শনিবার, ১৬ জানুয়ারী ২০২১, ০৫:২৫ অপরাহ্ন

আতঙ্কিত হবেন না
করোনা সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন

সেই অ্যাম্বুলেন্সে এখন চলছে যাত্রী পরিবহণ !

ভ্রাম্যমান অ্যাম্বুলেন্স এখন যাত্রী পরিবহণ !

image_pdfimage_print
ভ্রাম্যমান অ্যাম্বুলেন্স এখন যাত্রী পরিবহণ !

ভ্রাম্যমান অ্যাম্বুলেন্স এখন যাত্রী পরিবহণ !

চাটমোহর প্রতিনিধি: চাটমোহর উপজেলার গ্রামীণ প্রসূতি মা, শিশু এবং দুস্থ্য রোগীদের চিকিৎসা সেবা ত্বরান্বিত করতে গত ১ জুন থেকে চালু হওয়া ভ্রাম্যমান অ্যাম্বুলেন্স সেবা এখন যাত্রী পরিবহণে ব্যবহৃত হচ্ছে।

ইউনিয়ন পরিষদের অর্থায়নে ব্যতিক্রমী সেবামূলক এই উদ্যোগ গ্রামের হত দরিদ্রদের জন্য আশার আলো জাগিয়েছিল। কারণ তারা সহজেই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে স্বল্প ব্যয়ে জরুরী রোগি নিয়ে আসতে পারবেন।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার বেগম শেহেলী লায়লার বিশেষ উদ্যোগে উপজেলার ১১টি ইউনিয়নে প্রায় ২৬ লাখ টাকা ব্যয়ে প্রতিটি ইউনিয়নে ১টি করে (ব্যাটারি চালিত অটোরিকশায়) ভ্রাম্যমান অ্যাম্বুলেন্স চালু করা হয়। কিন্তু তাঁর এই উদ্যোগ অঙ্কুরেই বিনষ্ট হতে চলেছে। অ্যাম্বুলেন্স চালক চৌকিদাররা তাদের সরকারি দায়িত্ব বাদ দিয়ে দিব্যি যাত্রী পরিবহণ বানিয়ে হাতিয়ে নিচ্ছেন শ’শ’ টাকা।

সরকারি যেকোন কিছু অযত্ন কিংবা অপব্যবহার হয় বলে অনেকেই ব্যঙ্গ করে বলেন-“সরকারি মাল দরিয়া মে ঢাল”! এই ব্যঙ্গাত্বক বাক্যের সত্যতা এখন চাটমোহরের অ্যাম্বুলেন্স সার্ভিস।

ইউনিয়ন পরিষদে দেওয়া এই অ্যাম্বুলেন্স এখন রিক্সা, ভ্যান, অটোভ্যান, নসিমন-করিমনের মতোই লোকাল যাত্রী পরিবহণ করছে। গুনাইগাছার সেই অ্যাম্বুলেন্স চালক গ্রাম পুলিশ বিশ্বনাথ এখন বেপরোয়ারা। তিনি সারা চাটমোহরে চষে বেড়াচ্ছেন এই গাড়ি নিয়ে। প্রতিদিন কামাই নাকি তার হাজার টাকা। ইউনিয়ন সচিব তাকে অনুমতি দিয়েছে যাত্রী পরিবহণের! পাবনায় বাড়ি এই ইউপি সচিবের নাকি ব্যাপক দাপট। কাউকে পরোয়া করেননা।

অপরদিকে মথুরাপুর ইউনিয়নের অ্যাম্বুলেন্সটি চালাচ্ছেন ওই ইউনিয়নের চৌকিদার আমির হোসেনের ছেলে ৮ম শ্রেনী পড়ুয়া ছাত্র রবিন। বাবা চৌকিদার তাই গাড়িটি এখন তাদের। আমির চৌকিদার এ গাড়ি চালাতে পারে না, সে জন্যই ছেলে চালায়। এভাবেই চলছে চাটমোহরের ইউনিয়নের অর্থায়নে কেনা অ্যাম্বুলেন্সগুলো।

এ ব্যাপারে  মঙ্গলবার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার সাথে কথা বলার জন্য তাঁর কার্যালয়ে গেলে, তিনি ছিলেন না। জরুরী প্রশাসনিক কাজে পাবনা ছিলেন। এখন এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বেগম শেহেলী লায়লা কী পদক্ষেপ নেন, তাই দেখার বিষয়।

0
1
fb-share-icon1

Best WordPress themes


© All rights reserved 2020 ® newspabna.com

 
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
error: Content is protected !!