শুক্রবার, ১৮ জুন ২০২১, ০৮:৫৩ পূর্বাহ্ন

বেড়া পৌরসভায় ১৮বছর পর ভোট উৎসব !

বেড়া পৌরসভায় ১৮বছর পর ভোট উৎসব

বেড়া পৌরসভায় ১৮বছর পর ভোট উৎসব

বেড়া পৌরসভায় ১৮বছর পর ভোট উৎসব

বেড়া প্রতিনিধি: ১৯৯৯ সালের ২৩ ফেব্রুয়ারি পাবনার বেড়া পৌরসভার সর্বশেষ নির্বাচন হয় । এর প্রায় দেড় যুগ পর আগামী ৭ আগস্ট পৌরসভাটিতে আবার ভোট হবে। এ উপলক্ষে পৌর এলাকায় উৎসবের আমেজ বিরাজ করছে।

উপজেলা নির্বাচন কার্যালয় সূত্র জানায়, সীমানা-সংক্রান্ত জটিলতায় পাল্টাপাল্টি মামলা হওয়ার কারণে এত দিন বেড়া পৌরসভার নির্বাচন বন্ধ ছিল। ২০১১ সালের ৭ জুন সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগের রায়ে মামলার নিষ্পত্তি হয়।

রায়ে সাঁথিয়া উপজেলার করমজা হাটসহ আমাইকোলা, দত্তকান্দি ও করমজা নিশিবাড়ি বেড়া পৌরসভার অংশ হিসেবে স্বীকৃতি পায়। এরপর সম্প্রসারিত অংশ নিয়ে ওয়ার্ড পুনর্বিন্যাসের কাজ শুরু হয়।

পুনর্বিন্যাসের কাজ চলাকালে গত বছরের ৬ জুলাই নির্বাচন কমিশন সম্প্রসারিত অংশকে বাইরে রেখে পৌরসভার নির্বাচনী তফসিল ঘোষণা করে।

ওই তফসিল অনুযায়ী গত বছরের ২৭ আগস্ট নির্বাচন হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু সম্প্রসারিত অংশ বাদ রেখে নির্বাচন অনুষ্ঠানের ব্যাপারে রিট আবেদন করা হলে উচ্চ আদালত নির্বাচন স্থগিত করে দেন।

রায় মোতাবেক মাস ছয়েক আগে ওয়ার্ড পুনর্বিন্যাসের কাজ শেষ হয়। সে অনুযায়ী পৌরসভার ওয়ার্ডের সংখ্যা নয় থেকে বেড়ে ১০ করা হয়। এরপর গত ২৭ জুন নির্বাচন কমিশন পুনঃতফসিল ঘোষণা করে। ২৩ জুলাই প্রতীক বরাদ্দ করা হয়।

নির্বাচন কার্যালয় সূত্র আরও জানায়, নির্বাচনে মেয়র পদে আওয়ামী লীগ-বিএনপির দুজনসহ মোট তিনজন প্রার্থী হয়েছেন।

আওয়ামী লীগের প্রার্থী উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও বর্তমান মেয়র আবদুল বাতেন। বিএনপি থেকে মনোনয়ন পেয়েছেন পৌর বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক আবদুল মান্নান। স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে আছেন চিকিৎসক আবদুল আউয়াল। এ ছাড়া সাধারণ কাউন্সিলর পদে ৬২ জন ও নারী কাউন্সিলর পদে ১২ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

সরেজমিনে ও পৌরবাসীর সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, বেড়া পৌরসভার নির্বাচনকে ঘিরে এলাকায় ইতিমধ্যে উৎসবের আবহ সৃষ্টি হয়েছে, যা নির্বাচনের দিন ঘনিয়ে আসার সঙ্গে সঙ্গে বাড়ছে।

আনুষ্ঠানিক প্রচারণা শুরুর পর এক সপ্তাহ পেরিয়ে গেলেও এখনো শান্তিপূর্ণ পরিবেশ বজায় রয়েছে। শহরের মূল কেন্দ্র থেকে শুরু করে প্রত্যন্ত এলাকার সর্বত্র পোস্টারে ছেয়ে গেছে।

প্রার্থীদের পক্ষ থেকে দল বেঁধে বাড়ি বাড়ি গিয়ে ভোট চাওয়া হচ্ছে। পৌর এলাকার বাজারগুলোতে লোকসমাগম বেড়ে গেছে। চায়ের দোকানগুলো হয়ে উঠেছে সরগরম।

প্রার্থীদের পক্ষে গান ও বক্তব্য রেকর্ড করে মাইকের মাধ্যমে প্রচার করা হচ্ছে। প্রতিদিনই পৌর এলাকার বিভিন্ন স্থানে হচ্ছে নির্বাচনী পথসভা। সব মিলিয়ে নির্বাচনী প্রচারণা শুরুর পর বেড়া পৌর এলাকার চিরচেনা দৃশ্য অনেকটাই পাল্টে গেছে।

পৌর এলাকার বনগ্রাম মহল্লার ট্রাকচালক জানে আলম প্রচারণা শুরু হওয়ার পর থেকে বাড়িতেই রয়েছেন। তিনি বলেন, ‘ট্রাক চালাই, তাই দ্যাশের ম্যালা জায়গার নির্বাচন দেখার সুযোগ হইছে। কিন্তু আমাগরে পৌরসভায় নির্বাচন নিয়্যা যে আনন্দ দেখা দিছে তা আর কুনু জায়গায় দেখি নাই।’

বেড়া বাজারের হোটেল ব্যবসায়ী এনামুল হক বলেন, ‘এত দিন পরে নির্বাচন। তাই মানুষের মধ্যে ব্যাপক আগ্রহ ও আলোচনা। নির্বাচন উপলক্ষে দোকানের বেচাকেনা বাইরা গেছে।’

উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মোজাম্মেল হক বলেন, ‘বেড়ায় নির্বাচনের সুষ্ঠু পরিবেশ বজায় রয়েছে। সুষ্ঠুভাবে ভোট গ্রহণের যাবতীয় প্রস্তুতি আমাদের রয়েছে।’

0
1
fb-share-icon1


শৈশব কৈশরের দুরন্ত-দুষ্টু ছেলেটিই আজকের এমপি প্রিন্স

শৈশব কৈশরের দুরন্ত-দুষ্টু ছেলেটিই আজকের এমপি প্রিন্স

শৈশব কৈশরের দুরন্ত-দুষ্টু ছেলেটিই আজকের প্রিন্স অফ পাবনা

Posted by News Pabna on Thursday, February 18, 2021

© All rights reserved 2021 ® newspabna.com

 
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
x
error: Content is protected !!