রবিবার, ২৫ অক্টোবর ২০২০, ০৯:৫১ অপরাহ্ন

আতঙ্কিত হবেন না
করোনা সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন

সুজানগর উপজেলার গুরুত্বপূর্ণ চার সড়ক গর্তে ভরা, মেরামতের দাবি

image_pdfimage_print

সুজানগর উপজেলা সদর থেকে চলে যাওয়া সড়কগুলোর মধ্যে সুজানগর-নাজিরগঞ্জ, সুজানগর-চিনাখড়া, সুজানগর-আতাইকুলা ও সুজানগর-বোনকোলা সড়ক সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ। এগুলো সড়ক ও জনপথ বিভাগের (সওজ) অধীনে

পাবনার সুজানগর উপজেলা সদর থেকে বিভিন্ন গ্রামে চলাচলের গুরুত্বপূর্ণ সড়কগুলোর পিচ উঠে গেছে। কোনো কোনো সড়ক দেখে মনে হবে কাঁচা রাস্তা। কোনোটি খানাখন্দে ভরপুর। বৃষ্টি হলেই এসব গর্তে পানি জমে কাদা তৈরি হচ্ছে। এর ফলে যানবাহন ঠিকমতো চলাচল করতে পারছে না।

এলাকার লোকজন বলছেন, দীর্ঘদিন ধরে মেরামত না করায় রাস্তাগুলোর অবস্থা এমন বেহাল হয়েছে। এ কারণে তাঁদের দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। তাঁরা দ্রুত রাস্তাগুলো মেরামতের দাবি করেছেন।

ব্যবসায়ী ইদ্রিস আলী বলেন, সুজানগর উপজেলা কৃষিপ্রধান। এখানে পেঁয়াজ, পাটসহ বিভিন্ন ফসল ভালো জন্মে। চাষিরা এসব ফসল উপজেলা সদরের পাইকারি বাজার, আতাইকুলা ও চিনাখড়া হাটে বিক্রি করেন। কিন্তু সড়কগুলোর অবস্থা বেশি খারাপ হওয়ায় পণ্য পরিবহনে দুর্ভোগ হচ্ছে।

স্থানীয় বাসিন্দাদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, উপজেলা সদর থেকে চলে যাওয়া সড়কগুলোর মধ্যে সুজানগর-নাজিরগঞ্জ, সুজানগর-চিনাখড়া, সুজানগর-আতাইকুলা ও সুজানগর-বোনকোলা সড়ক সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ।

এগুলো সড়ক ও জনপথ বিভাগের (সওজ) অধীনে। উপজেলার অধিকাংশ বড় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, প্রশাসনিক দপ্তর, পৌরসভা, কৃষি বিভাগ, পাইকারি হাট, হাসপাতালসহ গুরুত্বপূর্ণ বেশির ভাগ প্রতিষ্ঠান সুজানগর শহরে অবস্থিত।

এ কারণে প্রতিদিন বিভিন্ন গ্রামের কয়েক হাজার মানুষ নানা কাজে উপজেলা সদরে আসা-যাওয়া করেন। সড়কগুলোয় যানবাহন হিসেবে ছোট বাস, শ্যালো ইঞ্জিনচালিত নছিমন ও করিমন, সিএনজি ও ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা, অটোভ্যান, সাইকেল ও মোটরসাইকেল চলে।

কিন্তু দীর্ঘদিন ধরে এসব সড়ক মেরামত করা হয় না। সড়কগুলো দিয়ে এর মধ্যেই ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করতে হচ্ছে। মাঝেমধ্যে ঘটছে দুর্ঘটনাও।

সদরের শহীদ দুলাল পাইলট বালিকা উচ্চবিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মনসুর আলী বলেন, অধিকাংশ বড় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান উপজেলা সদরে অবস্থিত। বিভিন্ন গ্রাম থেকে শিক্ষার্থীরা এসে এখানে পড়ালেখা করে। কিন্তু সড়ক যোগাযোগ ভেঙে পড়ায় তাঁরা ঠিকমতো আসা-যাওয়া করতে পারছে না।

গত মঙ্গলবার সরেজমিনে দেখা যায়, পাবনা সদর উপজেলা থেকে সুজানগর-নাজিরগঞ্জ সড়ক দিয়ে সুজানগর পৌর এলাকায় ঢোকার মুখেই ভাঙা রাস্তা শুরু। যত এগোনো যায়, ততই খারাপ অবস্থা। চিনাখড়া সড়কে কাদা-পানি মাখামাখি। সড়কটিতে পিচের চিহ্নই নেই।

পাশের সুজানগর-আতাইকুলা সড়কেরও একই অবস্থা। দেখে মনে হবে কাঁচা সড়ক। সুজানগর-বোনকোলা সড়ক খানাখন্দে ভরা। এর মধ্যেই হেলেদুলে চলছে যানবাহন।

আশপাশের ১০ জন বাসিন্দা বলেন, ৮ থেকে ১০ বছর আগে এসব সড়কে পিচঢালাই করা হয়েছে। এরপর আর বড় ধরনের সংস্কার হয়নি। মাঝেমধ্যে সড়ক বিভাগ গর্তে সুরকি ও বালি ফেললেও তা সরে গেছে। ফলে গর্তগুলো আরও বড় হয়ে কাদা তৈরি হয়েছে।

চিনাখড়া সড়কের নছিমনচালক মকবুল হোসেন বলেন, ‘বছর দুই আগে সড়কটি নামমাত্র মেরামত হয়েছিল। কিন্তু নিম্নমানের কাজে তা টেকে নাই। বর্তমানে ১১ কিলোমিটার সড়কের পুরোটাই নষ্ট। মাঝেমধ্যেই যানবাহন উল্টে যাত্রীরা আহত হন।’

এ বিষয়ে পৌরসভার মেয়র আবদুল ওহাব বলেন, ‘বেহাল সড়ক নিয়ে বিব্রতকর অবস্থায় আছি। মানুষের দুর্ভোগ চরম আকার ধারণ করেছে। তাঁরা প্রতিনিয়ত আমাদের কাছে অভিযোগ করছেন। সওজ বিভাগকে তা জানাচ্ছি। কিন্তু কিছুতেই কিছু হচ্ছে না।’

জানতে চাইলে সওজ বিভাগের পাবনা কার্যালয়ের নির্বাহী প্রকৌশলী মোফাজ্জল হায়দার বলেন, ‘সড়কগুলো মেরামত করার তাগিদ আমরাও অনুভব করছি। মেরামতের জন্য প্রকল্প দেওয়া হয়েছে। বরাদ্দ পেলে কাজ শুরু করা হবে। তবে আপাতত সড়কগুলো চলাচলের উপযোগী করতে ব্যবস্থা নিব।’

Best WordPress themes


© All rights reserved 2020 ® newspabna.com

 
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
error: Content is protected !!