৪ দফা দাবিতে পাবিপ্রবি’র শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ

পাবনা প্রতিনিধি : পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (পাবিপ্রবি) উপাচার্যের কাছে চাকুরী প্রার্থী যুবকের ঘুষের টাকা ফেরত চাওয়ার একটি অডিও ফাঁস করার ঘটনায় ফেসবুকে মন্তব্য করায় তিন শিক্ষককে শোকজ করে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

শিক্ষকদের বিরুদ্ধে করা সেই শোকজ প্রত্যাহারের দাবিসহ চার দফা দাবিতে সোমবার (২৮ অক্টোবর) সকাল দশটা থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবনের সামনে অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ করে শিক্ষার্থীরা।

দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে একটি বিক্ষোভ মিছিল বের করে ক্যাম্পাস চত্বর প্রদক্ষিণ করে শিক্ষার্থীরা। পরে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের সাথে একাত্মতা ঘোষণা করে বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগ। দুপুর একটার পর থেকে শান্ত রয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিস্থিতি।

অর্থনীতি বিভাগের চতুর্থ বর্ষের ছাত্র আব্দুল আলীমসহ অন্যান্য শিক্ষার্থীরা জানান, ইতিহাস বিভাগের শিক্ষক নিয়োগ নিয়ে ভিসির কাছে চাকুরী প্রার্থী যুবকের ঘুষের টাকা ফেরত চাওয়ার একটি অডিও ফাঁস হয় গত ২৪ অক্টোবর।

সে ঘটনায় তিনজন শিক্ষক ফেসবুকে মন্তব্য করার কারণে তাদের কারণ দর্শানোর নোটিশ দিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

কারণ দর্শানোর নোটিশ প্রাপ্ত তিন শিক্ষক হলেন, অর্থনীতি বিভাগের সহকারি অধ্যাপক ইয়াহিয়া ব্যাপারী আকাশ, নগর ও অঞ্চল পরিকল্পনা বিভাগের প্রভাষক কমরুল হাসান কনক এবং ব্যবসায় প্রশাসন বিভাগের সহকারি অধ্যাপক কামাল হোসেন।

শিক্ষার্থীরা জানান, ২৪ ঘন্টার মধ্যে সেই শোকজ নোটিশ প্রত্যাহার করতে হবে। সেইসাথে প্রক্টর ও ছাত্র উপদেষ্টার পদত্যাগ, ক্যাম্পাসে ভিসিকে সার্বক্ষনিক অবস্থান ও ফাঁসকৃত অডিও তদন্তের দাবি জানান তারা। এসব দাবি মানা না হলে আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ারও হুশিয়ারি দেন শিক্ষার্থীরা।

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ড. প্রীতম কুমার দাস বলেন, আমার শিক্ষার্থীদের সাথে কথা বলেছি। কিন্তু তারা কোনো লিখিত দাবি জানায়নি। লিখিত পেলে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে অবহিত করবো।

আর শিক্ষকদের শোকজ করা হয়েছে, তারা জবাব দিলেই বিষয়টি সমাধান হয়ে যায়, সেখানে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের যৌক্তিকতা কি আমরা বুঝতে পারছি না।