শুক্রবার, ০৩ ডিসেম্বর ২০২১, ০৬:১৬ পূর্বাহ্ন

সুজানগরে আ.লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী নিয়ে বেকায়দায় আ.লীগ

05988ae6c5b1cdd3d776cd4a112e3cd85-সুজানগর প্রতিনিধি : আগামী ৭মে অনুষ্ঠিত হবে পাবনার সুজানগরের ১০ ইউপি নির্বাচন। এ নির্বাচনে উপজেলার দুলাই, সাতবাড়ীয়া, মানিকহাট ও হাটখালী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী চেয়ারম্যান প্রার্থীদের নিয়ে বেকায়দায় পড়েছেন দলীয় চেয়ারম্যান প্রার্থীরা।

এসব ইউনিয়নে দলীয় প্রার্থীদের চেয়ে বিদ্রোহী প্রার্থীরা প্রভাবশালী তথা আওয়ামী লীগের ত্যাগি নেতা হওয়ায় নেতা-কর্মীরাও বিভক্ত হয়ে পড়েছেন।

দলীয় সূত্রে জানা যায়, দুলাই ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন পেতে প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নামেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি (বর্তমান চেয়ারম্যান) সিরাজুল ইসলাম শাহজাহান ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক রেজাউল করিম বাচ্চু মোল্লা।

এদের মধ্যে বাচ্চু মোল্লা তৃণমূল ভোটারদের কণ্ঠ ভোটে দলীয় প্রার্থী হন। কিন্তু সিরাজুল ইসলাম শাহজাহান আওয়ামী লীগের হাই কমান্ডের সাথে লবিং করে চুড়ান্ত দলীয় মনোনয়ন ছিনিয়ে আনেন।

এতে বাচ্চু মোল্লা ক্ষিপ্ত হয়ে বিদ্রোহী প্রার্থী হন। ইতিমধ্যে দলের একটা বড় অংশ তার পক্ষে মাঠে নেমে ভোট প্রার্থনা ও ব্যাপক গণসংযোগ করছেন। এতে বেকায়দায় পড়েছেন দলীয় প্রার্থী সিরাজুল ইসলাম শাহজাহান।

সাতবাড়ীয়া ইউনিয়নে তৃণমূল ভোটে এসএম শামছুল আলম দলীয় প্রার্থী হন। তবে তৃণমূল ভোটে পরাজিত প্রার্থী বর্তমান চেয়ারম্যান আবুল হোসেন তৃণমূল ভোটারদের প্রভাবিত করে শামছুল আলম দলীয় প্রার্থী হয়েছেন দাবি করে তিনি বিদ্রোহী প্রার্থী হন। ইতিমধ্যে তিনি ইউনিয়নের সর্বত্র বহাল তবিয়তে তার সমর্থক কর্মীদের নিয়ে ব্যাপকভাবে গণসংযোগ করছেন। ফলে দলীয় প্রার্থী শামছুল আলম অনেকটা কিংকর্তব্যবিমূঢ় হয়ে পড়েছেন।

মানিকহাট ইউনিয়নে দলীয় মনোনয়ন পেতে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন ৪ থেকে ৫ জন প্রার্থী। এদের মধ্যে শফিউল ইসলাম প্রামাণিক তৃণমূল ভোটারদের কণ্ঠ ভোটে দলীয় প্রার্থী হন। কিন্তু দলের হাই কমান্ডের সাথে লবিং করে দলীয় প্রার্থী মনোনীত হন এসএম আমিনুল ইসলাম। তবে তিনি দলীয় প্রার্থী হলেও আঞ্চলিক ইস্যু তথা দলের অভ্যন্তরীণ মতপার্থক্যের কারণে বিদ্রোহী প্রার্থী হন ওমর আলী প্রামাণিক। তার সাথে আওয়ামী লীগের পদ পদবীধারী নেতা-কর্মী না থাকলেও সাধারণ ভোটার সাথে রয়েছেন। তিনি সাধারণ ভোটারদের সাথে নিয়ে নির্বাচনী মাঠ দাপিয়ে বেড়াচ্ছেন।

এতে দলীয় প্রার্থী আমিনুল ইসলামের পক্ষে নির্বাচনে সহজ জয়ের পথ কঠিন হয়ে পড়েছে।

হাটখালী ইউনিয়নে তৃণমূল ভোটে দলীয় প্রার্থী হন বর্তমান চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হাবিবুর রহমান হাবিব। তবে তৃণমূল ভোটে পরাজিত ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুর রশিদ মাস্টার আওয়ামী লীগের সাধারণ নেতা-কর্মী তথা সাধারণ ভোটারা তার সাথে আছে দাবি করে তিনি বিদ্রোহী প্রার্থী হন। অবশ্য তিনি প্রার্থী হওয়ার পর থেকে ওই সকল নেতা-কর্মী ও ভোটারদের সাথে নিয়ে নির্বাচনী মাঠে ব্যাপকভাবে গণসংযোগ করছেন। ফলে দলীয় প্রার্থী হাবিবুর রহমান হাবিবের পক্ষে জয়-পরাজয়ের হিসাব মেলানো কঠিন হয়ে পড়েছে।

অপর দিকে দলীয় প্রার্থী এবং বিদ্রোহী প্রার্থীদের সমর্থক-কর্মীদের মধ্যে ইতিমধ্যে সংঘর্ষ এবং মামলা-মোকদ্দমা দায়ের হওয়ার মত ঘটনা ঘটেছে। নির্বাচনের দিন যত এগিয়ে আসছে দ্বন্দ্ব বিরোধ আরো প্রকোট আকার ধারণ করার সম্ভাবনা রয়েছে বলে সচেতন মহল মনে করছেন

0
1
fb-share-icon1


© All rights reserved 2021 ® newspabna.com

 
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
x
error: Content is protected !!