সোমবার, ০৩ অগাস্ট ২০২০, ০৬:০৪ অপরাহ্ন

আতঙ্কিত হবেন না
করোনা সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন

২ ঘণ্টার বেশি স্ক্রিনে তাকানো ডেকে আনবে বিপদ

২ ঘণ্টার বেশি স্ক্রিনে তাকানো ডেকে আনবে বিপদ

এক সন্ধ্যায় চার বছরের আদিয়ানকে নিয়ে রাজধানীর গুলশান এলাকার ‘নান্ডুস’ রেষ্টুরেন্টে খেতে গিয়েছিলেন তার বাবা-মা। কিছুক্ষনের মধ্যে দুরন্ত আরিয়ান এক জায়গায় থেকে আরেক জায়গায় ছুটাছুটি শুরু করে দিল স্বভাবসুলভভাবে । বিরক্ত হয়ে আদিয়ানের বাবা নিজের আইফোনটা বের করে দিলেন ছেলের হাতে । সঙ্গে সঙ্গে ছুটাছুটি বাদ দিয়ে আদিয়ানও বসে গেল গেমস খেলতে।

এ দৃশ্য এখন সারা বিশ্ব জুড়ে। এক-দুই বছর থেকে শুরু করে কম বয়সী সব শিশুর হাতেই এখন স্মার্টফোন ,ট্যাব কিংবা আইফোন। শিশুরা যাতে শান্ত হয়ে এক জায়গায় বসে থাকে সেজন্য বাবা-মা শিশুদের হাতে ধরিয়ে দিচ্ছেন ইলেকট্রনিক্স সব যন্ত্র অথবা টিভিতে কার্টুন ছেড়ে রাখছেন ঘণ্টার পর ঘণ্টা। গবেষণায় দেখা গেছে, ২ থেকে ১০ বছর বয়সী শিশু যারা দিনে ২ ঘণ্টার বেশি টিভি কিংবা কম্পিউটার স্ক্রিনের দিকে তাকিয়ে থাকে তাদের মধ্যে অন্য শিশুদের চাইতে উচ্চ রক্তচাপের ঝুঁকি অনেক বেশি থাকে।

যুক্তরাষ্ট্রের ইন্টারন্যাশনাল জার্নাল অব কার্ডিওলজি ২০১৫ তে এ তথ্য প্রকাশ হয়।

গবেষকরা বলছেন, টিভি দেখার সময় দ্রুত ছবি ও আওয়াজ বদলে যায়। একারণে শিশুদের নিউরোলজিক্যাল সিস্টেমে মারাত্মক কু-প্রভাব পড়ে। ফলে মস্তিষ্কের কর্মক্ষমতা কমে যায়। পাশাপাশি তাদের মনোযোগের ঘাটতিও হয়।

এছাড়া যেসব শিশু ৪ ঘণ্টার বেশি স্ক্রিনে সময় কাটায় তাদের মোটা হওয়ার সম্ভাবনা বেড়ে যায়। কারণ এসময় তারা বসে বসে বিভিন্ন ধরনের খাবার খায়। কিন্তু কোন শক্তি খরচ করে না। আর ওজন বাড়লে শিশুদের ডায়বেটিসসহ অন্যান্য রোগের ঝুঁকিও বাড়ে। ঘণ্টার পর ঘণ্টা স্ক্রিনে চোখ দিয়ে রাখলে চোখেরও ক্ষতি হয়। পাওয়ার কমে যাওয়ার ঝুঁকি বাড়ে।

গবেষকরা আরো বলছেন, টিভিতে যদি শিশু সহিংস কোন ঘটনা দেখে তাহলে সে-ও সেটা শেখে। অন্যদের সঙ্গেও সে একই আচরন করতে চায়। এছাড়া যদি মোবাইল কিংবা  কম্পিউটারে সহিংস কোন খেলা দেখে তাহলে তার মধ্যেও এরকম আচরনের প্রতিফলন ঘটে।

একারণে প্রত্যেক বাবা-মায়েরই উচিত স্ক্রিন সেটা টিভি, কমম্পিউটার, মোবাইল, ট্যাব যাই হোক না কেন- তা দেখার সময় নির্ধারন করে দেওয়া। কতক্ষন শিশু স্ক্রিন দেখতে পারবে তা ঠিক করা।  পাশাপাশি শিশুরা কি দেখছে বা কি গেম খেলছে সে্বই বিষয়েও বাবা-মায়ের সতর্ক থাকা প্রয়োজন।

সূত্র : কিডস হেলথ,টেলিগ্রাফ

error20
fb-share-icon0
Tweet 10
fb-share-icon20


© All rights reserved 2020 ® newspabna.com

 
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
Wordpress Social Share Plugin powered by Ultimatelysocial
error: Content is protected !!