাকা অবস্থায় ভাষা আন্দোলনে যোগ দিয়েছিলেন।

১৯৭১ সালে ঈশ্বরদী ও পাকশী এলাকায় এলাকায় মুক্তিযুদ্ধ সংগঠিত করার কাজে তার ভুমিকা ছিল অনন্য। শামসুর রহমান শরীফ এমপি একাত্তরে মহান মুক্তিযুদ্ধের প্রাক্কালে ২৯ মার্চ ঈশ্বরদীর মাধপুরে পাকবাহিনীর প্রতিরোধ যুদ্ধের নেতৃত্ব দেন।

পঁচাত্তরে পট পরিবর্তনের পর তিনি দীর্ঘদিন বিনা বিচারে জেলখানায় বন্দি জীবনযাপন করেন। স্বৈরাচার বিরোধী আন্দোলন ও গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারে আন্দোলনে পাবনা জেলায় তার ভূমিকা ছিল অনন্য। ওয়ান ইলেভেনের পরও তাকে কারাগারে আটকে রাখা হয়।

অত্যাচার, জুলুম, নির্যাতন সহ্য করার পাশাপাশি বিভিন্ন সময়ে স্বৈরাচার ও অগণতান্ত্রিক সরকারের লোভনীয় প্রস্তাব ঘৃণাভরে প্রত্যাখ্যান করে পাবনা জেলায় একনিষ্ঠভাবে আওয়ামী লীগের রাজনীতিকে অগ্রগামী করেছেন।

শামসুর রহমান শরীফ এমপি পাবনা জেলায় সকলের প্রিয় ‘ডিলু ভাই’ নামে পরিচিত। বর্তমান জাতীয় সংসদে মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সদস্য থাকলেও তিনিই একমাত্র ভাষা সৈনিক ছিলেন।

গত ১০ই মার্চ (২৬ ফাল্গুন) ঈশ্বরদীতে জননেতা শামসুর রহমান শরীফ এমপি’র ৮০তম জন্মদিন পালিত হয়। ওইদিন সন্ধ্যায় ঈশ্বরদী ছাত্রলীগ কার্যালয়ে কেক কেটে তরুণ প্রজন্মের ছাত্ররা তার জন্মদিন পালন করে।

ব্যক্তিজীবনে তিনি ৫ ছেলে ও ৫ কন্যা সন্তানের পিতা ছিলেন। ২য় পুত্র রানা শরীফের কয়েক বছর আগে সড়ক দুর্ঘটনায় প্রাণহানি ঘটে। পুত্র ও কন্যাদের মধ্যে এখনও ১ ছেলে ও ১ কন্যা অবিবাহিত। স্ত্রী কামরুন্নাহার শরীফ ঈশ্বরদী উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগের বর্তমান সভাপতি।

জেষ্ঠ্য ছেলে শরীফ রাসেল বাদে গালিবুর রহমান শরীফ ও সাকিবুর রহমান শরীফ আওয়ামী লীগের রাজনীতির সাথে জড়িত। কনিষ্ঠ ছেলে শিরহান শরীফ তমাল ঈশ্বরদী উপজেলা যুবলীগের সভাপতি। কন্যাদের মধ্যে দ্বিতীয় কন্যা মাহজেবিন শিরিন পিয়া পাবনা জেলা আওয়ামী লীগের মহিলা বিষয়ক সম্পাদক।

বিগত সময়ে তিনি ঈশ্বরদী উপজেলা পরিষদের নির্বাচিত ভাইস চেয়ারম্যান ছিলেন। মেজ জামাতা আলহাজ্ব আবুল কালাম আজাদ মিন্টু ঈশ্বরদী পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি এবং পৌরসভার নির্বাচিত মেয়র।

পাবনা জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শামসুর রহমান শরীফ এমপি’র মৃত্যুর খবর ছড়িয়ে পড়লে এলাকার সকল শ্রেণী ও পেশার মানুষ শোকে মূহ্যমান হয়ে পড়েন।

error20
fb-share-icon0
Tweet 10
fb-share-icon20


© All rights reserved 2020 ® newspabna.com

 
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
Wordpress Social Share Plugin powered by Ultimatelysocial
error: Content is protected !!