বৃহস্পতিবার, ২১ জানুয়ারী ২০২১, ০৮:৫২ পূর্বাহ্ন

আতঙ্কিত হবেন না
করোনা সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন

HPV দ্বারা সৃষ্ট ক্যান্সারের টিকার বিষয়ে জানুন

যেকোন ধরনের ক্যান্সারই খারাপ কিন্তু HPV এর দ্বারা সৃষ্ট ক্যান্সারগুলো বিশেষভাবে মারাত্মক হয়। ছবি: সংগৃহীত

image_pdfimage_print

স্বাস্থ্য ডেস্ক : ক্যান্সারের টিকা আবিষ্কারের বিষয়টি এতদিন কল্পনাই ছিল। বর্তমানে ৬ টি হিউম্যান প্যাপিলোমা ভাইরাসের (HPV) দ্বারা সৃষ্ট ক্যান্সারকে প্রতিরোধ করার টিকা আবিষ্কার হয়েছে।  কিন্তু এর কাজ খুবই ধীর গতির।  

যদিও এক দশকের ও বেশি সময় ধরে এটি পাওয়া যাচ্ছে, কিন্তু ২০১৪ সালে মাত্র ৪০ শতাংশ মেয়ে এই টিকার ৩ টি ডোজ গ্রহণ করেছিলো এবং মাত্র ২২ শতাংশ ছেলে এই টিকার ৩ টি ডোজ গ্রহণ করেছিলো। এটি Tdap টিকা (যা টিটেনাস, ডিপথেরিয়া এবং অ্যাসেলুলার পারটুসিস রোগ প্রতিরোধ করে) গ্রহণের হারের তুলনায় ৮৭ শতাংশ কম। এই টিকা গ্রহণের হার সকল গ্রুপের ক্ষেত্রেই কম।

এর কারণ হচ্ছে টিকা সম্পর্কে ভুল তথ্য এবং এটি শিশুদের জন্য পরিচালিত হচ্ছে। HPV বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই যৌনবাহিত রোগ হওয়ায় অনেক পিতামাতাই মনে করছেন যে তাদের সন্তানরা যৌনজীবনে সক্রিয় হওয়ার পূর্বে এই টীকা দেয়ার প্রয়োজন নেই। কেউ কেউ বিশ্বাস করেন যে, এই টিকা নিলে সময়ের পূর্বেই যৌন আচরণ উৎসাহিত হয়। ৩ জন চিকিৎসক কর্মজীবী পিতামাতার সাথে কথা বলে জানতে পারেন যে তারা মনে করেন এই টিকা তাদের সন্তানদের জন্য ভালো নয়।

সাধারণ ভাইরাসের অসাধারণ ঝুঁকি

ওহাইও ষ্টেট ইউনিভার্সিটির কলেজ অফ মেডিসিনের ক্যান্সার গবেষণার অধ্যাপক ইলেক্ট্রা ডি পাস্কেট এবং তার সহকর্মীরা – কম্প্রিহেন্সিভ ক্যান্সার সেন্টার, আরথার জি জেমস ক্যান্সার হসপিটাল এবং রিচারড জে সলভ রিসার্চ ইন্সটিটিউট এর অনকোলজিস্ট এবং ক্যান্সার কন্ট্রোল রিসার্চারগণ বলেন, গ্রীবা, পায়ুপথ, যোনিপথ, যৌনাঙ্গ ও গলার ক্যান্সার এবং মাথা ও ঘাড়ের  ক্যান্সার হওয়ার  কারণ HPV ভাইরাস। গবেষণায় প্রকাশিত হয়েছে যে, কীভাবে HPV আমাদের কোষের জিনকে ক্ষতিগ্রস্থ করে এবং ক্যান্সারের পরিব্যাক্তিকে উৎসাহিত করে।

ঝুঁকিপূর্ণ আচরণের পূর্বেই এই টিকার পূর্ণ ডোজ সম্পন্ন করা উচিৎ। ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালে দেখা গেছে যে, সঠিকভাবে নেওয়া গেলে HPV এর টিকা ১০০ ভাগ সুরক্ষা দিতে পারে সারভিকাল ক্যান্সার ও জেনিটাল ওয়ারটস এর বিরুদ্ধে। গত দশকে HPV এর সংক্রমণ টীকা নেয়ার ফলে ৬৪ শতাংশ কমেছে।

প্রথম HPV এর টিকা গারডাসিল চালু হয় ইউ এস ফুড এন্ড ড্রাগ অ্যাডমিনিস্ট্রেশন (FDA) এর অনুমোদনে ২০০৬ সালে। তখন এই টিকা দেয়ার উপযুক্ত সময় নিয়ে অনেক বিতর্ক হয়। এই চ্যালেঞ্জ সত্ত্বেও এই টিকা নিয়ে প্রচারের ফলে এর স্বাস্থ্যকর্মীদের সচেতনতা এবং টিকা গ্রহণের হার বৃদ্ধি পায়। 

সম্প্রতি ‘গারডাসিল ৯’ আনা হয়েছে, যা ১৫ থেকে ২৬ বছর বয়সের তরুণদের ৬ মাসে ৩ টি  ডোজ নিতে হয়। যদিও ইউ এস সেন্টার ফর ডিজিজ কন্ট্রোল এন্ড প্রিভেনশন (CDC) সম্প্রতি পরামর্শ দিয়েছে যে, কিশোরদের ৯ থেকে ১৪ বছর বয়সের মধ্যে গারডাসিল এর দুটি ডোজ নেয়াই সমান কার্যকরী হতে পারে।

দুটি ডোজ অনেক জীবন বাঁচাতে পারে

নতুন এই দুটি ডোজ দেয়ার বিষয়টিও বেশ জটিল। যেকোন ধরনের ক্যান্সারই খারাপ কিন্তু HPV এর দ্বারা সৃষ্ট ক্যান্সারগুলো বিশেষভাবে মারাত্মক হয়। মাথা ও ঘাড় এর ক্যান্সারের ফলে ফুলে  যাওয়া এবং কথা বলতে সমস্যা হওয়াসহ অনেক বেশি সমস্যা তৈরি করে। এর ফলে রোগী খাওয়াদাওয়া করতে পারে না এবং সামাজিকভাবে বিচ্ছিন্ন থাকতে হয় তাকে।

এক দশকের ব্যবহারের ফলে এটি পরিষ্কারভাবেই জানা গেছে যে, HPV এর টিকা নিরাপদ এবং কার্যকরী। সকল পিতামাতা ও অভিভাবকদের উচিৎ তাদের পুত্রকন্যাদের ১৩ বছর বয়স হওয়ার পূর্বেই HPV টীকার দুটি ডোজ দেয়ার ব্যবস্থা করা। ১৫ বছরের বেশি বয়সীদের জন্য টিকার ৩ টি ডোজ দেয়ার ব্যবস্থা করা উচিৎ। 

ক্যান্সার কন্ট্রোল রিসার্চার হিসেবে এবং ৩ টি ছেলের অভিভাবক হওয়ায় তিনি (ইলেক্ট্রা ডি পাস্কেট)  HPV টিকার আবির্ভাব খুব কাছ থেকে দেখেছেন এবং তার সন্তানদেরকে এই টিকা দেয়ার ব্যবস্থা করেছেন যাতে তারা ভবিষ্যতে ক্যান্সার হওয়া থেকে রক্ষা পায়। টিকার মাধ্যমে অনেক রোগই নিয়ন্ত্রণে এসেছে এবং বসন্ত রোগ নির্মূল হয়েছে। এই শতাব্দীতে এই টিকা অনেক ক্যান্সারকেই নির্মূল করতে পারে যদি ঠিকভাবে একে ব্যবহার করা হয়। 

সূত্র: আই এফ এল সায়েন্স  

0
1
fb-share-icon1

Best WordPress themes


© All rights reserved 2020 ® newspabna.com

 
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
error: Content is protected !!