সেই মেধাবী তৃষার পাশে পাবনার জেলা প্রশাসক

বিশেষ প্রতিনিধি : পাবনার ভাঙ্গুড়ার সেই তৃষা পারভীনের মেডিকেল কলেজে ভর্তির জন্য আর্থিক সহায়তার হাত বাড়িয়েছেন পাবনার জেলা প্রশাসক কবীর মাহমুদ।

মঙ্গলবার (২২ অক্টোবর) জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে ভাঙ্গুড়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার সৈয়দ আশরাফুজ্জামানের মাধ্যমে তৃষা ও তার অভিভাবককে ডেকে নিয়ে তৃষার হাতে ২০ হাজার টাকার চেক তুলে দেন জেলা প্রশাসক কবীর মাহমুদ।

এসময় তৃষাকে প্রতি মাসে মাসে একটা আর্থিক সহায়তারও ঘোষণা দেন জেলা প্রশাসক।

এ যেন গোবরে পদ্মফুল ভাঙ্গুড়ার তৃষা’ শিরোনামে গত ১৭ অক্টোবর নিউজ পাবনা ডটকম পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশের পর জেলা প্রশাসন মেডিকেলে ভর্তি বাবদ ২০ হাজার টাকা তৃষার হাতে তুলে দেন।

এর মধ্য দিয়ে তৃষা পারভীনের মেডিকেলে ভর্তির পথ সুগম হলো।

এসময় উপস্থিত ছিলেন ভাঙ্গুড়ার ইউএনও সৈয়দ আশরাফুজ্জামান, তৃষার পিতা মোঃ মজিবর রহমান।

ভাঙ্গুড়া উপজেলার পারভাঙ্গুড়া ইউনিয়নের পাটুলীপাড়া গ্রামের দরিদ্র কৃষক মজিবর-কুরসি দম্পতির পাঁচ ছেলে মেয়ের মধ্যে কনিষ্ঠ মেয়ে তৃষা পারভীন।

সংসারে অভাবের কারণে অন্য ছেলেমেয়েকে পড়ালেখা করাতে না পারলেও অদম্য মেধার কারণে আর্থিক কষ্টের মধ্য দিয়ে তৃষার দুই ভাই তার পড়া লেখার খরচ চালাচ্ছিলেন।

দরিদ্র পরিবারের তৃষা ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষের মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষায় হবিগঞ্জ মেডিকেলে চান্স পায়। এতে তার পরিবারে একদিকে যেমন আনন্দের বন্যা বইতে থাকে অন্যদিকে মেডিকেলে ভর্তি ও পড়ার খরচ নিয়ে দুঃশ্চিতায় পড়ে।

এমন অবস্থার মধ্যে বিভিন্ন গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশের পর জেলা প্রশাসক কবীর মাহমুদ তৃষার মেডিকেল ভর্তির খরচ দেন এবং মাসে মাসে একটা খরচ দেওয়ারও ঘোষণা দেন।

পাশাপাশি ইউএনও সৈয়দ আশরাফুজ্জামান উপজেলা সমাজসেবা অফিসের সহায়তায় তৃষার পড়ালেখার খরচ বাবদ এককালীন ১০ হাজার টাকা অর্থসহায়তা প্রদান করেন।