সোমবার, ২৬ অক্টোবর ২০২০, ০৯:৩১ পূর্বাহ্ন

আতঙ্কিত হবেন না
করোনা সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন

স্বাধীনতার রজতজয়ন্তীতে রূপপুর কেন্দ্র থেকে বিদ্যুৎ উৎপাদন

স্বাধীনতার রজতজয়ন্তীতে রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ

image_pdfimage_print
স্বাধীনতার রজতজয়ন্তীতে রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ

স্বাধীনতার রজতজয়ন্তীতে রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ

ঢাকা অফিস : আগামী ২০২১ সালে বাংলাদেশের স্বাধীনতার রজতজয়ন্তীতে রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রের প্রথম ইউনিট থেকে ১২০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন করা যাবে যাবে বলে আশা প্রকাশ করেছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ এইচ মাহমুদ আলী। এছাড়াও দ্বিতীয় ইউনিট থেকে আরও ১২০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ পাওয়া যাবে ২০২৩ সাল নাগাদ।

মঙ্গলবার (১৪ জুন) রাশিয়া ফেডারেশন’র জাতীয় দিবস উপলক্ষ্যে রাশিয়া দূতাবাসে রাখা বক্তব্যে এমন আশাবাদ ব্যক্ত করেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে যোগ দেন তিনি।পররাষ্ট্র মন্ত্রী বলেন, রাশিয়া রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র স্থাপনে বাংলাদেশকে কারিগরি ও আর্থিক সহায়তা দিচ্ছে। বিদ্যুৎ কেন্দ্রটির মূল কাজ শুরুর লক্ষ্যে রাশিয়ান স্টেট এক্সপোর্ট ক্রেডিট-এর জন্য দুই দেশের মধ্য আন্ত
সরকার ক্রেডিট চুক্তি (আইজিসিএ) করা হয়েছে এবং এ নিয়ে শিগগিরই চূড়ান্ত চুক্তি সই হবে।

রূপপুর কেন্দ্রটি পূর্ণাঙ্গভাবে নির্মিত হলে বাংলাদেশ নতুন দিগন্তে প্রবেশ করবে আশা ব্যক্ত করে, এ কাজে সহযোগিতার জন্য রাশিয়া সরকারকে ধন্যবাদ জানান তিনি।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বাংলাদেশে নিযুক্ত রাশিয়ান রাষ্ট্রদূত আলেক্সজ্যান্ডার আই ইগনাটভ ও রাশিয়ান দূতাবাসের সংশ্লিষ্ট সবাইকে জাতীয় দিবসের শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানান।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী তার বক্তব্যে, রাশিয়াকে বাংলাদেশের বন্ধু ও গুরুত্বপূর্ণ সহযোগী বলে আখ্যায়িত করেন। স্মরণ করেন, বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধে তৎকালীন সোভিয়েত ইউনিয়নের অসামান্য অবদান।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে রাশিয়ার সঙ্গে বাংলাদেশর দ্বি-পাক্ষিক সম্পর্ক নতুন উচ্চতায় উঠেছে বলে উল্লেখ করেন মাহমুদ আলী। বিশেষ করে ২০১৩ সালে প্রধানমন্ত্রীর রাশিয়া সফরের পর দ্বিপক্ষীয় বাণিজ্য এক বিলিয়ন ডলারে নিয়ে যাওয়ার যে লক্ষ্য স্থির করা হয়েছিলো তা পূরণ হওয়ায় উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

ব্যবসা-বাণিজ্য, বিনিয়োগ, সার্বভৌমত্ব রক্ষা, সন্ত্রাসবাদ মোকাবেলা ও শান্তি প্রতিষ্ঠা, বিবাদমান বিষয়গুলোর গ্রহণযোগ্য শান্তিপূর্ণ সমাধানসহ যেসব বিষয়ে দু’দেশের স্বার্থ এক, সেসব ক্ষেত্রে একত্রে কাজ করার আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি।

বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী পারস্পরিক স্বার্থসংশ্লিষ্ট দ্বিপক্ষীয় ও বৈশ্বিক বিষয় নিয়ে আলোচনা করার জন্য অদূর ভবিষ্যতে মস্কোর সফর করে রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী সার্গেই ল্যভরভের সঙ্গে বৈঠকের আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর, পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলমসহ অন্যরা অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।

Best WordPress themes


© All rights reserved 2020 ® newspabna.com

 
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
error: Content is protected !!