News Pabna
ঢাকারবিবার , ৩ জুলাই ২০২২

সদস্য সচিবকে ছাড়াই কর্মসূচি পালনের সিদ্ধান্ত

ডেস্ক নিউজ
জুলাই ৩, ২০২২ ৯:০৬ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

রাজশাহী মহানগর বিএনপির পূর্ণাঙ্গ আহ্বায়ক কমিটিতে পদ-পদবি পেয়েছেন চিহ্নিত বেশ কয়েকজন মাদকসেবীও। তারা দলের কর্মসূচিতে বিশৃঙ্খলা করছেন। কমিটির সদস্য সচিব মামুন অর রশিদের অনুসারী তারা। এমন পরিস্থিতিতে আহ্বায়ক কমিটির অধিকাংশ নেতা মামুন অর রশিদ ও তার অনুসারীদের বাদ দিয়েই দলীয় কর্মসূচি ও সাংগঠনিক কার্যক্রম পরিচালনার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। তারা সদস্য সচিব ও তার অনুসারীদের বিরুদ্ধে ছয় জুন কেন্দ্রে অভিযোগও দিয়েছেন। তবে কেন্দ্র থেকে এখনো এ বিষয়ে কোনো ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি।

 

জানা গেছে, গত বছরের ৯ ডিসেম্বর কেন্দ্র সভাপতি মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল ও সাধারণ সম্পাদক শফিকুল হক মিলনের নেতৃত্বাধীন কমিটি ভেঙে দিয়ে রাজশাহী মহানগর বিএনপির ৯ সদস্যের আহ্বায়ক কমিটি ঘোষণা করে। পরে ৫ মার্চ ৬১ সদস্যের পূর্ণাঙ্গ আহ্বায়ক কমিটি অনুমোদন দেওয়া হয়। এরপর ৬ জুন কমিটির আহ্বায়ক বীর মুক্তিযোদ্ধা অ্যাডভোকেট এরশাদ আলী ইশাসহ কয়েকজন নেতা কেন্দ্রে লিখিত অভিযোগ করেছেন সদস্য সচিব মামুন অর রশিদ ও তার অনুসারীদের বিরুদ্ধে। তাদের অভিযোগ, মামুন অর রশিদ প্রভাব খাটিয়ে বিএনপির মহানগর কমিটিতে মোটরশ্রমিক, দিনমজুর ও চিহ্নিত মাদকসেবীদের পদ-পদবি পাইয়ে দিয়েছেন যারা দলের কেউ নন, বরং বিতর্কিত ও অরাজনৈতিক ব্যক্তি। দল রক্ষায় এসব চিহ্নিত ব্যক্তিদের অপসারণের দাবি করেন তারা। অভিযোগপত্রে স্বাক্ষরকারী অন্য নেতারা হলেন-যুগ্ম-আহবায়ক নজরুল হুদা, যুগ্ম আহ্বায়ক দেলোয়ার হোসেন, ওয়ালিউল হক, আসলাম সরকার, বজলুল হক, জয়নাল আবেদীন প্রমুখ।

কেন্দ্রে পাঠানো অভিযোগে আরও বলা হয়, মহানগর বিএনপির সদস্য সচিব মামুন দীর্ঘদিন জাতীয় পার্টি করেছেন। তার আগে করতেন জাসদ। ১৯৯১ সালে বিএনপি ক্ষমতায় এলে তিনি ১৯৯৪ সালে দলে যোগ দেন। আহ্বায়ক কমিটির একাধিক নেতা নাম প্রকাশ না করে বলেন, কেন্দ্র কোনো পদক্ষেপ না নেওয়ায় সদস্য সচিব মামুন ও তার অনুসারীদের বাদ দিয়েই মহানগর বিএনপির দলীয় কর্মসূচি পালনের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

এর পর থেকে দলের বিভিন্ন কর্মসূচিতে মামুনের অনুসারীরা দলের নেতা থেকে শুরু করে মাঠপর্যায়ের কর্মীদের সঙ্গে অসদাচরণ করছেন।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক রাজশাহী মহানগর বিএনপির একাধিক নেতা বলেন, ২ মার্চ বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুক্তি এবং তেল, গ্যাসসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতির প্রতিবাদে বানেশ্বরে জেলা ও মহানগর বিএনপির যৌথ উদ্যোগে প্রতিবাদ সমাবেশ ডাকা হয়। ওই সমাবেশে প্রধান অতিথি ছিলেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। সমাবেশ চলাকালে মামুনের অনুসারীরা নেশাগ্রস্ত অবস্থায় দলের নেতাকর্মীদের ওপর চড়াও হন। তারা একপর্যায়ে মঞ্চের দিকে জুতা স্যান্ডেল নিক্ষেপ করে কেন্দ্রীয় নেতাদের অপদস্থ করেন।

সর্বশেষ ৩০ মে বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা সাবেক রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের ৪১তম শাহাদতবার্ষিকী উপলক্ষ্যে রাজশাহী মহানগর বিএনপির দলীয় কার্যালয়ে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল হয়। কর্মসূচি চলাকালে মামুন অনুসারীদের নিয়ে রাজশাহী মহানগর বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম আহ্বায়ক নজরুল হুদার ওপর চড়াও হয়ে তাকে শারীরিকভাবে হেনস্তা করেন এবং অনুষ্ঠান পণ্ড করে দেন।

অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে মহানগর বিএনপির সদস্য সচিব মামুন অর রশিদ বলেন, আমার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগগুলো সম্পর্কে আমি অবগত। তবে এ বিষয়ে আমি কিছু বলতে চাই না।

এদিকে দলীয় নেতাকর্মীদের অভিযোগ, রাজশাহী মহানগর বিএনপির চলতি কমিটি নিয়ে নেতাকর্মীদের মাঝে হতাশা বিরাজ করছে। আহ্বায়ক কমিটি ঘোষণার পর চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা মিজানুর রহমান মিনু, সাবেক সভাপতি মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল ও সাবেক সাধারণ সম্পাদক শফিকুল হক মিলনের অনুসারীরা পুরোপুরি নিষ্ক্রিয় হয়ে পড়েছেন। অভিযোগ উঠেছে, পূর্ণাঙ্গ আহ্বায়ক কমিটিতে এই তিন নেতার অনুসারীদের কোনো পদ-পদবি দেওয়া হয়নি। ফলে জাতীয় বা স্থানীয় কর্মসূচিতে তিন নেতা ও তাদের অনুসারীরা অনুপস্থিত থাকছেন।